২৪ সেপ্টেম্বর ,সোমবার, ২০১৮

শিরোনাম

> বাংলাদেশ

>> সুখবর

 

নিউজ টোয়েন্টিফোর অনলাইন

১ সেপ্টেম্বর ,শনিবার, ২০১৮ ১৮:৪১:৫৪

'ঘোষিত সময়ের আগেই সবার ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে যাবে'


'ঘোষিত সময়ের আগেই সবার ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে যাবে'

গোলটেবিল বৈঠকে বক্তারা


বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, আমরা ঘোষণা দিয়েছিলাম ২০২১ সালে সবার ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিবো। ইতোমধ্যে ৯২ শতাংশ জনগণ বিদ্যুতের আওতায় চলে এসেছে। আশা করছি ঘোষিত সময়ের আগেই সবার ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে যাবে।

শনিবার ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের (ইডব্লিউএমডিজিএল) কনফারেন্স রুমে ডেইলি সান আয়োজিত এক সেমিনারে তিনি এ মন্তব্য করেন।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, এই মুহূর্তে সাশ্রয়ী মূল্যে ও মানসম্মত বিদ্যুৎ সরবরাহ প্রধান চ্যালেঞ্জ। পিক আওয়ার, অফ পিক আওয়ারের মধ্যে বিদ্যুৎ চাহিদার ব্যবধান অনেক বেশি। এটা কমিয়ে আনা জরুরি। এজন্য দিনের বেলায় বিদ্যুতের ব্যবহার বাড়িয়ে রাতে কমিয়ে দিতে হবে। বিশ্বের অনেক দেশেই সন্ধ্যা ৭টা-৮টার মধ্যে দোকানপাট- শপিং মল বন্ধ হয়ে যায়। কিন্তু আমাদের সন্ধ্যার পর বিদ্যুৎ চাহিদা অনেক বেড়ে যায়। দুই সময়ের মধ্যে বিদ্যুৎ চাহিদা ১০ হাজার মেগাওয়াট হয়ে গেলে তা ম্যানেজ করা জটিল। অফ পিকেও তখন অনেক প্লান্ট চালু রাখতে হয়। আমাদের অফিস টাইম এগিয়ে আনা যায় কি না সেটা ভেবে দেখার সময় হয়েছে।

সেমিনারে বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব ড. আহমেদ কায়কাউস বলেন, আমরা অনেক এগিয়ে আছি এ কথা বলতে পারি। এক সময় বলা হতো কুইক রেন্টাল দেশকে দেউলিয়া করবে। কিন্তু না কিছুই হয়নি। দেশ বরং এগিয়ে গেছে।

আলোচনা আসা লোডশেডিংয়ের জবাবে সচিব বলেন, রংপুর-রাজশাহী অঞ্চলে একটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র বন্ধ থাকায় কিছুটা লোডশেডিং হচ্ছে। এটা আমরা স্বীকার করছি। অন্য কোথাও লোডশেডিং নেই। তবে কোথাও কোথায় বিতরণ ত্রুটির কারণে বিঘ্ন হচ্ছে। অনেকে এটাকে লোডশেডিং বলে, আমরা এটাকে লোডশেডিং বলতে পারছি না।

পাওয়ার সেলের ডিজি মোহাম্মদ হোসাইন বলেন, ২০২১ সালের যে রূপকল্প ঘোষণা করা হয় তার অনেক কাছে পৌঁছে গেছি। আমরা এখন ২০৪১ সালের নতুন লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে কাজ শুরু করেছি। ২০৪১ সালে ৪৮ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুতের প্রয়োজন হলেও আমরা ৬০ হাজারের লক্ষ্যে কাজ শুরু করেছি। এতে প্রায় ৮২ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ প্রয়োজন হবে। আমরা মনে করছি এটা পারবো। আমাদের  এখন চ্যালেঞ্জ সঞ্চালন ও বিতরণ লাইন। আমরা সে বিষয়ে কাজ শুরু করেছি। এতে কিছুটা সময় লাগছে বলে মন্তব্য করে মোহাম্মদ হোসেন।

পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান মঈন উদ্দিন বলেন, আমরা ৯০ শতাংশ এলাকায় বিদ্যুৎ বিতরণের দায়িত্বে রয়েছি। ২০১৯ সালের মধ্যে শতভাগ বিদ্যুতায়নে সক্ষম হবো। হবে মানসম্মত বিদ্যুৎ সরবরাহে আরও কিছুটা সময় দিতে হবে।

জ্বালানি বিশেষজ্ঞ ম. তামিম বলেন, এক সময় ৮৫ শতাংশ বিদ্যুৎ উৎপাদন হতো গ্যাসে। এখন মাত্র ৪৯ শতাংশ গ্যাসে উৎপাদন হচ্ছে। এখন এলএনজি আনা হচ্ছে। এতে বিদ্যুতের দাম বেড়ে যাবে। এখন ৬টাকার মতো দাম, আমার মনে হচ্ছে তিন-চার বছরের মধ্যে ৮ টাকায় চলে যাবে। এটা কীভাবে সামাল দিবে এখনই ভাবা দরকার।

ম. তামিম বলেন, খারাপ ওয়েদারের কারণে অনেক সময়ে ভাসমান এলএনজি স্টেশন থেকে সরবরাহ বিঘ্ন হতে পারে। অবশ্যই ল্যান্ডবেজড এলএনজি স্টেশনের দিকে যেতে হবে। না হলে ঝুঁকি থেকেই যাবে। বড় বড় কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র হচ্ছে। কিন্তু সে তুলনায় দক্ষ প্রকৌশলী রেডি হচ্ছে বলেও সমালোচনা করেন ম. তামিম।

প্রফেসর ইজাজ হোসেন বলেন, আমরা মেগাওয়ার্ট গেমে অনেক সফল। এখন গেমস শিফট করতে হবে। এখানে অনেক ঘাটতি রয়েছে। লোডশেডিং হচ্ছে কিন্তু কেনো স্বীকার করা হয় না। এ নিয়ে প্রশ্ন তোলেন ইজাজ হোসেন।

ডেইলি সানের সম্পাদক এনামুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে গোলটেবিল আলোচনায় অন্যদের মধ্যে অংশ নেন, বাংলাদেশ প্রতিদিন’র নির্বাহী সম্পাদক পীর হাবিবুর রহমান, নিউজটোয়েন্টিফোরের নির্বাহী সম্পাদক হাসনাইন খুরশিদ, কোল পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানির এমডি গোলাম কিবরিয়া, বিজিএমইএ’র ভাইস প্রেসিডেন্ট ফারুক হাসান, সামিট পাওয়ারের এমডি আব্দুল ওয়াহেদ প্রমুখ।


রাজধানীতে ৩ দিনব্যাপী বিমান ট্যুরিজম ফেস্ট
‘পাকিস্তান পরাশক্তির কাছে মাথানত করে না’
ট্রেনের ছাদ থেকে ছাত্রকে ফেলে দিল দুর্বৃত্তরা
তাপে পাকানো হয় কদবেল, নষ্ট হচ্ছে গুণাগুণ!
‘জাতিসংঘের হস্তক্ষেপ করার অধিকার নেই’
‘দলের শৃঙ্খলা ভাঙলে বরদাশত করা হবে না’
নেত্রকোনায় মাথাবিহীন শিশুর জন্ম!
ট্রাম্পের কথা রাখল না ওপেক
বাগানে মিলল দু’মাথাওয়ালা সাপ
সাগরে ভেসে ৪৯ দিন বেঁচে ছিল এই তরুণ
মোটরসাইকেলে ওড়না পেঁচিয়ে আ.লীগ নেত্রীর মৃত্যু
‘বাবার মৃত্যু ক্রিকেট ক্যারিয়ার পাল্টে দিয়েছে’
গাংনীতে আড়াই বছরের শিশু ধর্ষণ!
সিরিয়ায় মার্কিন বিমান হামলায় নিহত ৩,৩০০
‘রুহানির সঙ্গে বৈঠক করতে চান ট্রাম্প’
পিরোজপুর চলছে ‘ইলিশ উৎসব’ 
বেনাপোল বন্দরে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ
ফরিদপুরে আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ
চুয়াডাঙ্গায় আগ্নেয়াস্ত্রসহ শীর্ষ সন্ত্রাসী গ্রেপ্তার
পাকিস্তানকে হারিয়ে যা বললেন রোহিত-ধাওয়ান
রাজধানীতে ৩ দিনব্যাপী বিমান ট্যুরিজম ফেস্ট
‘পাকিস্তান পরাশক্তির কাছে মাথানত করে না’
ট্রেনের ছাদ থেকে ছাত্রকে ফেলে দিল দুর্বৃত্তরা
তাপে পাকানো হয় কদবেল, নষ্ট হচ্ছে গুণাগুণ!
‘জাতিসংঘের হস্তক্ষেপ করার অধিকার নেই’
‘দলের শৃঙ্খলা ভাঙলে বরদাশত করা হবে না’
নেত্রকোনায় মাথাবিহীন শিশুর জন্ম!
ট্রাম্পের কথা রাখল না ওপেক
বাগানে মিলল দু’মাথাওয়ালা সাপ
সাগরে ভেসে ৪৯ দিন বেঁচে ছিল এই তরুণ
মোটরসাইকেলে ওড়না পেঁচিয়ে আ.লীগ নেত্রীর মৃত্যু
‘বাবার মৃত্যু ক্রিকেট ক্যারিয়ার পাল্টে দিয়েছে’
গাংনীতে আড়াই বছরের শিশু ধর্ষণ!
সিরিয়ায় মার্কিন বিমান হামলায় নিহত ৩,৩০০
‘রুহানির সঙ্গে বৈঠক করতে চান ট্রাম্প’
পিরোজপুর চলছে ‘ইলিশ উৎসব’ 
বেনাপোল বন্দরে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ
ফরিদপুরে আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ
চুয়াডাঙ্গায় আগ্নেয়াস্ত্রসহ শীর্ষ সন্ত্রাসী গ্রেপ্তার
পাকিস্তানকে হারিয়ে যা বললেন রোহিত-ধাওয়ান
কাবা শরীফের ভেতরে ঢুকলেন ইমরান খান(ভিডিও)
আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে টাইগারদের সম্ভাব্য একাদশ
শিক্ষক হলেন হাছান মাহমুদ, পড়াবেন জাহাঙ্গীরনগরে
‘মন্ত্রীর পা ধরেও সড়কের কাজ শুরু করা যায় নি’
কুড়িগ্রামে কিশোর-কিশোরীর লাশ উদ্ধার
ইসরাইলকে রাশিয়ার হুঁশিয়ারি
ওমরাহ ভিসায় সৌদি ভ্রমণে বিশেষ ছাড়
প্রধান শিক্ষকের নির্যাতনে শিক্ষার্থী অজ্ঞান!
ট্রাম্পের গোপন বিষয়ে ‘বোমা’ ফাটালেন স্টর্মি
সুন্দরী তরুণীদের ধর্ষণ ও হত্যা করাই তার কাজ
নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতাল থেকে ৯ দালাল আটক
রোববার চালু হচ্ছে সিম্ফোনির কারখানা 
এক অবিশ্বাস্য জয় এনে দিলেন মোস্তাফিজ
যেসব নারীকে বিবাহ করা হারাম
সন্তান জন্ম দিয়ে বিপাকে প্রবাসীর স্ত্রী
নির্বাচনে দাঁড়াচ্ছেন সেই খুনি শম্ভুলাল(ভিডিও)
ইরানে সামরিক কুচকাওয়াজে হামলায় নিহত বেড়ে ২৪
মেয়ে অসুস্থ দেশে ফিরছেন শাকিব
‘নারীর লজ্জাস্থানে মাদকের কারবার’
নওগাঁয় প্রতারক চক্রের ৪ যুবতী ও তাদের সহযোগী আটক

সব খবর