বসুন্ধরা মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড ও গুণী সাংবাদিকদের সম্মাননা একটি মাইলফলক
বসুন্ধরা মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড ও গুণী সাংবাদিকদের সম্মাননা একটি মাইলফলক

বসুন্ধরা মিডিয়া অ্যাওয়ার্ডপ্রাপ্ত সাংবাদিক ও অতিথিরা

বসুন্ধরা মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড ও গুণী সাংবাদিকদের সম্মাননা একটি মাইলফলক

নিজস্ব প্রতিবেদক

বসুন্ধরা মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড ও গুণী সাংবাদিকদের সম্মাননা একটি ব্যতিক্রমী উদ্যোগ। যা দেশের ইতিহাসে মাইলফলক হয়ে থাকবে। বসুন্ধরা গ্রুপের এই উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন ব্যবসায়ী নেতারা।

গতকাল সোমবার রাতে রাজধানীর আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টার বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) আয়োজিত বসুন্ধরা মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড ২০২১ অনুষ্ঠানের অংশ নিয়ে অতিথিরা এসব কথা বলেন।

‌‘বসুন্ধরা মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড ২০২১’ আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক ও বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। অনুষ্ঠানটি উদ্বোধন করেন দেশের শীর্ষ শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান বিচারপতি মো. নিজামুল হক নাসিম ও ‘বসুন্ধরা মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড ২০২১’-এর জুরি বোর্ডের প্রধান অধ্যাপক ড. মো. গোলাম রহমান।
  
এ বিষয়ে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক মো. বজলুর রহমান বলেন, বসুন্ধরা গ্রুপের এ বিশাল আয়োজনের জন্য ধন্যবাদ জানাই।

আর যারা আজকে অ্যাওয়ার্ড পাচ্ছেন তাদের আন্তরিকভাবে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। বসুন্ধরা গ্রুপ আজ ঘোষণা দিলো যে এ ধরনের উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে এটাকে স্বাগত জানাই। বিশাল এই উদ্যোগ বাংলাদেশের জন্য স্মরণীয় হয়ে থাকবে। আজকে এই পুরস্কার সাংবাদিকদের বস্তুনিষ্ঠ কাজে উৎসাহ প্রদান করবে। ভবিষ্যতে তারা আরও ভালো কাজ করবে বলে আশা করছি।

ঢাকা নিউমার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি জাকারিয়া দেওয়ান নাইমুল ইসলাম শাহিন বলেন, বসুন্ধরা কর্তৃপক্ষ যে মিডিয়া অ্যাওয়ার্ডের আয়োজন করেছেন সেটা আসলেই উল্লেখযোগ্য ও মাইলফলক হয়ে থাকবে। একটা পেশাকে যখন সম্মান করা হয় তখন কাজ করার আগ্রহ বাড়ে। কোভিডের পর এরকম একটি অনুষ্ঠান করায় আমি তাদের সাধুবাদ জানাই।

এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক নাসিম মজুমদার বলেন, দেশের সাংবাদিকদের কাজের স্বীকৃতি দেওয়া অত্যন্ত প্রশংসার কাজ। বসুন্ধরা গ্রুপের এ উদ্যোগ জন্য সবার কাছে মাইলফলক হয়ে থাকবে। আমি প্রথমে বুঝতে পারিনি বসুন্ধরা এতো বড় আয়োজন করছে। অত্যন্ত সুন্দর আয়োজন করেছে। ভবিষ্যতে এর ধারাবাহিকতা বজায়সহ আরও বড় আয়োজন করবে বলে আশা করছি।  

ডাচ বাংলা চেম্বার অব কমার্স ইন্ডাস্ট্রির প্রেসিডেন্ট মো. আনোয়ার সাখাওয়াত আফসার বলেন, বসুন্ধরার উদ্যোগকে স্বাগত জানাই। যারা এ পেশায় আছেন তারা জীবনকে ঝুঁকিতে রেখে কাজ করে যাচ্ছেন তাদের আজকে পুরস্কৃত করায় আনন্দিত। বসুন্ধরা গ্রুপের দেখাদেখি যদি অন্যান্য শিল্পগোষ্ঠী এ ধরনের উদ্যোগ নেয় তাহলে সাংবাদিকদের কাজের আগ্রহ বাড়বে এবং মর্যাদাও বাড়বে বলে আশা করছি। বসুন্ধরা গ্রুপ এটার ধারাবাহিকতা রাখবে বলে আশা করছি।

নভোএয়্যারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মফিজুর রহমান বলেন, বসুন্ধরার এ মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড একটি ব্যতিক্রমী উদ্যোগ অবশ্যই। অত্যন্ত চমৎকার একটি আয়োজন করেছে বসুন্ধরা। আয়োজনটি এতো বিশাল হবে সেটা আমি অনুমান করতে পারিনি। তবে আমাদের দেশের বরেণ্য ও স্বনামধন্য সাংবাদিকদের যে একটা সম্মাননা দেওয়া হচ্ছে। এটা সংবাদ পত্র ও সাংবাদিকদের জন্য মাইলফলক হয়ে থাকবে। এ ধরনের অনুষ্ঠানের উদ্যোগ বা সাংবাদিকদের কাজের যে একটা মূল্যায়ন হচ্ছে সেটা ধারাবাহিকভাবে হয় আমি সেই আশাই প্রকাশ করছি।

বাজুসের ট্রেজারার উত্তম বনিক বলেন, অসাধারণ একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে বসুন্ধরা গ্রুপ। সাংবাদিকদের যদি উৎসাহিত না করা হয়, তাহলে ভালো সাংবাদিক আসবে না। এজন্য বসুন্ধরা গ্রুপকে ধন্যবাদ এ ধরনের একটি পরিচ্ছন্ন আয়োজনের জন্য। এটি প্রথম অনুষ্ঠান আশা করছি বসুন্ধরা গ্রুপ এ ধরনের আয়োজনের ধারাবাহিকতা রাখবে।