কাস্টমকে প্রবেশে বাধা, ৮ কেজি সোনা উদ্ধার
কাস্টমকে প্রবেশে বাধা, ৮ কেজি সোনা উদ্ধার

আটক মোহাম্মদ আব্দুল আজিজ আকন্দ (বাঁ থেকে তৃতীয়)

কাস্টমকে প্রবেশে বাধা, ৮ কেজি সোনা উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক

হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবস্থিত বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইট ক্যাটারিং সেন্টার। তথ্য ছিল, এই ক্যাটারিং সেন্টারে কাজ করা এক ব্যক্তির মাধ্যমে সোনা চোরাচালান হবে। গোপন তথ্যের ভিত্তিতে ক্যাটারিং সেন্টারে প্রবেশ করতে চাইলেও বাধা দেওয়া হয় কাস্টমসকে। শেষ পর্যন্ত অবশ্য আটকে রাখা যায়নি কাস্টমসকে।

তবে ক্যাটারিং সেন্টারে ঢুকেও পাওয়া যায়নি সোনার হদিস। দীর্ঘ ৭ ঘণ্টা পর বিমানের ক্যাটারিং সার্ভিসের গেটের সামনে থেকেই আটক করা হয় সোনা চোরাচালানে জড়িত ব্যক্তিকে। তিনি ওই ক্যাটারিং সেন্টারেরই কর্মী। তার কাছে পাওয়া গেছে ৮ কেজি সোনা।

বুধবার (২৫ মে) রাতে ঢাকা কাস্টম হাউজের উপকমিশনার মো. সানোয়ারুল কবির জানান, সোনা চোরাচালানে জড়িত ব্যক্তির নাম মো. আব্দুল আজিজ আকন্দ। তিনি বিমানের ফ্লাইট ক্যাটারিং সেন্টারে কর্মরত। তার পরনের শার্ট, প্যান্টসহ বিভিন্ন জায়গা থেকে ৮ কেজি সোনা জব্দ করা হয়েছে।

কাস্টমস সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা কাস্টম হাউজের প্রিভেনটিভ ইউনিটের কাছে তথ্য ছিল, বিমানের ক্যাটারিং সার্ভিসে কর্মরত এক ব্যক্তির মাধ্যমে সোনা পাচার হবে। সেই তথ্যের ভিত্তিতে দুপুর ১টার দিকে বিমানের ক্যাটারিং সেন্টারে প্রবেশ করতেই বাধার মুখে পড়তে হয়। দু’টি গেটের একটি গেট দিয়েও প্রবেশ করতে দেওয়া হয় না কাস্টম কর্মকর্তাদের। পরে গোয়েন্দা সংস্থার সহায়তায় মাধ্যমে বিমানের ক্যাটারিং সেন্টারে প্রবেশ করেন কাস্টম কর্মকর্তারা। তখন ক্যাটারিং সেন্টার থেকে জানানো হয়, সন্দেহভাজন আব্দুল আজিজ দুপুর ১টা ৪৯ মিনিটের দিকে অফিস থেকে বেরিয়ে গেছেন।

সানোয়ারুল কবির বলেন, এরপর রাত ৮টা পর্যন্ত বিমানের ক্যাটারিং অফিসের গেটের সামনে কাস্টমসের দুই কর্মকর্তা নজরদারিতে থাকেন। রাত ৮টার দিকে সোনা চোরাচালানকারী আব্দুল আজিজ বিমানের ক্যাটারিং অফিসের গেটের সামনে গেলে কাস্টম কর্মকর্তারা তাকে আটক করেন। তল্লাশি চালিয়ে তার কাছ থেকে কালো স্কচটেপ দিয়ে মোড়ানো চারটি সোনার বারের বান্ডল পাওয়া যায়। এতে ছিল ৮ কেজি সোনা, যার বাজারমূল্য প্রায় সাড়ে ৬ কোটি টাকা।

কাস্টমস সূত্র আরও জানিয়েছে, সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই ফেরত একটি বিমানের মাধ্যমে এই সোনা বাংলাদেশে এসেছে। আব্দুল আজিজের মাধ্যমে এই সোনা পাচার হওয়ার কথা ছিল। আটক আব্দুল আজিজের বিরুদ্ধে ফৌজদারি আইন ও কাস্টমস আইনে মামলা দায়ের করা হবে বলে জানিয়েছেন সানোয়ারুল কবির।

news24bd.tv/আলী