২২ মে ,মঙ্গলবার, ২০১৮

শিরোনাম

> অফবিট

 

সাহিদ রহমান অরিন

১১ মার্চ ,রবিবার, ২০১৮ ১৯:৪৫:০২

লাদেনের মরদেহ সমুদ্রে ফেলার রহস্য


লাদেনের মরদেহ সমুদ্রে ফেলার রহস্য


‘কখনোই ওসামা বিন লাদেনকে মৃত অবস্থায় দেখতে পাইনি। তাই আমরা এত সহজেই বিশ্বাস করতে পারি না যে তিনি মারা গেছেন।’ বছরের পর বছর এই বিষয়টি মার্কিন সরকার দ্বারা দমন করা হয়েছে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের মধ্যে এখন আবার নতুন করে প্রশ্ন  উত্থাপিত হয়েছে, ওসামার মৃতদেহ আমরা কেন দেখিনি?

♻ ২ মে ২০১১, সিল টিমের সদস্যদের দ্বারা ওসামাকে হত্যার দিন হিসেবে চিহ্নিত করে তৎকালীন বারাক ওবামা সরকার। এর মধ্য দিয়ে বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর দেশটি কলঙ্ক থেকে মুক্ত হয়। ওবামা হোয়াইট হাউস থেকে বিন লাদেনের মৃত্যুর ঘোষণা করেন। তবুও কিছু বিচিত্র তত্ত্ব সুপারিশ করে। কেউ কেউ বিশ্বাস করেন যে ওসামা এখনো জীবিত আছেন। যদি তিনি সত্যিই মারা গিয়ে থাকেন, তাহলে কেন মার্কিন সরকার তার লাশের ছবি দেখানোর জন্য বিব্রত বোধ করেছিল? যাই হোক, এই তত্ত্বের সাথে যারা সঙ্গতিপূর্ণ তাদের সংখ্যা খুবই নগণ্য। অতঃপর এই অভিযোগ উপেক্ষিত হয়েছিল।

হোয়াইট হাউস থেকে বিন লাদেনের মৃত্যুর ঘোষণা দেন তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। 

♻ যদিও কিছু তত্ত্বের মতে ওসামার মৃত্যু হয়নি, কিছু তত্ত্ব বোঝায় যে ওসামার শরীরটি জনসাধারণ ও প্রেসের কাছে প্রকাশ করা হয়নি। কারণ ছিল, তার শরীরে গুলি করে ঝাঁঝড়া করা হয়, শত শত বুলেট তার শরীরে বিদ্ধ হয়েছিল। ‘নো ইজি ডে’ বইটি এই সত্য সাক্ষী প্রদান করে। সেই সময় সবচাইতে আলোচিত একটি বই ছিল ‘নো ইজি ডে’। সাবেক নেভি সিল কমান্ডো ম্যাট বিসোননেট (এই বইয়ের জন্য মার্ক ওয়েন ছদ্মনাম ব্যবহার করেছেন) সরাসরি অংশ নিয়েছিলেন ওসামা বিন লাদেনের কিলিং মিশনে।

সিল কমান্ডো ম্যাট বিসোননেট তার বইয়ে বর্ণনা করেছেন, ‘বিন লাদেনকে গুলি করার পর মাটিতে ফেলে দেওয়া হয়েছিল। আমার সঙ্গে আরেকজন অভিযানকারী  তার লেজারগুলি বুকের ওপর রেখে দিয়েছিলাম। কয়েক রাউন্ড গুলি ছুঁড়েছিলাম।’

♻ সে সম্ভব হতে পারে। তবে অধিকাংশ লোক বিশ্বাস করে যে ওসামার মৃতদেহ গোপন করার প্রকৃত কারণটি তার দেহের ক্ষত অবস্থা। এখন পর্যন্ত এটিই সবচেয়ে বিশ্বাসযোগ্য কারণ। কিন্তু এখানে প্রশ্ন উঠে আসে যে, কেন আমেরিকার পরিষেবা প্রদানকারীদের এত কঠোর হতে হয়েছিল?

না, এই কাজ অপরাধ ও নৃশংস ছিল। এই দলের দ্বারা তা এড়ানো যেতে পারত। কিছু বিশেষজ্ঞদের একটি ভিন্ন তত্ত্ব আছে। তারা বিশ্বাস করেন, যুক্তরাষ্ট্র ও মধ্যপ্রাচ্যের মধ্যে উত্তেজনা না ছড়াতে মার্কিন সরকার তার লাশ প্রকাশ করেনি। কর্মকর্তারা বলছেন, ওসামা অতীতের ব্যাপক ধ্বংসকার্য পরিচালনা সত্ত্বেও সঠিক নিয়মে, ইসলামি কায়দায় দাফন করা যেত। কিন্তু তার দেহের ছবি প্রকাশের ফলে আবারো সংঘাত সৃষ্টি হতে পারতো। এতে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় নাগরিকের প্রাণহানি ঘটতে পারতো।

♻ আল কায়েদা সদস্যদের দ্বারা আত্মহত্যা পোশাক ব্যবহার করে বোঝা যায়, তারা কোনও বিপদ ডেকে আনেনি। তারা যাই হোক মরবেই। তাহলে তাদের গুলি করা হল কেন? এই মার্কিন বাহিনীর অপরাধমূলক প্রকৃতির বিষয়ে হাইপোথিসিসকে বৃদ্ধি করেছে।

এই তত্ত্ব শেষ করার আগে আরো প্রমাণের প্রয়োজন। মানুষ কেবল গুটি কয়েক তথ্যের ওপর নির্ভর করতে পারে না। মার্কিন বাহিনীর প্রকৃতি বিচার করা সম্ভব নয়। হয়তো পরিস্থিতি তাদেরকে ‘অপরাধী’ বলে দাবি করে। কিন্তু মার্কিন বাহিনী মনে করে ওসামারেএমন শাস্তি প্রাপ্য ছিল।

জাতিসংঘের হস্তক্ষেপ ছাড়া ক্ষমতার অপব্যবহার সম্পূর্ণ প্রত্যাশিত। তবে যে যাই বলুক, মানুষ আসলে যেসব ছবি দেখতে পায়, সেগুলোকে এখনো পর্যন্ত শুধু এক অনুমান মনে করা হয়।


সূত্র: বেয়ন্ড কলকাতা


মাদক বিরোধী অভিযান চলবে :স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
গন্তব্যের আরো কাছে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১
ক্ষমতার অপব্যবহারে দুদকের ২ কর্মকর্তা বরখাস্ত
টানা বর্ষণে রাঙামাটিতে ফের পাহাড় ধসের শঙ্কা 
রাজধানীতে বাসের চাকায় পিষ্ট ভ্যানচালকের পা
৭৫ হাজার টাকার মোবাইল ফোন পাবেন মন্ত্রী-সচিবরা
রমজানে ডায়াবেটিক রোগীর করণীয়
জাপাকে বিএনপির নির্যাতন তুলে ধরতে বললেন প্রধানমন্ত্রী
সাতক্ষীরায় যুবলীগ-শ্রমিক সংঘর্ষ: সড়ক অবরোধ
সৌদি বিমানবন্দরে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা
‌‘ইসরাইলি দখলদারিত্বের অবসান না হলে শান্তি নেই’
রোজা মাকরূহ হওয়ার কারণ
বান্দরবানে পাহাড়ের মাটিচাপায় ৫ শ্রমিক নিহত
ঘরে বসে চকোলেট আইসক্রিম বানাবেন যেভাবে
ওমরা হাজিদের বাস উল্টে বাংলাদেশিসহ নিহত ৯
রোহিঙ্গাদের দেখতে বাংলাদেশে প্রিয়াংকা
চোরদের চিনে ফেলায় শ্বাসরোধ করে হত্যা
মুরগির মাংস টাটকা না বাসি? চিনবেন যেভাবে
‘মোদির বক্তব্য প্রতারণা ছাড়া কিছু নয়’
চাঁদার দাবিতে বাবা-ছেলেকে কুপিয়েছে সন্ত্রাসীরা
মাদক বিরোধী অভিযান চলবে :স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
গন্তব্যের আরো কাছে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১
জয়পুরহাটে ইয়াবাসহ দম্পতি আটক
ত্রিপুরায় ভয়াবহ বন্যা, পানির নিচে ৩ হাজার ঘর-বাড়ি
ভারতে মাওবাদী হামলায় ৬ জওয়ান নিহত
ইফতার পার্টিতেও রাজনীতি করছে বিএনপি: ওবায়দুল কাদের
পণ্যাগার সমস্যায় বেনাপোল বন্দর: খোলা আকাশের নিচে মূল্যবান আমদানি পণ্য
যশোরে কচুর লতির বাণিজ্যিক চাষ
বগুড়ায় ৬ শতাধিক ভিক্ষুককে পুনর্বাসন
ঝিনাইদহে ট্রাক্টর চাপায় নিহত ২
স্বল্প মূল্যের ল্যাপটপ বাজারে আনলো ডেল
শেষ বিকেলে তীব্র যানজটে নাকাল নগরবাসী
দুই মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি মঙ্গলবার
মোরাতা-বেলেরিনকে বাইরে রেখে স্পেনের দল ঘোষণা
যে কারণে রমজানে বেশি বেশি দান করতেন নবীজী
সেহরি খাওয়ার সঠিক নিয়ম জেনে নিন
২ জুন থেকে রেলের অাগাম টিকিট বিক্রি শুরু
ক্ষমতার অপব্যবহারে দুদকের ২ কর্মকর্তা বরখাস্ত
টানা বর্ষণে রাঙামাটিতে ফের পাহাড় ধসের শঙ্কা 
রাজধানীতে বাসের চাকায় পিষ্ট ভ্যানচালকের পা
আমি দুধের শিশু না : হ্যাপি
স্ত্রীর সামনেই কলগার্ল ডেকে ফুর্তি করতেন খুবি শিক্ষক!
তাসপিয়া হত্যা: রহস্যের কিনারা পেয়েছে পুলিশ
আদনানই হত্যা করিয়েছে তাসপিয়াকে!
মেয়ের পোশাকে রক্ত দেখেই সন্দেহ হয় মায়ের
গুলিতে সৌদি যুবরাজ সালমান নিহত!
হাত বাড়ালেই রোহিঙ্গা যৌনকর্মী! (ভিডিও)
ফিরবেন এবার ইলিয়াস আলী?
ধর্ষণ ধর্মগুরুদের জন্য পাপ নয়: আসারাম
'দিনে ৩০ জনের সঙ্গে বিছানায় যেতে হয়!'
বৃহস্পতিবার থেকে মধ্যপ্রাচ্যে রমজান শুরু
সৌদি যুবরাজকে আবু জাহেলের সঙ্গে তুলনা
সুখী যৌন জীবন পেতে যা করবেন
লাদেনের মরদেহ সমুদ্রে ফেলার রহস্য
যে মরণব্যাধি কেড়ে নিল আনিসুল হককে
ছাত্রী নির্যাতনকারী এশাকে যেভাবে শাস্তি দেয় শিক্ষার্থীরা (ভিডিও)
যে কারণে প্রেম নেই জাপানি তরুণীদের জীবনে
যেভাবে বেরিয়ে এলো 'ভয়ঙ্কর খুনি'
১ কোটি ৭ লাখই দিতে হবে : অপু
ওষুধ ছাড়াই তাড়ান অর্শরোগ