ইউক্রেনের ২ লাখ শিশু ধরে নিয়ে গেছে রাশিয়া : জেলেনস্কি
ইউক্রেনের ২ লাখ শিশু ধরে নিয়ে গেছে রাশিয়া : জেলেনস্কি

ফাইল ছবি

ইউক্রেনের ২ লাখ শিশু ধরে নিয়ে গেছে রাশিয়া : জেলেনস্কি

অনলাইন ডেস্ক

ইউক্রেনের প্রধানমন্ত্রী ভলোদিমির জেলেনস্কি দাবি করেছেন অন্তত ২ লাখ শিশুকে রাশিয়ায় যেতে বাধ্য করা হয়েছে। এই শিশুদের ভেতর অনাথ, অভিভাবকের সঙ্গে যাওয়া এবং পরিবার থেকে আলাদা হওয়া শিশুরা রয়েছে।  

বুধবার (১ মে) আন্তর্জাতিক শিশু দিবসে এক ভিডিওতে জেলেনস্কি বলেন, এই হঠকারিতা শুধু মানুষ চুরির নয় বরং ইউক্রেনকে ভুলিয়ে দেওয়ার জন্য তাদের রাশিয়া পাঠানো হচ্ছে। তারা যেন দেশে ফিরতে না পারেন, এ কারণেও এটা করা হচ্ছে।

খবর আল-জাজিরার।

জেলেনস্কি আরও বলেন, যারা শিশুদের দেশত্যাগের জন্য দায়ী তাদের ইউক্রেন শায়েস্তা করবে এবং তিনি হুঁশিয়ারি দেন- ইউক্রেন কখনো দখল করে নেওয়া যাবে না, আমাদের জনগণ কখনো আত্মসমর্পণ করবে না। আমাদের শিশুরা দখলদারদের সম্পদে পরিণত হবে না।

জেলেনস্কি আরও বলেন, এ পর্যন্ত ২৪৩ জন শিশুকে হত্যা করা হয়েছে। ৪৪৬ জন শিশু আহত হয়েছেন এবং ১৩৯ জন এখনো নিখোঁজ রয়েছেন। তিনি এ সময় জানান, সরকারের কাছে হিসাব নেই এমন অনেক শিশুও থাকতে পারে।  

এদিকে ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চল পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে নিতে হামলা জোরদার করেছে রুশ বাহিনী। ইউক্রেনীয় বাহিনীও প্রতিহত করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। লুহানৎস্কের গভর্নরের দাবি, সেভেরোদনেৎস্কে আরও অগ্রসর হয়েছে রুশ বাহিনী। তাদের হামলার হাত থেকে বাঁচতে রাসায়নিক কেন্দ্রের নিচে আশ্রয় নিয়েছেন বেসামরিক নাগরিকরা।

ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় শহর সেভেরোদোনেৎস্কের দুই-তৃতীয়াংশ দখল করে নিয়েছে রাশিয়া। কিয়েভ বাহিনীতে দৈনিক ১০০ নিহত ও ৫০০ জনের মতো আহত হচ্ছিল বলে স্বীকার করে নিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ভালোদিমির জেলেনস্কি। যে কারণে অঞ্চলটি থেকে ইউক্রেনীয় বাহিনীকে নিরাপদ দূরত্বে সরে আসতে হয়েছে।

সেভেরোদোনেৎস্ক ও তার ছোট্ট যমজ শহর লিসিচানৎস্ক দখল করতে পারলে পুরো লুহানৎস্ককে রাশিয়ার নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠিত হবে। এতে এ যুদ্ধে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের একটি গুরুত্বপূর্ণ লক্ষ্য অর্জিত হবে।

news24bd.tv/কামরুল