দুই বছর পর ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’ চালু
দুই বছর পর ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’ চালু

দুই বছর পর ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’ চালু

অনলাইন ডেস্ক

দু’বছরেরও বেশি সময় বন্ধ থাকার পর চলাচল শুরু করছে আন্তঃদেশীয় যাত্রীবাহী ট্রেন ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’। বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে চলাচলকারী ট্রেনটি রোববার (২৯ মে) কলকাতা থেকে যাত্রা করে খুলনায় আসবে। করোনা মহামারির মধ্যে ২০২০ সালের ১৫ মার্চ থেকে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে চলাচলকারী ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’ ট্রেনটির যাত্রা বন্ধ হয়ে যায়।

যশোরের বেনাপোল রেলওয়ে স্টেশনের মাস্টার মো. সাইদুজ্জামান বলেন, রোববার সকালে কলকাতা থেকে যাত্রা করে বন্ধন এক্সপ্রেস বেনাপোল হয়ে দুপুরে খুলনা পৌঁছাবে।

দুপুরে খুলনা থেকে যাত্রা করে সন্ধ্যায় আবার কলকাতা ফিরে যাবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে চলাচলকারী আন্তঃদেশীয় ট্রেন ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’ ২০১৭ সালে চালু হয়। করোনা মহামারির মধ্যে ২০২০ সালের ১৫ মার্চ থেকে ট্রেনটির চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। করোনা সংক্রমণ কমে যাওয়ায় দেশের ভেতরে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল শুরু হলেও আন্তঃদেশীয় ট্রেনটি চলাচল বন্ধই ছিল। অবশেষে ২৬ মাস পর ট্রেনটি চালু হচ্ছে। রবি ও বৃহস্পতিবার এই দুদিন ট্রেনটি যাতায়াত করে।

বেনাপোল রেলওয়ে স্টেশন সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭ সালের ১৬ নভেম্বর কলকাতা-খুলনার মধ্যে ৪৫৬ আসনের ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’ নামের আন্তর্জাতিক ট্রেনটি চলাচল শুরু করে। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এ ট্রেনে কেবিনে সিট ভাড়া দেড় হাজার ও চেয়ার কোচ ভাড়া এক হাজার টাকা। সঙ্গে যোগ হয় ৫০০ টাকার ভ্রমণ কর। বেনাপোলে যাত্রীর পাসপোর্ট, ভিসাসহ ইমিগ্রেশনের যাবতীয় কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করা হয়। এরপর যাত্রীরা সরাসরি খুলনা ও কলকাতার মধ্যে যাতায়াত করতে পারেন। সপ্তাহের প্রতি রবি ও বৃহস্পতিবার সকালে ট্রেনটি কলকাতা থেকে ছেড়ে আবার দুপুরে খুলনা থেকে কলকাতার উদ্দেশে ফিরে যায়।

ট্রেনটির ৪৫৬ আসনের মধ্যে ৩১২টি এসি চেয়ার ও ১৪৪টি প্রথম শ্রেণির আসন রয়েছে। কলকাতা-খুলনার মধ্যে দূরত্ব ১৭২ কিলোমিটার। এর মধ্যে বাংলাদেশে পড়েছে ৯৫ কিলোমিটার ও ভারতে পড়েছে ৭৭ কিলোমিটার।

বেনাপোল স্টেশন মাস্টার মো. সাইদুজ্জামান বলেন, রোববার থেকে ফের বন্ধন এক্সপ্রেস চালু হচ্ছে। ডলারের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় এসি চেয়ারে ৩৫ টাকা ও এসি কেবিনের সিটে ৫৭ টাকা ভাড়া বৃদ্ধি পেয়েছে।  

news24bd.tv তৌহিদ