'দুর্ঘটনা নাকি নাশকতা খতিয়ে দেখা হবে'
'দুর্ঘটনা নাকি নাশকতা খতিয়ে দেখা হবে'

ফাইল ছবি

'দুর্ঘটনা নাকি নাশকতা খতিয়ে দেখা হবে'

শাহানাজ ইয়াসমিন

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি খুব দুঃখজনক। তবে এটি দুর্ঘটনা নাকি নাশকতা নিশ্চয়ই খতিয়ে দেখা হবে।

আজ রোববার তিনি এ কথা বলেন।

এদিকে, অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪২ জনে দাঁড়িয়েছে।

এ ছাড়াও আহত হয়েছেন আরো সাড়ে চার শতাধিক। সময় যত গড়াচ্ছে বেড়েই চলেছে হতাহতের সংখ্যা।

গতকাল শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এখনো পর্যন্ত নিয়ন্ত্রণে আসেনি আগুন।  

ভয়াবহ এই অগ্নিকান্ডের ঘটনায় নিহত শ্রমিকদের পরিবারকে ২ লাখ টাকা এবং আহতদের চিকিৎসায় ৫০ হাজার টাকা সহায়তা দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান।

ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা জানিয়েছেন, শনিবার রাতে আগুন লাগার পর কনটেইনারের সামনে সরাসরি পানির পাইপ ধরে আগুন নিয়ন্ত্রণ করতে গেলে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা হতাহত হন। এজন্য ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা পাইপ হাতে না ধরে স্বয়ংক্রিয়ভাবে কনটেইনার ডিপোতে লাগা আগুন নিয়ন্ত্রণে পানি দিচ্ছেন।

আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করা ফায়ার ফাইটার রাবিক হাসান বলেন, ‘গতকাল (শনিবার) রাত থেকে টানা কাজ করছি। কোনোভাবেই আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হচ্ছে না। ’

তিনি বলেন, ‘প্রথমে পাইপ নিয়ে কনটেইনারের কাছে গিয়ে আমরা পানি ছিটানোর চেষ্টা করেছিলাম। তবে কাছ থেকে পানি দিতে গেলে বিস্ফোরণে ফায়ার ফাইটাররাও হতাহত হচ্ছেন। সেজন্য নিরাপদ দূরত্বে থেকে কাজ করছি। আমাদের কয়েকজন সদস্য গুরুতর আহত হয়েছেন। ’

আহতদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ আশপাশের হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। অতিরিক্ত রোগীর চাপে অনেককে ওয়ার্ড ছাড়াও হাসপাতালের মেঝেতে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধ ৩ জনকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে আনা হয়েছে। আজ রোববার সংবাদমাদ্যমকে এ খবর নিশ্চিত করেন ইনস্টিটিউটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন।

তিনি বলেন, দগ্ধ ৩ জনকে  আজ সকালে আনা হয়েছে। তাদের শরীরের ১৪-১৫ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। ৩ জনেরই শ্বাসনালী পুড়ে গেছে। এ কারণে জরুরিভিত্তিতে তাদের আইসিইউ সাপোর্ট লাগবে। এখন তাদের আইসিইউতে নেওয়ার প্রস্তুতি চলছে। ’

বিস্ফোরণে গুরুতর আহতদের বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টার যোগে ঢাকায় আনা হচ্ছে বলে জানা গেছে।

বিস্ফোরণে হতাহতের ঘটনায় গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  

news24bd.tv/রিমু