সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টদের কর্মবিরতিতে অচল মোংলা বন্দর
সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টদের কর্মবিরতিতে অচল মোংলা বন্দর

সংগৃহীত ছবি

সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টদের কর্মবিরতিতে অচল মোংলা বন্দর

বাগেরহাট প্রতিনিধি  

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের লাইসেন্সিং বিধিমালা ২০২০ সংশোধনসহ বিভিন্ন দাবিতে দেশব্যাপী অনিদৃষ্টকালের কর্মবিরতি পালন শুরু করছে ফেডারেশন অব বাংলাদেশ কাস্টমস ক্লিয়ারিং অ্যান্ড ফরওয়ার্ডিং এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশন (সিঅ্যান্ডএফ)। এই কর্মবিরতির কারনে আজ (মঙ্গলবার ৭ জুন) সকাল থেকে মোংলা বন্দরসহ দেশের ১১টি শুল্ক স্টেশনে পণ্য খালাস কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। ফলে মঙ্গলবার সকাল থেকে মোংলা বন্দরের আমদানী-রপ্তানী বন্ধ রয়েছে।

ফেডারেশন অব বাংলাদেশ কাস্টম ক্লিয়ারিং এন্ড ফরওয়ার্ডি এজেন্ট এসোসিয়েশন, মোংলা’র সাধারন সম্পাদক শেখ লিয়াকত হোসেন জানান, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের লাইসেন্সিং বিধিমালা ২০২০ সংশোধনের দাবি একাধিকবার জানিয়ে আসলেও সংশিষ্ট কর্তৃপক্ষ বিষয়টি আমলে না নেয়ায় তারা অনিদৃষ্টকালের জন্য কর্মবিরতির পালন করায় মোংলা বন্দরসহ দেশের ১১টি শুল্ক স্টেশনে পণ্য খালাস কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।

 

কর্মবিরতি প্রথম দিনে (মঙ্গলবার) দিনভর কাস্টমসে সব ধরনের পণ্য খালাস কার্যক্রম থেকে বিরত থাকেন সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট ব্যবসায়ীরা। শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সিঅ্যান্ডএফ ব্যবসায়ীরা এ কর্মবিরতি পালন করছন বলে জানিয়েছেন সিঅ্যান্ডএফ নেতারা। কর্মবিরতির কারণে মোংলা বন্দরে পণ্য ছাড় বন্ধ থাকায় সরকারের রাজস্ব আহরণও বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। একইসঙ্গে বন্দরে পণ্যজটের আশঙ্কাও রয়েছে। তাই দ্রুত সমাধানের মাধ্যমে অচলাবস্থা নিরসনের দাবি জানিয়েছেন আমদানী ও রপ্তানীর সাথে জড়িত ব্যবসায়ীরা।  

news24bd.tv/আলী