পরকীয়া সন্দেহে স্বামীর বান্ধবীকে ভাড়াটে লোক দিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ
পরকীয়া সন্দেহে স্বামীর বান্ধবীকে ভাড়াটে লোক দিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

প্রতীকী ছবি

পরকীয়া সন্দেহে স্বামীর বান্ধবীকে ভাড়াটে লোক দিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

অনলাইন ডেস্ক

ঘটনাটি ভারতের হায়দরাবাদের। সেখানে স্বামী অন্য নারীর সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্কে রয়েছেন এমন সন্দেহ থেকে ভাড়াটে লোক দিয়ে স্বামীর বান্ধবীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করিয়েছেন স্ত্রী এবং সেই যৌন হেনস্তার ভিডিও করেছেন তিনি। অভিযুক্ত ওই নারীর নাম গায়ত্রী।

ভারতীয় গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, সরকারি চাকরির পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন গায়ত্রীর স্বামী।

সেখানে তার বন্ধুত্ব হয় এক নারীর সঙ্গে। তিনিও প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন সরকারি চাকরির পরীক্ষার। গায়ত্রী অসুস্থ হলে স্বামী তার বান্ধবীকে বাড়িতে আসার জন্য বলেন। কিছু দিন বাড়িতে থাকলে দৈনন্দিন কাজকর্মে সাহায্য করতে পারবেন এই ভেবে স্বামী তার বান্ধবীকে তাদের বাড়িতেই থেকে যাওয়ার প্রস্তাব দেন।
তখনই গায়ত্রীর সন্দেহ হয়, সহপাঠীর সঙ্গে বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্ক রয়েছে স্বামীর।  

এরপর গত ২৪ এপ্রিল গাছিবৌলি থানায় ওই নারীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন গায়ত্রী। কিন্তু অভিযোগ দায়ের করার পর থেমে থাকেননি তিনি। নিজেদের মধ্যে শলাপরামর্শ করে সব মিটিয়ে নেবেন বলে স্বামীর বান্ধবীকে পরিবারসহ নিজের বাড়িতে ডেকে পাঠান গায়ত্রী। কথোপকথন চলাকালীন তিনি স্বামীর বান্ধবীকে অন্য ঘরে নিয়ে যান। সেই ঘরের ভিতরে উপস্থিত ছিলেন চার পুরুষ।

পুলিশ জানায়, ওই নারীকে ধর্ষণ করার জন্য গায়ত্রী ওই চারজনকে টাকা দিয়েছিলেন। ভুক্তভোগীর মুখের ভিতর কাপড় গুঁজে চারজন মিলে তাকে যৌন হেনস্থা করেন। যা মোবাইল ফোনে রেকর্ড করেন গায়ত্রী। এই ঘটনার ব্যাপারে কাউকে জানালেই ভিডিওটি সর্বত্র ছড়িয়ে দেবেন বলেও হুমকি দেন ওই নারীকে। এ ঘটনায় পুলিশ পাঁচ জনকেই গ্রেফতার করেছে। সূত্র : আনন্দবাজার 

news24bd.tv/কামরুল