২১ নভেম্বর , বুধবার, ২০১৮

শিরোনাম

> প্রবাস

 

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

১৯ নভেম্বর ,রবিবার, ২০১৭ ১২:৪৯:২৬

মধ্যপ্রাচ্যে যেমন আছেন প্রবাসী নারী শ্রমিকরা

গোসল করিয়ে আমাকে পাতলা ফিনফিনে কাপড় পরতে দেয়


গোসল করিয়ে আমাকে পাতলা ফিনফিনে কাপড় পরতে দেয়

প্রতীকী ছবি


''রাতে গোসল করিয়ে আমারে পাতলা ফিনফিনে কাপড় পরতে দেয়। আমি পাতলা কাপড় পরতে না চাইলে মারধর শুরু করে। এরপর আমার ঘরে প্রথমে আসে ছেলে, পরে আসে বাপ। তারপর আমারে...।'' এভাবেই সৌদি আরবে থাকাকালীন নির্যাতনের ঘটনাগুলো বর্ণনা করছিলেন সেখান থেকে ফেরত আসা নারী শ্রমিক ময়না বেগম।

একটু ভালো থাকায় আসায়, পরিবারের মুখে হাসি ফোটাতে বাংলাদেশ থেকে পরিবার-পরিজন ছেড়ে বিদেশে পাড়ি জমায় লাখো মানুষ। এর মধ্যে একটি বড় সংখ্যক মানুষই নারী। আর মধ্যপ্রাচ্যেই এসব নারী শ্রমিকের চাহিদা সবচেয়ে বেশি। কিন্তু কেন সেখানে এত নারী শ্রমিকের চাহিদা? কেমন আছেন সেখানে আমাদের মা-বোনেরা? এর জবাব দিয়েছেন সেখান থেকে ফিরে আসা বেশ কয়েকজন নারী। শুনে হতভম্ব হয়ে গেছেন উপস্থিত সকলে।

তাদের বর্ণনায় উঠে এসেছে নারী শ্রমিকদের ওপর ভয়াবহ যৌন ও শারীরিক নির্যাতনের চিত্র। আর সেই নির্যাতনে শামিল হন একই পরিবারের একাধিক সদস্য। কখনো দুই ভাই, কখনো বাবা-ছেলে। এছাড়া বাংলাদেশ থেকে বিভিন্ন হাসপাতাল, শপিং মল, রেস্ট্যুরেন্টে চাকরি দেওয়ার কথা বলে নারীদের  মধ্যপ্রাচ্যে পাঠানো হলেও অধিকাংশ নারীর জায়গা হয় বিভিন্ন পরিবারে গৃহপরিচারিকার কাজে। আর সেখানে অনেকটা যৌনদাসী হয়ে পার করতে হয় দিন। প্রতিবাদ করলে নেমে আসে অকথ্য নির্যাতন। দেশে ফিরতে চাইলেও অনেক সময় সে সুযোগ মেলে না।

সৌদি আরব, জর্ডান, লেবানন বা মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশ থেকে কাজের জন্য যাওয়া নারীরা কেমন আছেন— এই বিষয়ে গতকাল ঢাকায় আয়োজিত এক গণশুনানিতে ফিরে আসা নারী শ্রমিকরা যৌন নির্যাতনসহ বিভিন্ন নির্যাতনের ভয়াবহ বর্ণনা দেন। গণশুনানিতে নারী শ্রমিকদের কথা শোনেন বাংলাদেশের কয়েকজন সাবেক বিচারপতি, মানবাধিকার কর্মী, অভিবাসন বিশেষজ্ঞ ও শ্রমিকনেতারা।

বাংলাদেশে একটি হাসপাতালে ১২০০ টাকা বেতনে কাজ করতেন ময়না বেগম। হাসপাতালে চাকরির কথা বলে সৌদি আরবে ভালো বেতনে কাজের জন্য পাঠানো হয় তাকে।

কিন্তু সেখানে গিয়ে তাকে একটি বাড়িতে কাজের জন্য নেওয়া হয় এবং শিকার হতে হয় যৌন নির্যাতনের। ‘প্রথমে আমাকে বিমানবন্দর থেকে গাড়িতে নিতে আসেন দুই পুরুষ। দেখে ভয় পাই। পরে ওই বাড়িতে ঢুকে যখন এক মহিলা দেখি তখন মনে সাহস আসে। কিন্তু রাতে গোসল করিয়ে আমারে পাতলা ফিনফিনে কাপড় পরতে দেয়। আমি পাতলা কাপড় পরতে না চাইলে মারধর শুরু করে। এরপর আমার ঘরে প্রথমে আসে ছেলে, পরে আসে বাপ। তারপর আমারে জড়ায়ে ধরে নির্যাতন করে। বাধা দিতে গেলে আমারে মাইরা-ধইরা, কামড়াইয়া-ছিমড়াইয়া কিছু রাখে নাই। ’ গতকাল ঢাকায় ওই গণশুনানিতে নিজের ওপর সৌদি আরবে ঘটে যাওয়া নির্যাতনের কথাগুলো এভাবেই বলছিলেন ময়না বেগম।

লাল কাপড় দিয়ে নিজের মুখ ঢেকে মঞ্চে দাঁড়িয়ে কাঁদতে কাঁদতে বলছিলেন তিনি, ‘নয় মাস এমন নির্যাতনের ফলে আমার প্রজনন অঙ্গে যে ক্ষত তৈরি হয়েছে তাতে এখনো চিকিৎসার মধ্য দিয়ে যেতে হচ্ছে। আমার স্বামী নাই। স্বামী থাকলে আমারে ঘরে উঠাইত না। অনেক কষ্টে ছেলেরে নিয়া আছি।’ 

এ অনুষ্ঠানে দ্বিপক্ষীয় চুক্তি ছাড়া নারী শ্রমিক পাঠানোর বিষয়ে বিরোধিতা জানিয়েছেন শ্রমিকনেতা, মানবাধিকার কর্মী ও অভিবাসন বিশেষজ্ঞরা। সেখানে অভিবাসী নারী শ্রমিকদের ওপর বিদেশে নির্যাতনের বিষয়ে সরকারের আরও জোরালো পদক্ষেপের দাবি উঠে আসে।

অভিবাসী বা পাচার হয়ে যাওয়া নারীদের আইনি সহায়তা প্রদানকারী সংগঠন বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতির প্রধান সালমা আলী বলেন, ‘মধ্যপ্রাচ্যে অভিবাসী নারী শ্রমিকদের মধ্যে ৯৯ শতাংশই শারীরিক-মানসিক সব ধরনের নির্যাতনের শিকার। অনেক শ্রমিক সেখানে নির্যাতনের মুখে মৃত্যুবরণ করতে বাধ্য হচ্ছেন। ’

গণশুনানিতে প্রদান করা তথ্যানুসারে, ১৯৯১ সাল থেকে চলতি বছরের অক্টোবর পর্যন্ত ৬ লাখ ৭৪ হাজার নারী শ্রমিক বিভিন্ন দেশে গেছেন।


ব্যাংকের কাছে তথ্য চাইতে পারবে মন্ত্রণালয়!
আফগানিস্তানে ঈদ-ই-মিলাদুন্নবীর জমায়েতে বোমা হামলা, নিহত ৪০
শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে লড়তে হবে: ফখরুল
কারামুক্ত হলেন আলোকচিত্রী শহিদুল আলম
জাসদের ২২৪ প্রার্থীর তালিকা ঘোষণা
বিএনপির নেতা রফিকুল ইসলাম গ্রেপ্তার
ইসি সচিব ও ডিএমপি কমিশনারসহ চারজনের শাস্তি দাবিতে চিঠি
র‍্যাংকিংয়ে উন্নতি মুশফিক-মিরাজদের
'সব সিদ্ধান্ত আমার ওপর ছেড়ে দাও'
'পরকীয়ার আগুনে' পুড়ে হাসপাতালে স্বামী-স্ত্রী
শরিকদের ৬৫-৭০টি আসন দেওয়া হবে: কাদের
দলীয় মনোনয়ন পাচ্ছেন না বদি ও রানা
পোস্টারে খালেদার ছবি রাখায় ‘বাধা নেই’
রফিকুল ইসলাম মিয়ার ৩ বছরের কারাদণ্ড, গ্রেপ্তারি পরোয়ানা
নরসিংদীতে বাস-মোটরসাইকেল সংঘর্ষ, নিহত ২
চাঁপাইনবাবগঞ্জে জামায়াত কর্মী সন্দেহে ১২ নারী আটক
জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎ আজ
বিএনপি শরিকদের ৩৫-৪০ আসন দিতে চায়! 
'নির্বাচনে পর্যবেক্ষরা গণমাধ্যমকে প্রতিক্রিয়া জানাতে পারবেন না'
'পাকিস্তানকে বলির পাঁঠা বানাতে চাইছেন ট্রাম্প'
ঘরেই তৈরি করুন ইলিশ কোরমা
ব্যাংকের কাছে তথ্য চাইতে পারবে মন্ত্রণালয়!
আফগানিস্তানে ঈদ-ই-মিলাদুন্নবীর জমায়েতে বোমা হামলা, নিহত ৪০
শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে লড়তে হবে: ফখরুল
কারামুক্ত হলেন আলোকচিত্রী শহিদুল আলম
জাসদের ২২৪ প্রার্থীর তালিকা ঘোষণা
বিএনপির নেতা রফিকুল ইসলাম গ্রেপ্তার
খুলেছে স্কাইপে
ইসি সচিব ও ডিএমপি কমিশনারসহ চারজনের শাস্তি দাবিতে চিঠি
নৌকা পেলেন কাজী জাফরউল্লাহ্
র‍্যাংকিংয়ে উন্নতি মুশফিক-মিরাজদের
'সব সিদ্ধান্ত আমার ওপর ছেড়ে দাও'
নাটোরে বাবা-মেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বী
মাদারীপুরে বিলবোর্ড, ব্যানার ও পোস্টার অপসারণ শুরু
'পরকীয়ার আগুনে' পুড়ে হাসপাতালে স্বামী-স্ত্রী
খুলনায় অর্ধশতাধিক কচ্ছপসহ দুই পাচারকারী আটক
রাঙামাটিতে তক্ষক পাচারের অভিযোগে আটক ২
চাঁদাবাজির অভিযোগে ইউপিডিএফ কর্মী আটক
শরিকদের ৬৫-৭০টি আসন দেওয়া হবে: কাদের
দলীয় মনোনয়ন পাচ্ছেন না বদি ও রানা
'পুলিশ রাষ্ট্রের কর্মচারী, প্রতিপক্ষ ভাববেন না'
সোহাগ গ্রেপ্তার
নাইম হত্যা: ছাত্রলীগ নেতাসহ আটক ৫, বিক্ষোভ
নৌকা প্রতীক নিয়ে লড়বে যুক্তফ্রন্ট
ইসলাম গ্রহণকারী ভারতীয় সেই নারী খুন
আইপিএলে লিটন দাসকে কিনতে প্রতিযোগিতা !
দ্বিতীয় বিয়েতে দীপিকা-রণবীর
খাসোগি ইস্যুতে ‘ফেঁসেই গেল’ সৌদি আরব
মনোনয়নপত্র কিনলেন বাবরের স্ত্রী শ্রাবণী
মির্জা ফখরুলকে ক্ষমা চাইতে আল্টিমেটাম
নির্বাচন করবেন ইলিয়াসপুত্র ‘অর্ণব’
‘বিনা উসকানিতে’ এটা করল বিএনপি: কাদের
চট্টগ্রামের ডিআইজি প্রিজন ও সিনিয়র জেল সুপারকে বদলি
আ.লীগের চেয়ে বেশি আয় বিএনপির!
‘আমাদের নির্বাচনে যাওয়ার দরকার নেই’
ফকিরাপুল-কাকরাইল বিএনপির দখলে
নোয়াখালীতে ডোবা থেকে কলেজছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার
নির্বাচনে আসলে দোষ কী: হিরো আলম
প্রিয়াংকার হবু বর ডায়াবেটিসে ভুগছেন!
মোবাইলে প্রেম: ষষ্ঠ শ্রেণির দুই ছাত্রীকে ধর্ষণ!

সব খবর