টিপু হত্যার পর পলাতক মুসা ওমানে গ্রেফতার
টিপু হত্যার পর পলাতক মুসা ওমানে গ্রেফতার

সংগৃহীত ছবি

টিপু হত্যার পর পলাতক মুসা ওমানে গ্রেফতার

অনলাইন ডেস্ক

মতিঝিল থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম টিপু ও কলেজছাত্রী সামিয়া আফরিন প্রীতি হত্যার ঘটনায় জড়িত সন্দেহভাজন সুমন শিকদার মুসা ওমানে গ্রেফতার হয়েছেন। মুসা এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় অন্যতম সন্দেহভাজন ও ঘটনার কিছুদিন পর তিনি বিদেশে পালিয়ে যান।

এরপর তাকে গ্রেফতারে ইন্টারপোলের সহায়তা চায় বাংলাদেশ পুলিশ। এর মধ্যেই ইন্টারপোলের মাধ্যমে ওমান থেকে তাকে গ্রেফতারের খবর পাওয়া যায়।

এখন তাকে দেশে ফিরিয়ে আনতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

পুলিশ সদর দপ্তরের এনসিবি ডেস্কের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি) মহিউল ইসলাম জানান, মুসা ওমানে গ্রেফতার হয়েছে। তাকে ফিরিয়ে আনতে ওই দেশের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে।

গত ২৪ মার্চ রাতে রাজধানীর শাহজাহানপুরের আমতলা মসজিদ এলাকায় এলোপাতাড়ি গুলি ছুড়ে মতিঝিল থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম ওরফে টিপুকে হত্যা করা হয়। সড়কে যানজটে আটকা পড়ে রিকশায় বসে থাকা কলেজছাত্রী সামিয়া আফরিন প্রীতি গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান।

২৫ মার্চ দুপুরে নিহত জাহিদুল ইসলাম টিপুর স্ত্রী স্থানীয় নারী ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফারহানা ইসলাম ডলি বাদী হয়ে শাহজাহানপুর থানায় অজ্ঞাতদের আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

২৬ মার্চ রাতে বগুড়া থেকে মাসুম মোহাম্মদ ওরফে আকাশ নামে একজনকে গ্রেফতার করে ডিবি। যিনি সরাসরি টিপুকে লক্ষ্য করে গুলি করেছিলেন।

২ এপ্রিল মুসার ভাই সালেহ শিকদার ওরফে শুটার সালেহ, মতিঝিল থানার ১০ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুকসহ চারজনকে গ্রেফতার করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

র‌্যাব জানায়, চাঁদাবাজি ও দরপত্র নিয়ে আধিপত্যের দ্বন্দ্ব, রিয়াজুল হক মিল্কী হত্যার বদলা ও বোঁচা বাবু হত্যা মামলা থেকে বাঁচতে টিপুকে হত্যার পরিকল্পনা করেন ওমর ফারুকসহ স্থানীয় কয়েকজন আওয়ামী লীগ নেতা।

news24bd.tv/আলী