১৫ নভেম্বর ,বৃহস্পতিবার, ২০১৮

> বাংলাদেশ

>> জনদুর্ভোগ

 

রাঙামাটি প্রতিনিধি

১৪ জুন ,বৃহস্পতিবার, ২০১৮ ২২:২৫:৫৫

পাহাড়ে বৃষ্টিতে আতঙ্ক, আশ্রয় কেন্দ্র মুখী মানুষ


পাহাড়ে বৃষ্টিতে আতঙ্ক, আশ্রয় কেন্দ্র মুখী মানুষ


বৃষ্টির তীব্রতায় বাড়ছে পাহাড়ে আতঙ্ক। তাই বাধ্য হয়ে ঘর ছাড়ছে মানুষ। রাঙামাটির ৪টি আশ্রয় কেন্দ্রে এখন পর্যন্ত ২৫৯ জন আশ্রয় নিয়েছে। বাকিরাও আশ্রয় কেন্দ্র মুখি হচ্ছে। তবুও পাহাড় ধসের ঝুঁকিতে আছে রাঙামাটির প্রায় ১৫ হাজারেরও অধিক মানুষ।

অন্যদিকে মঙ্গলবার নানিয়ারচর উপজেলায় পাহাড় ধসে ১১জনের মৃত্যুর পর চাপা উদ্বেগ-উৎকন্ঠা বিরাজ করছে স্থানীয়দের মধ্যে। শোকের সাগরে বাসছে নানিয়ারচরের পুরো উপজেলা। স্বজন হারানো আহাজারিতে ভারি হয়ে উঠছে চারপাশের পরিবেশ।

রাঙামাটি নানিয়ারচর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান কোয়ালিটি চাকমা জানান, মাটিচাপা পরে নিহত ১১জনের মরদেহ সনাক্ত করে তাদের স্বজনের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। রাঙামাটি  জেলা প্রাশাসন ও জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারদের নগদ আর্থিক সহায়তা দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে তাদের দাহক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে।

অন্যদিকে টানা বৃষ্টিতে রাঙামাটি শহরের প্রাণ হানিরমত কোনো ঘটনা না ঘটলেও পাহাড় ধসে তছনছ হয়ে যায় পুরো রাঙামাটি। পাহাড়ের ভাঁজে ভাঁজে সাজানো বাড়ি-ঘরগুলো এখন প্রায় বিধ্বস্ত। দুমরে মুছরে আছে গাছ-গাছালিও। ভেঙ্গেছে বিভিন্ন সড়ক। উঠে গেছে সড়কের প্লাস্টার ও কংক্রির। বেশিরভাগ এলাকার সড়কে বড় বড় গর্ত ও খানাখন্দরে পরিণত হয়েছে। ধসে পরছে পিলার, বাড়ি-ঘরের প্লাস্টার ও সীমানা প্রাচির।

রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের এক পরিসংখ্যনে দেখা গেছে-জেলার ১০টি উপজেলায় মোট ৩ হাজার ৩৭৮টি পরিবারের ১৫ হাজারেরও বেশি লোক পাহাড় ধসের ঝুঁকিতে বসবাস করে। তার মধ্যে রাঙামাটি সদরের ৯টি ওয়ার্ডে ৩৪টি এলাকায় ৬০৯ পরিবারের প্রায় আড়াই হাজার ও সদর উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নে ৭৫০ পরিবারের ৩হাজার ৪২৪ জন মানুষ পাহাড়ের ঢালে ঝুঁকিতে বসবাস করছে। যদিও পাহাড় ধসে সম্ভাব প্রাণ হানি এড়াতে তৎপর স্থানীয় প্রশাসন।

তাই রাঙামাটি জেলা প্রশাসন এ কে এম মামুনুর রশিদ বলেছেন, যেকোনো দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রস্তুত রাঙামাটি। তবে তার জন্য সবাইকে সহযোগিতা করতে হবে। প্রশাসন আপ্রাণ চেষ্ট করছে সবাইকে নিরাপদে রাখতে। তবুও যারা ইচ্ছে করে পাহাড়ে ঝুঁকি নিয়ে বসবাস করছে তাদের জন্য প্রাণহানির ঘটনা এড়ানো সম্ভবনা। তবুও মানুষদের নিরাপদ স্থানে সড়ে নিতে মাঠে কাজ করছে রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, সেনাবাহিনী ও পুলিশ।
আর এদিকে আবহওয়া অফিসের ভারপাপ্ত কর্মকর্তা ক্যাচিংনু মারমা জানান, লঘুচাপের কারণে রাঙামাটিতে আরও তিনদিন পর্যন্ত দমকা, ঝড়ো হাওয়া ও বিজলী চমকানোসহ ভারী থেকে মাঝারী ধরনের বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সম্প্রতি সময় রাঙামাটিতে ২৫৭ থেকে ২৬৪ মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। যা স্বাভাবিকের চেয়ে অনেক বেশি।

উল্লেখ্য, বছর ঘুরতেই রাঙামাটি পাহাড় ধসে ফের প্রাণহানির ঘটনা ঘটলো। ২০১৭সালে ১৩জুন ছিল রাঙামাটিবাসির জন্য একটি ভয়াল দিন। ভারি বর্ষণের তীব্রতায় যুদ্ধ বিধ্বস্ত এলাকায় পরিনত হয় পাহাড়। পাহাড়ি মাটিতে বিলিন হয়ে যায় হাজার হাজার বাড়ি-ঘর। ৫জন সেনাকর্মকর্তা ও সদস্যসহ প্রাণ হারায় ১২০জন। সেসময় মাটি চাপায় নিখোজ হয় ১৭টি পরিবার। যাদের এখনো পর্যন্ত মরদেহ উদ্ধার হয়নি। ভিটে মাটি হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে যায় হাজারো মানুষ। সে শোকের ছায়া এখনো কাটেনি। তার মধ্যে ফের পাহাড় ধসে প্রাণ হারালো আরও ১১জন। এটা ছিল ২০১৮ সালে ১২জুনের মধ্যে ভয়াল ঘটনা। তবে এতে শেষ নয়। কারণ এখনো বৃষ্টি অব্যাহত আছে। তাই পাহাড় ধসের শঙ্কা এখনো কাটেনি। নিষ্টুর পাহাড় আর কত মানুষের প্রাণ নিবে তার কোন হিসেব কারো জানা নেয়।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/মুমু/তৌহিদ)


বিয়ের পর কেমন বাড়িতে থাকবেন মুকেশকন্যা ইশা?
মির্জা ফখরুলকে ক্ষমা চাইতে আল্টিমেটাম
দ্বিতীয় বিয়েতে দীপিকা-রণবীর
'বর্তমান পরিস্থিতিতে থাকলে নিরপেক্ষ নির্বাচন অসম্ভব'
কাশ্মীর নিয়ে মন্তব্য, তোপের মুখে আফ্রিদি
'নির্বাচন পেছালে আইনি জটিলতায় পড়বে'
‘ভোট, উইন্ডিজ সিরিজে নেই মাশরাফি’
ধানের শীষ নিয়ে লড়বে ঐক্যফ্রন্ট: মান্না
মনোনয়নপত্র কিনলেন বাবরের স্ত্রী শ্রাবণী
২১৮ রানের বিশাল জয় বাংলাদেশের
খাসোগি হত্যায় সালমান জড়িত: সিআইএ
পর নারীর সঙ্গে কথা বলায় স্বামীর গোপনাঙ্গ ছেদ
যশোরে বাস দুর্ঘটনায় একজন নিহত, আহত ১৫
নির্বাচন পেছানোর দাবি অবান্তর: কাদের
‘মুহাম্মদ আলী বক্সার না হলে ইমাম হতেন’
নির্বাচনের ২-১০ দিন আগে সেনা মোতায়েন: ইসি সচিব
পুরুষদের দুবার বিয়ে বাধ্যতামূলক যেখানে!
ফ্রান্স যুক্তরাষ্ট্রের খেলার পুতুল নয়: ম্যাকরন
ওবায়দুল কাদেরের সংবাদ সম্মেলন ১১ টায়
আদালতে অন্তর্বাস প্রদর্শন!
নোয়াখালীতে ডোবা থেকে কলেজছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার
ময়মনসিংহে ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল
বিয়ের পর কেমন বাড়িতে থাকবেন মুকেশকন্যা ইশা?
'চলনবিলবাসীকে উন্নয়ন,সুশাসন ও নিরাপদ জনপদ উপহার দিয়েছি' 
মির্জা ফখরুলকে ক্ষমা চাইতে আল্টিমেটাম
দ্বিতীয় বিয়েতে দীপিকা-রণবীর
নোবিপ্রবিতে কৃষি দিবস  পালিত
দিনাজপুরে তিনদিন ব্যাপী নবান্ন উৎসব শুরু
বিচার না হওয়া পর্যন্ত ফিরতে চায় না রোহিঙ্গারা
দীপন হত্যা মামলার অভিযোগপত্র দাখিল
'বর্তমান পরিস্থিতিতে থাকলে নিরপেক্ষ নির্বাচন অসম্ভব'
কাশ্মীর নিয়ে মন্তব্য, তোপের মুখে আফ্রিদি
শ্রীলঙ্কায় এখন কোনও প্রধানমন্ত্রী নেই
'নির্বাচন পেছালে আইনি জটিলতায় পড়বে'
পাকুন্দিয়ায় মা ও স্ত্রীকে হত্যার দায়ে একজনের মৃত্যুদণ্ড 
খুলনায় নবান্ন উৎসব উদযাপিত
ঝিনাইদহে নবান্ন উৎসব
কুড়িগ্রামে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্সের বর্ণাঢ্য র‌্যালি
‘ভোট, উইন্ডিজ সিরিজে নেই মাশরাফি’
ধানের শীষ নিয়ে লড়বে ঐক্যফ্রন্ট: মান্না
নির্বাচন করবেন হিরো আলম!
৩০ ডিসেম্বর নির্বাচন ‘উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’: রব
'পুলিশ রাষ্ট্রের কর্মচারী, প্রতিপক্ষ ভাববেন না'
বিএনপিকে চাঙ্গা করতে আসছেন জোবাইদা
চীন সফরে বিএনপির প্রতিনিধি দল
মাশরাফির নির্বাচন নিয়ে যা বললেন তার বাবা
ইসলাম গ্রহণকারী ভারতীয় সেই নারী খুন
হামাসের ক্ষেপণাস্ত্রে ইসরাইলের সেনাবাস ভস্মীভূত
বিএনপির কাছে ১০০ আসন চাচ্ছেন শরিকরা
মৃত্যুর আগে যে কথা বলেন খাসোগি
আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র কিনবেন মাশরাফি
সংসদ নির্বাচনে যাচ্ছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট
বয়স বাড়বে কিন্তু শক্তি কমবে না
চাঁদা চাওয়া সেই এসআই বরখাস্ত
‘বিনা উসকানিতে’ এটা করল বিএনপি: কাদের
ফকিরাপুল-কাকরাইল বিএনপির দখলে
২০ দল বেড়ে হলো ২৩ দলীয় জোট
‘আমাদের নির্বাচনে যাওয়ার দরকার নেই’
একসঙ্গে দুই বোনের আত্মহত্যা!
'মহাজোট থেকে জাতীয় পার্টি নির্বাচনে অংশ গ্রহণ'

সব খবর