২০ সেপ্টেম্বর ,বৃহস্পতিবার, ২০১৮

শিরোনাম

> বিশেষ প্রতিবেদন

 

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

১৭ জুলাই ,মঙ্গলবার, ২০১৮ ২০:১৪:২০

‘আমাকে ক্রয়ফায়ারে দিতে চেয়েছিলেন ওসি’


‘আমাকে ক্রয়ফায়ারে দিতে চেয়েছিলেন ওসি’

শিক্ষানবিশ আইনজীবী সমর কৃষ্ণ চৌধুরী


পকেটে ইয়াবা ও অস্ত্র দিয়ে ফাঁসিয়ে গ্রেপ্তারের পর পুলিশ ক্রসফায়ারে মেরে ফেলার চেষ্টাও চালিয়েছিল বলে দাবি করেছেন চট্টগ্রামের শিক্ষানবিশ আইনজীবী সমর কৃষ্ণ চৌধুরী।

সদ্য জামিনে মুক্ত ষাটোর্ধ্ব এই ব্যক্তি এই দাবির পাশাপাশি বোয়ালখালী থানা হাজতে তার ওপর নির্যাতনের অভিযোগও তুলেছেন।বোয়ালখালীর ওসি হিমাংশু দাশ রানাসহ থানার কয়েকজন পুলিশ সদস্যের দিকে অভিযোগের আঙুল তোলেন তিনি।যদিও সমর চৌধুরীকে ফাঁসিয়ে দেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন ওসি হিমাংশু দাশ। 

বিষয়টি নিয়ে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার নূরে আলম মিনা বলেন, ‘এই ধরনের অভিযোগ আমিও পেয়েছি। মৌখিকভাবে অভিযোগ দিয়েছেন সমর চৌধুরী।’

অভিযোগ তদন্তের জন্য অতিরিক্ত এসপি (চট্টগ্রাম দক্ষিণ) এবং অতিরিক্ত এসপিকে (পটিয়া সার্কেল) দায়িত্ব দিয়েছেন জানিয়ে পুলিশ সুপার বলেন, ‘ইতোমধ্যে তদন্ত শুরু হয়ে গেছে। সত্যতা পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

জামিনে মুক্ত হলেও সমর চৌধুরীর নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত তার পরিবার।সমরের বড় মেয়ে বলেন, ‘গণমাধ্যম ও সাধারণ মানুষের সমর্থন থাকায় বাবাকে ফিরে পেয়েছি। কিন্তু তার ভবিষ্যত নিয়ে আমরা শঙ্কিত।

সমর চৌধুরী চট্টগ্রাম শহরে থাকলেও তার বাড়ি বোয়ালখালী উপজেলার দক্ষিণ সারোয়াতলী গ্রামে। ওই গ্রামের লন্ডনপ্রবাসী সঞ্জয় দাশের সঙ্গে তার কাকা স্বপন দাশের জমি নিয়ে বিরোধ আছে। স্বপন দাশকে আইনগত পরামর্শ ও সহযোগিতা দিয়ে আসছিলেন সমর চৌধুরী।

ওই ঘটনার জের ধরে সঞ্জয় দাশের প্ররোচনায় চট্টগ্রাম রেঞ্জের তৎকালীন ডিআইজি মনির-উজ-জামানের নির্দেশে সমরকে গেল ২৭ মে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। এরপর তাকে ইয়াবা ও অস্ত্র মামলার আসামি করা হয়।

সারাদেশে মাদকবিরোধী অভিযানের মধ্যে সমর চৌধুরীকে ইয়াবা আটকের মামলায় গ্রেপ্তার দেখায় পুলিশ। এই অভিযানে কথিত বন্দুকযুদ্ধে মৃত্যু নিয়ে মানবাধিকার সংগঠনগুলো প্রশ্ন তুলে আসছে।

সমর চৌধুরীকে ঘটনাটি প্রকাশ পেলে সমালোচনার ঝড় বয়ে যায়। এর মধ্যেই ডিআইজি মনির-উজ-জামানকে চট্টগ্রাম থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়।

কারাগার থেকে মুক্তির পর সমর চৌধুরী গণমাধ্যমকে তার ওপর নির্যাতনের বর্ণনা দেন।তিনি জানান, পুলিশ তার হাতে থাকা একটি স্বর্ণের ও একটি রূপার আংটি, মোবাইল সেট, নগদ ১২ হাজার টাকা ও মানিব্যাগ কেড়ে নিয়ে হাজতে আটকে রাখে।ওই সময় তার কয়েকজন স্বজন থানায় গেলেও তাদের ঢুকতে দেওয়া হয়নি।

তিনি বলেন, ‘রাতের বেলায় আমি ওসি হিমাংশু দাশকে দেখে তার পা জড়িয়ে ধরে কান্নাকাটি করি। তাকে বলি, তার দেওয়া নির্দেশনা অনুযায়ী স্বপন দাশের সাথে আর কোনো যোগাযোগ রাখিনি। এ সময় ওসি হিমাংশু আমাকে লাথি দিয়ে মাটিতে ফেলে দিলে মাথা ফেটে যায়। পরে পাশে দাঁড়ানো দুই কনস্টেবল আমার হাতে অস্ত্র ধরিয়ে দিয়ে ছবি তোলে।’

ওই সময় পুলিশের এক এসআই তাকে প্রসাব খাওয়াতে চেয়েছিলেন বলেও অভিযোগ করেন এই শিক্ষানবিশ আইনজীবী।

‘ওসি হিমাংশু বলে, শালাকে ফেলে দিয়ে আয়। এরপর হ্যান্ডকাফ লাগিয়ে আমাকে গাড়িতে তোলা হয়। ওইসময় আমি আমার মেয়ে ও স্ত্রীর কী হবে বলে আকুতি করলে তারা অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন।’

গাড়িতে করে তাকে চরণদ্বীপ এলাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছিল বলে জানান সমর। চোখ বাঁধা অবস্থায় কী করে চরণদ্বীপ বুঝলেন- প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, ‘ড্রাইভার কোথায় যাবে জানতে চাইলে তাকে বলেছিল, চরণদ্বীপ নিয়ে যেতে।’

সমর আরও বলেন, ‘আমি হ্যান্ডকাফটা একটু হাল্কা করে দিতে বললে একজন বলে, আর ২-৩ মিনিট আছে। তারপর তোকে তো বেহশতে পাঠিয়ে দেব’।

‘চরণদ্বীপ এলাকায় নিয়ে গিয়ে আমার চোখ খুলে দিয়ে চলে যেতে বলে। ওই সময় আমার মনের মধ্যে ভয় চলে আসে। আমি না গিয়ে তাদের সাথে দাঁড়িয়ে থাকি এবং ঠাকুরের নাম জপ করতে থাকি।’ 

সমরের ভাষ্য, ‘শেষ পর্যন্ত কিভাবে বেঁচে ফিরে এলাম, সেটা এখনো নিজেকে বিশ্বাস করাতে পারিনা।’


অরিন/নিউজ টোয়েন্টিফোর


 


প্রধান শিক্ষকের নির্যাতনে শিক্ষার্থী অজ্ঞান!
শিক্ষক হলেন হাছান মাহমুদ, পড়াবেন জাহাঙ্গীরনগরে
জাল নোট ও টাকা তৈরির সরঞ্জামসহ প্রতারক আটক
নদীতে ডুবে নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু
কুমিল্লায় দুই ব্যক্তির অস্বাভাবিক মৃত্যু
প্রেম প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায়.... 
'বিচার বিভাগকে সরকার নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে'
অসহনীয় লোড শেডিংয়ে অতিষ্ঠ রাঙামাটিবাসী
টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্তে আফগানরা
যমুনার পেটে টাঙ্গাইলের শতাধিক ঘর-বাড়ি
কারাগারে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে যুবকের মৃত্য
রোববার চালু হচ্ছে সিম্ফোনির কারখানা 
অক্টোবরে আসছে গুগলের স্মার্ট ডিসপ্লে
খুলনায় কিশোরের লাশ নদীতে
রক্তাল্পতার লক্ষণ, কারণ ও প্রতিকারের উপায়
ইসরাইলকে রাশিয়ার হুঁশিয়ারি
খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে বিচার চলবে
নিউইয়র্কে যুবলীগের দু'গ্রুপে সংঘর্ষ
ভারতীয় ২০টি প্রশিক্ষিত ঘোড়া বেনাপোল বন্দরে
বাজারে আসছে গো-মূত্রের শ্যাম্পু ও গোবরের সাবান!
'তাৎক্ষণিক তিন তালাক শাস্তিযোগ্য অপরাধ'
প্রধান শিক্ষকের নির্যাতনে শিক্ষার্থী অজ্ঞান!
সিংড়ায় হাজার হাজার শিক্ষার্থীদের শপথ
শিক্ষক হলেন হাছান মাহমুদ, পড়াবেন জাহাঙ্গীরনগরে
জাল নোট ও টাকা তৈরির সরঞ্জামসহ প্রতারক আটক
চাঁপাইনবাবগঞ্জে নদীতে ডুবে রাজমিস্ত্রির মৃত্যু
নদীতে ডুবে নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু
কুমিল্লায় দুই ব্যক্তির অস্বাভাবিক মৃত্যু
প্রেম প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায়.... 
'বিচার বিভাগকে সরকার নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে'
অসহনীয় লোড শেডিংয়ে অতিষ্ঠ রাঙামাটিবাসী
টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্তে আফগানরা
যমুনার পেটে টাঙ্গাইলের শতাধিক ঘর-বাড়ি
কারাগারে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে যুবকের মৃত্য
রোববার চালু হচ্ছে সিম্ফোনির কারখানা 
অক্টোবরে আসছে গুগলের স্মার্ট ডিসপ্লে
মায়ের ওপর অভিমানে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা
মাদারীপুরে সেতুর দাবিতে শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ
খুলনায় কিশোরের লাশ নদীতে
দিনাজপুরে মাদক বিরোধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত
রাষ্ট্রপতির হাতে পুরস্কার পাওয়া ছাত্রীকে গণধর্ষণ!
জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের স্টিকারযুক্ত মাইক্রোবাসে ৪ মণ গাাঁজা
ওমানের সালাম এয়ারকে শাহজালাল বিমানবন্দরে জরিমানা
নয় বছরের শিশুকে ধর্ষণ করল বাবা!
বসুন্ধরা নিয়ে এল স্বাস্থ্য সহনীয় মশার কয়েল 'এক্সট্রিম'
দেহ ব্যবসা করতো র‌্যাম্প মডেল কান্তা
পোশাক নিয়ে সমালোচনার মুখে জাহ্নবী কাপুর
৩০ দেশ পাড়ি দিয়ে হেঁটে হজে গিয়েছিলেন মহিউদ্দিন
আ.লীগ-বিএনপির ৪০০ নেতার শপথ
কাবা শরীফের ভেতরে ঢুকলেন ইমরান খান(ভিডিও)
আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে টাইগারদের সম্ভাব্য একাদশ
এখন ‌‘বয়ফ্রেন্ড’ জুটবে অ্যাপের মাধ্যমে
‘মন্ত্রীর পা ধরেও সড়কের কাজ শুরু করা যায় নি’
জাম্বুরি পার্কে ১ ঘণ্টা হাঁটলেন গণপূর্তমন্ত্রী!
অরুণা বিশ্বাসের এ কী হাল!
ইয়াবা সেবনে বাধা দেয়ায় মাকে হত্যা!
কুড়িগ্রামে কিশোর-কিশোরীর লাশ উদ্ধার
ওমরাহ ভিসায় সৌদি ভ্রমণে বিশেষ ছাড়
ব্রিজের রেলিং ভেঙে হাতিরঝিল লেকে প্রাইভেটকার
সুন্দরী তরুণীদের ধর্ষণ ও হত্যা করাই তার কাজ

সব খবর