২৩ অক্টোবর ,মঙ্গলবার, ২০১৮

শিরোনাম

> বাংলাদেশ

>> জাতীয়

 

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

৮ অক্টোবর ,সোমবার, ২০১৮ ২০:৫৭:১৩

ডিজিটাল নিরাপত্তা বিলে রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষর


ডিজিটাল নিরাপত্তা বিলে রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষর

ডিজিটাল নিরাপত্তা বিল।


জাতীয় সংসদে পাস হওয়া ডিজিটাল নিরাপত্তা বিলে স্বাক্ষর করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। সোমবার বহু আলোচিত ওই বিলে স্বাক্ষর করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন।

রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষরের পর কোনো বিল আইন হিসেবে গণ্য হয়। এখন এটি গেজেট আকারে প্রকাশ করবে সরকার।

এর আগে গত বুধবার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনসংক্রান্ত নথি বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির দপ্তরে পাঠানো হয়।

এর আগের দিন মঙ্গলবার এ বিলসংক্রান্ত নথিতে স্বাক্ষর করেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

বিভিন্ন পক্ষের আপত্তি, উদ্বেগ ও মতামত উপেক্ষা করে গত ২৬ সেপ্টেম্বর সংসদে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পাস করা হয়।

আইনটি পাস হওয়ার প্রতিবাদে সম্পাদকেরা মানববন্ধন করার ঘোষণা দেন। এরপর তাঁদের সঙ্গে বৈঠকও করেন আইন, তথ্য এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী। সেখানে গণমাধ্যমের আপত্তিতে থাকা ধারাগুলো আলাপ–আলোচনার মাধ্যমে সমাধানের আশ্বাস দেওয়া হয়।

৩ অক্টোবর গণভবনে সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, অপরাধী মন না হলে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে উদ্বেগের কারণ নেই।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে বলা হয়েছে, আইনটি কার্যকর হলে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারা বাতিল হবে। তবে এই আইনটিতেই বিতর্কিত ৫৭ ধারার বিষয়গুলো চারটি ধারায় ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রাখা হয়েছে। এ ছাড়া পুলিশকে পরোয়ানা ও কারও অনুমোদন ছাড়াই তল্লাশি ও গ্রেপ্তারের ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে। এই আইনে ঢোকানো হয়েছে ঔপনিবেশিক আমলের সমালোচিত আইন ‘অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্ট’। আইনের ১৪টি ধারার অপরাধ হবে অজামিনযোগ্য। বিশ্বের যেকোনো জায়গায় বসে বাংলাদেশের কোনো নাগরিক এই আইন লঙ্ঘন হয়, এমন অপরাধ করলে তাঁর বিরুদ্ধে এই আইনে বিচার করা যাবে।

এই আইনের অধীনে সংগঠিত অপরাধ বিচার হবে ট্রাইব্যুনালে। অভিযোগ গঠনের ১৮০ কার্যদিবসের মধ্যে মামলা নিষ্পত্তি করতে হবে। এ সময়ে সম্ভব না হলে সর্বোচ্চ ৯০ কার্যদিবস সময় বাড়ানো যাবে।

আইনে বলা হয়েছে, তথ্য অধিকারসংক্রান্ত বিষয়ের ক্ষেত্রে তথ্য অধিকার আইন, ২০০৯-এর বিধানাবলি কার্যকর থাকবে।

আইনে ডিজিটাল মাধ্যমে আক্রমণাত্মক, মিথ্যা বা ভীতি প্রদর্শক তথ্য-উপাত্ত প্রকাশ; মানহানিকর তথ্য প্রকাশ; ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত; আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটানো, অনুমতি ছাড়া ব্যক্তি তথ্য সংগ্রহ ও ব্যবহার ইত্যাদি বিষয়ে অপরাধে জেল জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে। বিরোধী দলের কয়েকজন সদস্যও আইনের বেশ কিছু ধারা নিয়ে আপত্তি তোলেন। তবে সেসব আপত্তি টেকেনি।

ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তফা জব্বার বিলটি পাসের জন্য সংসদে তোলেন। বিরোধী দল জাতীয় পার্টির ১১ জন ও স্বতন্ত্র একজন সাংসদ বিলটি নিয়ে জনমত যাচাই ও আরও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার প্রস্তাব দেন। তবে এর মধ্যে তিনজন সাংসদ উপস্থিত ছিলেন না। আর জাতীয় পার্টির কাজী ফিরোজ রশীদ তাঁর প্রস্তাব প্রত্যাহার করে নেন।

বিতর্কিত ৫৭ ধারার বিষয়গুলো এ আইনেও চারটি ধারায় ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রাখা হয়েছে। আইনের ১৪টি ধারার অপরাধ হবে অজামিনযোগ্য। বিশ্বের যেকোনো জায়গা থেকে কোনো বাংলাদেশি এই আইন লঙ্ঘন করলে তাঁর বিচার করা যাবে।

গত ২৯ জানুয়ারি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের খসড়া অনুমোদন করেছিল মন্ত্রিসভা। তখন থেকে এই আইনের বেশ কয়েকটি ধারা নিয়ে সাংবাদিকসহ বিভিন্ন পক্ষ আপত্তি জানিয়ে আসছে। সম্পাদক পরিষদ এই আইনের ৮টি (৮, ২১, ২৫, ২৮, ২৯, ৩১, ৩২ ও ৪৩) ধারা নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে আপত্তি জানিয়েছিল। সম্পাদক পরিষদ মনে করে, এসব ধারা বাক্‌স্বাধীনতা ও স্বাধীন সাংবাদিকতার পথে বাধা হতে পারে। এ ছাড়া ১০টি পশ্চিমা দেশ ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের কূটনীতিকেরা এই আইনের ৪টি ধারা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিল। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) ৯টি ধারা পুনর্বিবেচনার আহ্বান জানিয়েছিল।

আপত্তির মুখে সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, সংসদীয় কমিটির মাধ্যমে আইনে প্রয়োজনীয় সংশোধনী আনা হবে। এই প্রেক্ষাপটে গত ৯ এপ্রিল বিলটি পরীক্ষার জন্য সংসদীয় কমিটিতে পাঠায় সংসদ। সাংবাদিকদের তিনটি সংগঠন সম্পাদক পরিষদ, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) এবং অ্যাসোসিয়েশন অব টেলিভিশন চ্যানেল ওনার্সের প্রতিনিধিদের সঙ্গেও বিলটি নিয়ে দুই দফা বৈঠক করে সংসদীয় কমিটি। প্রয়োজনীয় সংশোধনী আনার আশ্বাসও দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আইনে বড় কোনো পরিবর্তন আনা হয়নি। যে ধারাগুলো নিয়ে বিভিন্ন পক্ষের আপত্তি ছিল, তার কয়েকটিতে কিছু জায়গায় ব্যাখ্যা স্পষ্ট করা, সাজার মেয়াদ কমানো এবং শব্দ ও ভাষাগত কিছু সংশোধনী আনা হয়েছে।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)


মইনুলের গ্রেপ্তার উদ্বেগজনক: ড. কামাল
গিয়ারে সমস্যা, কাতারের বিমান শাহজালালে 
খাসোগির ছেলেকে সালমানের সান্ত্বনা!
ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন গ্রেপ্তার
দেনার টাকা না দিতে পারায় ২ বোনকে ধর্ষণ!
চুক্তি বাতিল নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে রাশিয়ার হুঁশিয়ারি
এস-৩০০-এর ভয়ে সিরিয়ায় যায় না ইসরাইল
‘পার্বত্যাঞ্চলকে আলাদা রাষ্ট্র করার স্বপ্ন পূরণ হবে না’
খাসোগির দেহের টুকরো সৌদি যায় যেভাবে
পুলিশে চাকরি পেতে কুমারীত্বে'র পরীক্ষা!
‘খুনি মোশতাক ও জামায়াতের সঙ্গে ছিলেন মইনুল’
রাঙামাটিতে কাঠভর্তি ট্রাকসহ আটক ২
যৌতুক দাবি, বরের মাথা ন্যাড়া করল গ্রামবাসী!
বাড়ির উঠানে দুমাথা ওয়ালা সাপ!
রাজধানীতে নামছে সাড়ে চার হাজার বাস: সাঈদ খোকন
ডাকাতির প্রস্তুতিকালে তিন ডাকাত গ্রেপ্তার
ফের ভোল পাল্টাল সৌদি
বিআরটিএ ভবনে আগুন
প্রধানমন্ত্রীর কাছে শাহারিয়ার কবিরের দাবি
ওয়াসার ট্যাংকে নেমে  ২ শ্রমিকের মৃত্যু
মইনুলের গ্রেপ্তার উদ্বেগজনক: ড. কামাল
গিয়ারে সমস্যা, কাতারের বিমান শাহজালালে 
খাসোগির ছেলেকে সালমানের সান্ত্বনা!
ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন গ্রেপ্তার
দেনার টাকা না দিতে পারায় ২ বোনকে ধর্ষণ!
চুক্তি বাতিল নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে রাশিয়ার হুঁশিয়ারি
এস-৩০০-এর ভয়ে সিরিয়ায় যায় না ইসরাইল
‘পার্বত্যাঞ্চলকে আলাদা রাষ্ট্র করার স্বপ্ন পূরণ হবে না’
খাসোগির দেহের টুকরো সৌদি যায় যেভাবে
পুলিশে চাকরি পেতে কুমারীত্বে'র পরীক্ষা!
‘খুনি মোশতাক ও জামায়াতের সঙ্গে ছিলেন মইনুল’
রাঙামাটিতে কাঠভর্তি ট্রাকসহ আটক ২
যৌতুক দাবি, বরের মাথা ন্যাড়া করল গ্রামবাসী!
বাড়ির উঠানে দুমাথা ওয়ালা সাপ!
রাজধানীতে নামছে সাড়ে চার হাজার বাস: সাঈদ খোকন
ডাকাতির প্রস্তুতিকালে তিন ডাকাত গ্রেপ্তার
ফের ভোল পাল্টাল সৌদি
বিআরটিএ ভবনে আগুন
প্রধানমন্ত্রীর কাছে শাহারিয়ার কবিরের দাবি
ওয়াসার ট্যাংকে নেমে  ২ শ্রমিকের মৃত্যু
ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়লেই পরমানু হামলা, পুতিনের হুঁশিয়ারি
সালমান ইন, সালমান আউট!
সৌদির হুমকিতে ‘ভয় পেয়ে’ যা বললেন ট্রাম্প
বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘতম সমুদ্র সেতু
অবশেষে খাসোগি হত্যার কথা স্বীকার সৌদির
মাসুদা ভাট্টি ভীষণরকম চরিত্রহীন: তসলিমা নাসরিন
প্লেনের দুই যাত্রীর পেটে ইয়াবার পোটলা!
টেলিভিশনে খবর পড়লেন চঞ্চল-জয়া
ফেরি থেকে নদীতে পড়ে গেল শিশু, অতঃপর...
যৌন মিলনের যত উপকারিতা
১৩ বছরের কিশোরী গণধর্ষণের শিকার
এবার সৌদিতে কাতারের ৪ নাগরিক নিখোঁজ
বিমানবাহিনীর প্রশিক্ষণ জেট বিধ্বস্ত, সব ক্রু নিহত
মহানবী (স.) এর রওজা জিয়ারত করেছেন প্রধানমন্ত্রী
‘শীঘ্রই চীন-রাশিয়ার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধ’
খাসোগির দেহের টুকরো সৌদি যায় যেভাবে
‘গার্ডিয়ান নটে’ ব্যবহার হচ্ছে ড্রোন
যৌতুক দাবি, বরের মাথা ন্যাড়া করল গ্রামবাসী!
'শেখেরচরে শেষ হলে মাধবদিতে অভিযান শুরু'
বিনিয়োগ বাড়াতে সৌদির প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান

সব খবর