১৫ ডিসেম্বর ,শুক্রবার, ২০১৭

শিরোনাম

> আন্তর্জাতিক

 

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

৪ অক্টোবর , বুধবার, ২০১৭ ১১:৪৯:১৩

মাঝরাতে হাসপাতালে নেওয়া হলো হানিপ্রীতকে


মাঝরাতে হাসপাতালে নেওয়া হলো হানিপ্রীতকে

হানিপ্রীত ইনসান। -ফাইল ছবি



ধর্ষকগুরু বাবা রাম রহিম গ্রেপ্তারের পর থেকে পলাতক ছিলেন তার পালিত মেয়ে হানিপ্রীত ইনসান। ভারতের নানা অলি গলি তন্ন তন্ন করে খুঁজেও মিলছিল না তার হদিশ। কখনো খবর চাউর হয় যে, হানি নেপালে আশ্রয় নিয়েছে। কখনো খবর ছড়ায় তাকে কলকাতায় দেখা গেছে। অবশেষে প্রায় একমাস পর গতকাল মঙ্গলবার চণ্ডীগড়ের কাছে একটি হাইওয়ে থেকে সুখদীপ কউকের নামে এক নারীসহ হানিপ্রীতকে গ্রেপ্তার করা হয়। 

গ্রেপ্তার হওয়া হানিপ্রীত ইনসানকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য  মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১ টার দিকে পাঁচকুলার সিটি হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে তার নানা পরীক্ষা-নীরিক্ষা করা হয়। আজ তাঁকে আদালতে পেশ করার কথা রয়েছে।

স্বঘোষিত ধর্মগুরু রাম রহিমের সাজা ঘোষণার পর থেকে নিখোঁজ ছিলেন হানিপ্রীত৷ তার বিরুদ্ধে একাধিক ধারায় রুজু হয়েছিল মামলা৷ দীর্ঘদিন খোঁজ না পাওয়ায় মনে করা হচ্ছিল দেশ ছেড়ে পালিয়ে গেছেন হানিপ্রীত।

নেপালে আত্মগোপন করে রয়েছেন বলেও মনে করা হচ্ছিল৷ কিন্তু মঙ্গলবার সকাল থেকেই হানিপ্রীতের আত্মসমর্পণের খবর ছড়িয়ে পড়ে৷ গ্রেপ্তার হওয়ার আগে হানিপ্রীতের একান্ত সাক্ষাৎকারের ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে গণমাধ্যমে৷ প্রশ্ন ওঠে, পুলিশ হানিপ্রীতের খোঁজ পেল না অথচ সংবাদমাধ্যম তার কাছে পৌঁছে যায় কী করে?

সেই ভিডিওতে বাবা রহিমের সঙ্গে তার সম্পর্ক নিয়েও মুখ খুলেছেন তিনি৷ সেখানে স্পষ্ট জানিয়েছেন, বাবার সঙ্গে তার কোন অবৈধ সম্পর্ক ছিল না। তাদের সম্পর্ক ছিল পবিত্র। একজন বাবা তার মেয়েকে স্পর্শ করতেই পারে। হানি দাবি করেন তিনি ও তার বাবা নির্দোষ৷ সত্যিটা প্রকাশ্যে আসবেই৷ 

ভিডিওটি প্রকাশ্যে আসার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই গ্রেপ্তার হন রাম রহিমের সঙ্গিনী ও পালিত কন্যা হানিপ্রীত৷

প্রসঙ্গত, রাম রহিম গ্রেপ্তারের পর মেয়ে পরিচয়ের আড়ালে হানিপ্রীতের সঙ্গে তার অনৈতিক সম্পর্কের খবর ছড়ায়। হানিপ্রীতের স্বামীই দাবি করেন যে, তার স্ত্রীকে রাম রহিমের সঙ্গে এক কক্ষে নগ্ন ও আপত্তিকর অবস্থায় দেখেছেন। এরপরই তিনি হানিপ্রীতের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ ঘটান।