স্মার্টফোন ছাড়া প্রধানমন্ত্রী!
স্মার্টফোন ছাড়া প্রধানমন্ত্রী!

সংগৃহীত ছবি

স্মার্টফোন ছাড়া প্রধানমন্ত্রী!

অনলাইন ডেস্ক

পৃথিবীর গরীব দেশের তালিকায় নেই নেদারল্যান্ডসের নাম। মাথাপিছু আয়েও বেশ এগিয়ে দেশটি। তবুও ডাচ প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুটের নেই একটি স্মার্টফোন। হঠাৎ করেই পুরোনো ফোন ব্যবহার করা নিয়ে প্রবল সমস্যায় পড়েছিলেন মার্ক।

আর তা নিয়ে স্থানীয় মিডিয়ায় এখনো তোলপাড় চলছে।

সংবাদ সংস্থা ব্লুমবার্গ এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, পুরোনো ফোনে স্পেস না থাকায় গুরুত্বপূর্ণ সব এসএমএস মুছে দিয়েছিলেন ডাচ প্রধানমন্ত্রী। আর মার্কের এই কাজে বেশ ঝামেলা পড়েছেন সে দেশের বাসিন্দা ও প্রশাসনের সঙ্গে যুক্ত কর্মকর্তারা।  

বিরোধীরা আরো এক কাঠি সরেস। তারা বলছেন, ডাচ প্রধানমন্ত্রী নিজেই ফোন থেকে এসএমএস মুছে দেন। এমনকি করোনা মহামারি সংক্রান্ত যে সব এসএমএস তাকে পাঠানো হয়েছিল, সেগুলোও মুছে দিয়েছেন তিনি।

বিরোধীরা বিষ্ময় প্রকাশ করেন, এমন কাণ্ড কী করে সম্ভব! এরপর থেকে ডাচ প্রধানমন্ত্রী কী ফোন ব্যবহার করেন, তা নিয়ে বেশ সরব দেশটির মানুষগুলো। সমালোচনা থেকে বাঁচতে নতুন উদ্যোগ নিয়েছে ডাচ ক্যাবিনেটে। ঠিক করেছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ডাচ প্রধানমন্ত্রীকে একটা স্মার্টফোন দেওয়া হবে। ফোনটি তিনি অফিসের কাজে ব্যবহার করবেন।

অবশ্য অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী মার্ক বলেন, যে সব এসএমএস ফরওয়ার্ড করা দরকার ছিল, সেগুলো করেছি। আমার পুরোনো ফোনে স্পেস ছিল না। নতুন এসএমএস আসছিলো না। তার বিরুদ্ধে তথ্য গোপনের অপবাদ দিয়েছিল বিরোধীরা। এর জবাবে তিনি হেসে বলেছেন, সব কথোপকথন জাতীয় সংরক্ষণাগারে পাঠিয়ে দিয়েছি।

প্রায় এক কোটি ৭৪ লাখ মানুষ বসবাস করে নেদারল্যান্ডসে। সেখানে সাইকেলে চেপে সংসদের অধিবেশনে যোগ দিতে যান ডাচ প্রধানমন্ত্রী।

news24bd.tv/আলী