১৮ নভেম্বর ,রবিবার, ২০১৮

শিরোনাম

> অন্যান্য >>

>> ধর্ম-জীবন

 

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

২৪ এপ্রিল ,মঙ্গলবার, ২০১৮ ২২:০৬:৫৫

‘ইসলামের মধ্যে জীবনের অর্থ খুঁজে পেয়েছি’


‘ইসলামের মধ্যে জীবনের অর্থ খুঁজে পেয়েছি’


জার্মান নও-মুসলিম নারী ‘ক্যাথেরিন হুফার’-এর মুসলমান হওয়ার কাহিনী এবং ইসলাম সম্পর্কে তার কিছু বক্তব্য তুলে ধরা হলো:

ইসলামের বিরুদ্ধে নানা প্রচারণা, ষড়যন্ত্র এবং সামরিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক পদক্ষেপ সত্ত্বেও এই ধর্মের অগ্রগতি দিনকে দিন বাড়ছে। বর্তমানে ইসলাম ইউরোপসহ পাশ্চাত্যের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্ম। ইসলামের শিক্ষাগুলোই পাশ্চাত্যেরদ মানুষকে এ ধর্মের দিকে আকৃষ্ট করছে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন। যেমন, মুসলমানদের উন্নত সামাজিক জীবন, ভ্রাতৃত্ব ও সব ধরনের বৈষম্য বা অন্যায় বিরোধী অবস্থান পশ্চিমাদেরকে এ ধর্মের দিকে আকৃষ্ট করছে। নারীর প্রতি ইসলামের সম্মানজনক স্বীকৃতি পাশ্চাত্যের শিক্ষিত নারী সমাজকেও আকৃষ্ট করছে এই মহান ধর্মের দিকে। এইসব নারী ব্যাপক গবেষণার মাধ্যমেই এ ধর্ম গ্রহণ করেছেন। তাদের কেউ কেউ গবেষণা প্রতিষ্ঠানেরই কর্মী ছিলেন।

গবেষণার মাধ্যমে ইসলামের সত্যতাকে উপলব্ধি করে এই ধর্ম গ্রহণ করেছেন এমন নারীদের মধ্যে জার্মান নারী ক্যাথেরিন হুফারও অন্যতম। এই নারী বলেছেন:

আমার জন্ম ১৯৬৮ সালে জার্মানির স্টুটগার্ট শহরে এক ক্যাথলিক পরিবারে। আমার পরিবার খ্রিস্ট ধর্মের অনুষ্ঠানগুলো পালনকে বেশ গুরুত্ব দিত। প্রতি রোববার গির্জার প্রার্থনা অনুষ্ঠানে যোগ দিত। কিন্তু আমি যখন ১৪ বছর বয়সে পা দেই তখন দেখলাম, ধর্মীয় অনুষ্ঠানগুলো পালনে আমার কোনো আগ্রহ নেই। আর ধর্ম বিষয়ে যেসব জ্ঞান অর্জন করতাম সেগুলোকে আধুনিক বা বর্তমান জীবন-যাত্রার সঙ্গে মিলাতে পারতাম না। এইসব জ্ঞান আমার কাছে বোধগম্য ছিল না। ধর্মীয় বিষয়ের প্রতি আগ্রহহীনতার কারণে কিছুকাল এক জ্যোতিষী বা গণকের কাছে যেতাম। কিন্তু সেই গণক আমার আধ্যাত্মিক চাহিদার কোনো সদুত্তর দিতে পারেনি। কয়েক বছর পর আমি একজন মুসলমানের সঙ্গে পরিচিত হই। তার চিন্তাধারা ও জীবন-যাপনের পদ্ধতি আমাকে ইসলামের দিকে আকৃষ্ট করে। ফলে এ ধর্ম সম্পর্কে জ্ঞান অর্জনের জন্য সক্রিয় হয়ে উঠি।

ইসলাম সম্পর্কে কিছুকাল পড়াশোনার পর এ ধর্মের প্রতি গভীর আকর্ষণ অনুভব করতে থাকেন জার্মান নওমুসলিম নারী ক্যাথেরিন হুফার। এ অবস্থায় তিনি হিজাব ও নামাজ সম্পর্কে গবেষণা করতে থাকেন। এসব বিষয়ে কিছুদিন গবেষণার পর মিসেস হুফার ইসলামের প্রতি ঈমান আনেন। তিনি এ প্রসঙ্গে বলেছেন:

যখন হিজাব পরলাম তখন আগের চেয়েও বেশি নিরাপত্তা অনুভব করলাম। হিজাব আমাকে ব্যক্তিত্ব ও বিশেষ মর্যাদা দান করে। কিন্তু যখন আমার মা আমাকে হিজাব-পরা অবস্থায় দেখলেন তখন তিনি অসন্তুষ্ট হলেন। এর বিরোধিতা করলেন। আমি মাকে খুব ভালোবাসতাম বলে ইসলামের গণ্ডীর মধ্যে থেকেই কিছু সময় পর্যন্ত হিজাবহীন থাকব বলে মনে মনে সিদ্ধান্ত নেই। কিন্তু আমার বিবেক আমাকে এ কাজে বাধা দিল। ফলে নিজের মধ্যেই শুরু হল দ্বন্দ্ব। প্রায় এক বছর পর হিজাব পরিহিতা দুজন জার্মান নও-মুসলিমের দেখা পেলাম। নানা সমস্যা ও বাধা সত্ত্বেও হিজাব রক্ষার ব্যাপারে তাদের বেপরোয়াভাব দেখে বিস্মিত হলাম। আমি অন্তর থেকে তাদের বেশ প্রশংসা করলাম। ফলে আমি আবারও হিজাবের মধ্যে ফিরে যাওয়ার ব্যাপারে দৃঢ়-প্রতিজ্ঞ হলাম। এ ব্যাপারে মহান আল্লাহর সাহায্য চেয়ে ও তার ওপর ভরসা করে বেশ দৃঢ়তার সঙ্গে হিজাব পরলাম। মহান আল্লাহর স্মরণ এবং তার সহায়তা আমাকে জুগিয়েছে জোরালো আত্মবিশ্বাস ও মনোবল। আমার মা যখন আমার দৃঢ়-প্রতিজ্ঞা ও অনমনীয়তার বিষয়টি দেখলেন তখন তিনি বিরোধিতা বন্ধ করে ব্যাপারটিকে মেনে নিলেন।

ইসলাম ধর্ম গ্রহণের পরের অনুভূতি প্রসঙ্গে হুফার বলেছেন:

ইসলাম ধর্ম গ্রহণের পর আগের চেয়েও বেশি প্রশান্তি অনুভব করলাম। কারণ, আমি এখন এই বিশ্ব জগতের স্রস্টার ওপর নির্ভর করছি। তার ওপর বিশ্বাস রাখছি। আমার জীবনে এখন রয়েছে স্পষ্ট লক্ষ্য। তাই ব্যক্তিগতভাবে খুবই প্রশান্তি ও আস্থা অনুভব করছি। এখন বিশ্ব জগতের স্রস্টা সম্পর্কে আমার বিশ্বাস ও জ্ঞান অনেক বেশি পরিপূর্ণ। আমি বুঝতে পেরেছি যে, জীবনের পরিপূর্ণ কল্যাণ রয়েছে ঐশী নবী-রাসূলগণের নির্দেশ মানার মধ্যেই। ইসলামকে জানতে পারায় আমি এখন জীবনের গভীর অর্থ ও লক্ষ্য খুঁজে পেয়েছি। আমার জীবন এখন বস্তুবাদীদের জীবনের মত অর্থহীন নয়। দুঃখজনকভাবে পশ্চিমাদের সমাজ জীবনের ওপর ধর্মের খুব কম প্রভাব রয়েছে। আসলে পাশ্চাত্যে ও বিশেষ করে আমেরিকায় ধর্ম তার অর্থ হারিয়ে ফেলেছে। অথচ মুসলমানরা ব্যক্তিগত ও সামাজিক দিক থেকে পশ্চিমাদের চেয়ে অনেক ভিন্ন। কারণ, তারা কুরআনের এ বাক্যটিতে বিশ্বাসী যেখানে বলা হয়েছে- প্রত্যেক মুসলমান হল ভাই ভাই। তাদের পারস্পরিক সম্পর্ক খুবই হৃদ্যতা ও আন্তরিকতাপূর্ণ। (সুরা হুজুরাত-১০) তারা একে-অপরকে দেখতে যায় এবং বন্ধু ও প্রতিবেশীদের সমস্যাগুলোর সমাধান করে।

জার্মান নওমুসলিম নারী ক্যাথেরিন হুফার ইসলাম প্রচারের পদ্ধতি ও বিশ্বের মুসলমানদের অবস্থা প্রসঙ্গে বলেছেন:

বই-পুস্তক পড়ে সত্যকে জানা যায়। কিন্তু ইসলাম প্রচারের আরেকটি পদ্ধতি হল আমল তথা বাস্তবে ধর্মের চর্চা বা অনুশীলন। কথা কখনও কাজের চেয়ে বেশি কার্যকর নয়। মুসলমানরা যেসবে বিশ্বাস করে তা যদি বাস্তবে চর্চা করে তাহলে বিশ্বের অন্যদের ওপর তার প্রভাব হবে অনেক বেশি। দুঃখজনকভাবে মুসলমানরা এখন অনেক সংকটের শিকার। পাশ্চাত্য ইসলামের গুরুত্ব বুঝতে পেরেছে। এটা জানে যে ইসলাম এগিয়ে গেলে অনেকেই এতে আকৃষ্ট হবে। তাই পাশ্চাত্য নানা কূট-কৌশলে ইসলামের অগ্রগতিকে ঠেকিয়ে রাখার চেষ্টা করছে। কিন্তু আমার বিশ্বাস, মুসলমানরা যদি একে-অপরকে সাহায্য করে এবং ঐক্যবদ্ধ থাকে তাহলে তারা শত্রুদের মোকাবেলায় বিজয়ী হবে।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)


সোহাগ গ্রেপ্তার
শুটিং করতে গিয়ে মারাত্মক আহত সাল্লু
সরকার নয়, রিজভী অদ্ভুত প্রাণী: হাছান মাহমুদ
নয়াপল্টনের ঘটনায় আব্বাস দম্পতির জামিন
'থার্টিফার্স্টে সব ধরনের উদযাপন নিষিদ্ধ'
সর্বশেষ ঘাঁটিও হারাল দায়েশ
'তারেক সাজাপ্রাপ্ত হয়েও কিভাবে কার্যক্রমে অংশ নেন'
আ.লীগের চেয়ে বেশি আয় বিএনপির!
আইপিএলে লিটন দাসকে কিনতে প্রতিযোগিতা !
নির্বাচনে নাশকতাকারীদের ছাড় না: পুলিশ সুপার
দেশ ছাড়ছেন ভেনেজুয়েলার সুন্দরীরা
মাঠে সোনালী ধান, বাড়িতে নবান্নের উৎসব
প্রিয়াংকার হবু বর ডায়াবেটিসে ভুগছেন!
টেকনাফে 'বন্দুকযুদ্ধে' মাদক কারবারি নিহত 
ট্রাকের ধাক্কায় ইজিবাইকের তিন যাত্রী নিহত
 হাইকোর্টে জামিন নিতে মির্জা আব্বাস দম্পতি
আজ বিসিবি একাদশকে নেতৃত্ব দেবেন রুবেল 
বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার 
সিরাজগঞ্জে পিকআপ চাপায় নিহত ২
ক্যালিফোর্নিয়ায় দাবানল এলাকা ট্রাম্পের পরিদর্শন
সোহাগ গ্রেপ্তার
শুটিং করতে গিয়ে মারাত্মক আহত সাল্লু
সরকার নয়, রিজভী অদ্ভুত প্রাণী: হাছান মাহমুদ
নয়াপল্টনের ঘটনায় আব্বাস দম্পতির জামিন
কাউখালীতে আগুনে ভস্মীভূত পরিবারকে সহযোগিতা
'থার্টিফার্স্টে সব ধরনের উদযাপন নিষিদ্ধ'
সর্বশেষ ঘাঁটিও হারাল দায়েশ
'তারেক সাজাপ্রাপ্ত হয়েও কিভাবে কার্যক্রমে অংশ নেন'
আ.লীগের চেয়ে বেশি আয় বিএনপির!
আইপিএলে লিটন দাসকে কিনতে প্রতিযোগিতা !
নির্বাচনে নাশকতাকারীদের ছাড় না: পুলিশ সুপার
অধিকার কর্মীকে যৌন মিলনের প্রস্তাব, অতঃপর...
যশোরে শিবিরের ১৬ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে চার্জশিট
দেশ ছাড়ছেন ভেনেজুয়েলার সুন্দরীরা
মাঠে সোনালী ধান, বাড়িতে নবান্নের উৎসব
প্রিয়াংকার হবু বর ডায়াবেটিসে ভুগছেন!
টেকনাফে 'বন্দুকযুদ্ধে' মাদক কারবারি নিহত 
ট্রাকের ধাক্কায় ইজিবাইকের তিন যাত্রী নিহত
 হাইকোর্টে জামিন নিতে মির্জা আব্বাস দম্পতি
আজ বিসিবি একাদশকে নেতৃত্ব দেবেন রুবেল 
নির্বাচন করবেন হিরো আলম!
'পুলিশ রাষ্ট্রের কর্মচারী, প্রতিপক্ষ ভাববেন না'
৩০ ডিসেম্বর নির্বাচন ‘উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’: রব
নাইম হত্যা: ছাত্রলীগ নেতাসহ আটক ৫, বিক্ষোভ
বিএনপিকে চাঙ্গা করতে আসছেন জোবাইদা
চীন সফরে বিএনপির প্রতিনিধি দল
নৌকা প্রতীক নিয়ে লড়বে যুক্তফ্রন্ট
ইসলাম গ্রহণকারী ভারতীয় সেই নারী খুন
মাশরাফির নির্বাচন নিয়ে যা বললেন তার বাবা
দ্বিতীয় বিয়েতে দীপিকা-রণবীর
খাসোগি ইস্যুতে ‘ফেঁসেই গেল’ সৌদি আরব
হামাসের ক্ষেপণাস্ত্রে ইসরাইলের সেনাবাস ভস্মীভূত
মনোনয়নপত্র কিনলেন বাবরের স্ত্রী শ্রাবণী
বিএনপির কাছে ১০০ আসন চাচ্ছেন শরিকরা
মির্জা ফখরুলকে ক্ষমা চাইতে আল্টিমেটাম
বয়স বাড়বে কিন্তু শক্তি কমবে না
‘বিনা উসকানিতে’ এটা করল বিএনপি: কাদের
নির্বাচন করবেন ইলিয়াসপুত্র ‘অর্ণব’
ফকিরাপুল-কাকরাইল বিএনপির দখলে
নোয়াখালীতে ডোবা থেকে কলেজছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার

সব খবর