এগিয়ে গেলো আর্জেন্টিনা
এগিয়ে গেলো আর্জেন্টিনা

সংগৃহীত ছবি

এগিয়ে গেলো আর্জেন্টিনা

অনলাইন ডেস্ক

২০১৯ সালের কোপা আমেরিকার সেমিফাইনালে ব্রাজিলের কাছে ২-০ ব্যবধানে হারটিই আর্জেন্টিনার সর্বশেষ হার। এর পর থেকে টানা ৩১ ম্যাচ অপরাজিত লিওনেল স্কালোনির দল। এর মধ্যে ২৮ বছরের অপেক্ষা ঘুচিয়ে কোপা আমেরিকা জয়ও আছে। সেই মধুর স্মৃতি আজ আবার রোমন্থনের সুযোগ তাদের।

দক্ষিণ আমেরিকার চ্যাম্পিয়ন হিসেবেই যে আজ ইউরো চ্যাম্পিয়ন ইতালির মুখোমুখি তারা ‘ফিনালিসিমা’তে।

আজকে শুরুটা দারুণ করে আর্জেন্টিনা। প্রথম ১৫ মিনিটে ইতালির ফাইনাল থার্ডে প্রাধান্য বিস্তার করে খেলে লিওনেল মেসির দল। তবে ইতালিয়ান ডিফেন্সের দৃঢ়তায় গোলে শট নিতে পারেনি। ইউরো চ্যাম্পিয়ন ইতালি গা ঝাড়া দিয়ে বার দুয়েক আক্রমণ চালায় আর্জেন্টিনার পোস্টে। প্রথমে জানকোমো রাসপাদোরি ও দ্বিতীয়বার নিকোলো বারেল্লার শট ঠেকিয়ে দলকে নিশ্চিন্ত রাখেন আর্জেন্টিনার গোলকিপার এমিলিয়ানো মার্তিনেস। এরপরই খেলার নিয়ন্ত্রণ নিজের কাঁধে নিয়ে নেন মেসি। বিশ্বসেরা ফুটবলারকে সামলাতে বেগ পেতে হয় ইতালির দুই অভিজ্ঞ ডিফেন্ডার জর্জো কিয়েলিনি ও লিওনার্দো বনুচ্চিকে।

তাদের কড়া মার্কিংকে ফাঁকি দিয়েই নিজের জন্য জায়গা বের করেন মেসি। রাইট ব্যাক জোভান্নি দি লরেঞ্জোকে বক্সের ডান দিকে বোকা বানিয়ে লাউতারো মার্তিনেসের উদ্দেশে বল ছাড়েন আর্জেন্টিনার অধিনায়ক। আলতো টোকায় ইতালি গোলকিপার জানলুইজি দোন্নারুম্মাকে বোকা বানাতে ভুল করেননি মার্তিনেস। ২৮ মিনিটে লিড নেয়ার পর কিছুটা থিতু হয় আর্জেন্টিনা। সে সুযোগে ইতালি বারকয়েক আক্রমণ চালায়। তবে সেগুলো থেকে গোলে শট নিতে পারেনি তাদের ফরোয়ার্ড লাইন।

প্রথমার্ধের একেবারে শেষ মুহূর্তে আলবিসেলেস্তেদের লিড দ্বিগুন করেন অ্যাঞ্জেলো ডি মারিয়া। বনুচ্চিকে ডজ দিয়ে মার্তিনেসের বাড়ানো ক্রসে দারুণ শট নিয়ে আনন্দে ভাসান আর্জেন্টিনাকে। ২-০ গোলে এগিয়ে থেকে প্রথমার্ধ শেষ করে দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

ফিনালিসিম বা গ্র্যান্ড ফাইনাল—এটা নতুন নাম। ইউরোপ ও আমেরিকা চ্যাম্পিয়ন দুই দলের মধ্যে এর আগে মাত্র দুইবার যে ম্যাচটি হয়েছে, সেটি পরিচিত ছিল ইউরোপিয়ান-সাউথ আমেরিকান নেশনস কাপ বা আর্তেমিও ফ্রাঞ্চি কাপ নামে। ফ্রাঞ্চি ইতালি ফুটবল ফেডারেশনের সাবেক সভাপতি, তাঁর নামেই ১৯৮৫ ও ১৯৯৩ সালে হয়েছিল ম্যাচ দুটি। ২৯ বছর পর তা আবার মাঠে ফিরছে আর্জেন্টিনা-ইতালি দ্বৈরথ দিয়ে ফিনালিসিমা নামে।

এই ম্যাচেই আজ ১৮ বছর আজ্জুরিদের জার্সি গায়ে খেলা জর্জিও কিয়েল্লিনির পথচলা থামছে। কিয়েল্লিনির অধিনায়কত্বেই ২০২০ ইউরোর মুকুট জিতেছে ইতালি। কিন্তু সেই ইতালিই ২০২২ বিশ্বকাপে নেই। রবার্তো মানচিনি অনেক তরুণ খেলোয়াড় দলে ভিড়িয়ে এখন ভবিষ্যতের দল গড়ছেন।

অন্যদিকে, আর্জেন্টিনা পুরোপুরি বিশ্বকাপমুখী। লাতিন আমেরিকার দ্বিতীয় দল হিসেবে কাতার বিশ্বকাপের টিকিট নিশ্চিত করেছে তারা। ২০১৯ কোপায় যে ব্রাজিলের কাছে হেরে সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিতে হয়েছিল তাদের, ২০২১-এর ফাইনালে তাদেরই হারিয়ে শিরোপা উৎসব করেছে লিওনেল মেসির দল। তবু আজ ইতালির বিপক্ষে তাদের বড় পরীক্ষা। কারণ সাম্প্রতিককালে ইউরোপিয়ান দলগুলোর বিপক্ষে খেলার অভিজ্ঞতা হয়নি আর্জেন্টাইনদের। ২০১৯ সালে শেষবার ইউরোপীয় কোনো দলের মুখোমুখি হয়েছিল, জার্মানির সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র হয়েছিল ম্যাচটি। স্কালোনির দলের প্রায় তিন বছর অপরাজিত থাকার ধারায় আজ তাই বড় পরীক্ষা ইতালির বিপক্ষে।  
আর্জেন্টিনা একাদশ: 
এমিলিয়ানো মার্টিনেজ, 
নাহুয়েল মলিনা, ক্রিশ্চিয়ান রোমেরো, নিকলাস অটামেন্ডি, নিকলাস টালিয়াফিকো;
রদ্রিগো ডি পল, গিদো রদ্রিগেজ, জিওভানি লো চেলসো;
লিওনেল মেসি, লাওতারো মার্টিনেজ, আনহেল ডি মারিয়া।

ইতালি একাদশ:
জিয়ানলুইজি ডনারুমা;
জিওভানি ডি লরেঞ্জো , জর্জিও কিয়েল্লিনি , লিওনার্দো বনুচ্চি , এমারসন পালমিরি;
মাত্তেও পেসিনা, জরজিনিও, নিকোলো বারেলা;
ফেদেরিকো বার্নার্দেস্কি, আন্দ্রেয়া বেলোত্তি, গিয়াকোমো রাসপাডোরি।

news24bd.tv/আলী