২১ সেপ্টেম্বর ,শুক্রবার, ২০১৮

শিরোনাম

> অন্যান্য >>

>> ধর্ম-জীবন

 

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

১৪ সেপ্টেম্বর ,শুক্রবার, ২০১৮ ১৪:০২:৩১

৩০ দেশ পাড়ি দিয়ে হেঁটে হজে গিয়েছিলেন মহিউদ্দিন


৩০ দেশ পাড়ি দিয়ে হেঁটে হজে গিয়েছিলেন মহিউদ্দিন

সাবেক ইমাম হাজী মো. মহিউদ্দিন


দিনাজপুর রামসাগর জাতীয় উদ্যানে ঢুকে পশ্চিমের রাস্তা ধরে কিছুদুর যেতেই চোখে পড়বে পাষাণ বাঁধা ঘাট আর পশ্চিম দিকে দেখা যাবে একটি মসজিদ। সেখানেই দেখা মিলবে এক বৃদ্ধ মানুষের, যিনি রামসাগরে আগত সকল পর্যটককে আহ্বান জানাচ্ছেন দীঘিপাড়া হাফেজিয়া ক্বারিয়ানা মাদ্রাসা ও এতিমখানায় দান করার জন্য।

এই মানুষটিই বাংলাদেশ থেকে হেঁটে সৌদি আরব গিয়ে পবিত্র হজ পালন করেছেন। তিনি হলেন দিনাজপুর সদর উপজেলার রামসাগর দিঘীপাড়া গ্রামের মৃত ইজার পণ্ডিত ও মমিরন নেছার ছেলে এবং জাতীয় উদ্যানের বায়তুল আকসা জামে মসজিদের সাবেক ইমাম হাজী মো. মহিউদ্দিন।

পায়ে হেঁটে হজ করতে যেতে তার সময় লেগেছিলো ১৮ মাস। এ ১৮ মাসে তিনি পাড়ি দিয়েছেন কয়েক হাজার কিলোমিটার পথ। এ সময় তিনি সফর করেছেন ৩০টি দেশ। আর যে দেশগুলো তিনি সফর করেছেন সেগুলোর নাম এখনও মুখস্থ বলতে পারেন।

১৯১৩ সালে জন্ম নেওয়া এই অদম্য মানুষটির বয়স এখন ১০৫ বছর। হাজী মহিউদ্দিন দীর্ঘদিন রামসাগরে অবস্থিত বায়তুল আকসা মসজিদের ইমাম ছিলেন।

সম্প্রতি দেশের শীর্ষস্থানীয় এক অনলাইন সংবাদ মাধ্যমের সাথে কথা হয় হাজী মো. মহিউদ্দিনের। পায়ে হেঁটে হজ পালন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ১৯৬৮ সালে হজ করার উদ্দেশ্যে পায়ে হেঁটে দিনাজপুর থেকে রওনা দেন৷ দিনাজপুর থেকে রংপুর হয়ে প্রথমে ঢাকার কাকরাইল মসজিদে যান।

সেখানে গিয়ে পায়ে হেঁটে হজ পালনের ইচ্ছে প্রকাশ করলে, তৎকালীন কাকরাইল মসজিদের ইমাম মাওলানা আলী আকবর হেঁটে যেতে ইচ্ছুক অন্য ১১ জন হাজীর সঙ্গে তাকে পরিচয় করিয়ে দেন। 

শুরু হয় ১২ জনের হজযাত্রা। চট্টগ্রাম দিয়ে ভারত হয়ে পাকিস্তানের করাচি মক্কি মসজিদে গিয়ে অবস্থান করে সৌদি আরবের ভিসার জন্য আবেদন করেন।৮ দিন পর সৌদি ভিসা পান। পাসপোর্ট ও ভিসা করতে খরচ হয় ১২শ টাকা।

ভিসা পেয়ে পাকিস্তানের নোকঠি সীমান্ত পাড়ি দিয়ে ইরানের রাজধানী তেহরানে যান। এরপর ইরাকের রাধানী বাগদাদ ও কারবালা দিয়ে মিশর পৌঁছান। সেখানকার পিরামিডে ফেরাউনের মমি দেখার ইচ্ছেও পূরণ হয় মহিউদ্দিনের।

অবশেষে সৌদি আরবে হজ পালন করেন তিনি।হজ শেষে আল্লাহর রাস্তার ধুলো পায়ে লাগিয়ে হেঁটে হেঁটেই ফিরে আসেন নিজ পরিবারের কাছে। এ সময় তিনি ৩০টি দেশ পাড়ি দেন।

এমন কষ্ট করে হজ পালন প্রসঙ্গে তার অনুভূতি জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘পৃথিবীর সবচেয়ে পবিত্র স্থান থেকে ঘুরে আসার অনুভূতি বলে প্রকাশ করা যাবে না। নিজেকে ধন্য মনে করি।হজ যাত্রায় কোনো কষ্ট করেছি বলে মনে হয় না।’

উল্টো তিনি বলেন, ‘কষ্ট করেছেন আমার সহধর্মিনী আবেদা বেগম। অভাব অনটনের মধ্যে আমার ইচ্ছের প্রতি গুরুত্ব দিয়ে আমাকে উৎসাহিত করেছেন।’ স্ত্রীকে নিয়ে তিনি বেশ ভালো আছেন বলেও মন্তব্য করেন।

হাজী মহিউদ্দিন বলেন, ‘আমার ৪ মেয়ে ও ২ ছেলে, সবার বিয়ে হয়ে গেছে।এখন অভাব বলে কিছু নেই।সবাই সুখে-শান্তিতে আছে।

হাজী মো. মহিউদ্দিন বয়সের কারণে মসজিদের ইমামতি ছেড়ে দিয়েছেন। মেয়েদের সহযোগিতায় বেশ চলে যায় তার সংসার। সময় কাটে রামসাগর দীঘিপাড়া হাফেজিয়া ক্বারিয়ানা মাদ্রাসা ও এতিমখানার জন্য মানুষের কাছে সহায়তা চেয়ে।

হজ পালন করতে সে সময় কত টাকা খরচ হয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, পাসপোর্ট ও ভিসা করতে খরচ হয় ১২শ টাকা আর ১৮শ টাকা নিয়ে বাড়ি থেকে রওয়ানা দেন। কিন্তু পথে ১২ জন হাজির দল দেখে যেখানেই খেতে গেছেন, কেউ টাকা নেননি। ফিরে আসার সময়ও একই অবস্থা। এ কারণে কোনো টাকা খরচ হয়নি। পুরো টাকাই তার ফেরত এসেছিল।

বয়সের ভারে মুড়িয়ে যাওয়া হাজী মো. মহিউদ্দিনের দৃষ্টিশক্তি ও শ্রবণ শক্তি কিছুটা কমে গেছে। লাঠি ছাড়া ঠিকমত হাঁটতে পারেন না আর। কিন্তু সে সময়ের কোনো স্মৃতিই তিনি ভুলে যাননি। কেউ জিজ্ঞাসা করতেই মুখ থেকে ঝরতে থাকে কথার ফুলঝুরি। সকলের কাছে বলতে চান সেসব দিনের কথা। সর্বোপরি তিনি সবাইকে একবার হলেও আল্লাহর ঘর তাওয়াফ করার আহ্বান জানান।


অরিন▐ NEWS24


রাতে ফেসবুক বন্ধ চান রওশন এরশাদ
বাম গণতান্ত্রিক জোটের ৩ নেতা আটক
বরগুনা থেকে ৪ পেট্রোল বোমা উদ্ধার
মোদীকে ইমরানের চিঠি
দেশে ইন্টারনেট গ্রাহক সংখ্যা ৯ কোটি ছাড়ালো
রশিদের ঝড়ে আফগানরা ২৫৫
প্রধান শিক্ষকের নির্যাতনে শিক্ষার্থী অজ্ঞান!
শিক্ষক হলেন হাছান মাহমুদ, পড়াবেন জাহাঙ্গীরনগরে
জাল নোট ও টাকা তৈরির সরঞ্জামসহ প্রতারক আটক
নদীতে ডুবে নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু
কুমিল্লায় দুই ব্যক্তির অস্বাভাবিক মৃত্যু
প্রেম প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায়.... 
'বিচার বিভাগকে সরকার নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে'
অসহনীয় লোড শেডিংয়ে অতিষ্ঠ রাঙামাটিবাসী
টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্তে আফগানরা
যমুনার পেটে টাঙ্গাইলের শতাধিক ঘর-বাড়ি
কারাগারে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে যুবকের মৃত্য
রোববার চালু হচ্ছে সিম্ফোনির কারখানা 
অক্টোবরে আসছে গুগলের স্মার্ট ডিসপ্লে
খুলনায় কিশোরের লাশ নদীতে
রাতে ফেসবুক বন্ধ চান রওশন এরশাদ
বাম গণতান্ত্রিক জোটের ৩ নেতা আটক
বরগুনা থেকে ৪ পেট্রোল বোমা উদ্ধার
মোদীকে ইমরানের চিঠি
বাড়ছে গ্যাসের দাম!
যেভাবে রান্না করবেন সুস্বাদু ইলিশ কোরমা
দেশে ইন্টারনেট গ্রাহক সংখ্যা ৯ কোটি ছাড়ালো
রশিদের ঝড়ে আফগানরা ২৫৫
'তাৎক্ষণিক তিন তালাক শাস্তিযোগ্য অপরাধ'
প্রধান শিক্ষকের নির্যাতনে শিক্ষার্থী অজ্ঞান!
সিংড়ায় হাজার হাজার শিক্ষার্থীদের শপথ
শিক্ষক হলেন হাছান মাহমুদ, পড়াবেন জাহাঙ্গীরনগরে
জাল নোট ও টাকা তৈরির সরঞ্জামসহ প্রতারক আটক
চাঁপাইনবাবগঞ্জে নদীতে ডুবে রাজমিস্ত্রির মৃত্যু
নদীতে ডুবে নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু
কুমিল্লায় দুই ব্যক্তির অস্বাভাবিক মৃত্যু
প্রেম প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায়.... 
'বিচার বিভাগকে সরকার নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে'
অসহনীয় লোড শেডিংয়ে অতিষ্ঠ রাঙামাটিবাসী
টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্তে আফগানরা
রাষ্ট্রপতির হাতে পুরস্কার পাওয়া ছাত্রীকে গণধর্ষণ!
জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের স্টিকারযুক্ত মাইক্রোবাসে ৪ মণ গাাঁজা
ওমানের সালাম এয়ারকে শাহজালাল বিমানবন্দরে জরিমানা
নয় বছরের শিশুকে ধর্ষণ করল বাবা!
বসুন্ধরা নিয়ে এল স্বাস্থ্য সহনীয় মশার কয়েল 'এক্সট্রিম'
দেহ ব্যবসা করতো র‌্যাম্প মডেল কান্তা
পোশাক নিয়ে সমালোচনার মুখে জাহ্নবী কাপুর
কাবা শরীফের ভেতরে ঢুকলেন ইমরান খান(ভিডিও)
৩০ দেশ পাড়ি দিয়ে হেঁটে হজে গিয়েছিলেন মহিউদ্দিন
আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে টাইগারদের সম্ভাব্য একাদশ
আ.লীগ-বিএনপির ৪০০ নেতার শপথ
এখন ‌‘বয়ফ্রেন্ড’ জুটবে অ্যাপের মাধ্যমে
‘মন্ত্রীর পা ধরেও সড়কের কাজ শুরু করা যায় নি’
অরুণা বিশ্বাসের এ কী হাল!
জাম্বুরি পার্কে ১ ঘণ্টা হাঁটলেন গণপূর্তমন্ত্রী!
কুড়িগ্রামে কিশোর-কিশোরীর লাশ উদ্ধার
ইয়াবা সেবনে বাধা দেয়ায় মাকে হত্যা!
ওমরাহ ভিসায় সৌদি ভ্রমণে বিশেষ ছাড়
ব্রিজের রেলিং ভেঙে হাতিরঝিল লেকে প্রাইভেটকার
সুন্দরী তরুণীদের ধর্ষণ ও হত্যা করাই তার কাজ

সব খবর