বাজেটের ইতিহাস
বাজেটের ইতিহাস

সংগৃহীত ছবি

বাজেটের ইতিহাস

হোসাইন শাহাদাত

৭৮৬ কোটি টাকা থেকে বাজেটের আকার এখন পৌনে সাত লাখ কোটি টাকা। স্বাধীনতার পর ১৯৭২-৭৩ অর্থবছরে প্রথম বাজেট পেশ করেন তাজউদ্দিন আহমেদ। এখন পর্যন্ত সংসদে বাজেট পেশ করেছেন ১৩ জন। যার মধ্যে সবচেয়ে বেশি ১২ বার করে বাজেট দিয়েছেন এম সাইফুর রহমান এবং আবুল মাল আব্দুল মুহিত।

এ বছর দেশের ৫১ তম বাজেট উপস্থাপন করবেন আ হ ম মুস্তফা কামাল।  

১৯৭১ সালে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ শেষে রাষ্ট্র পুনর্গঠনে একটি বাস্তবমুখী বাজেট প্রণয়ন ছিল বঙ্গবন্ধু সরকারের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ। সীমিত সম্পদ আর বৈদেশিক সাহায্য নির্ভর সেই বাজেটের আকার ছিল ৭৮৬ কোটি টাকা। ১৯৭২ সালের ৩০শে জুন স্বাধীন বাংলায় প্রথমবারের মতো বাজেট পেশ করেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমেদ।

এরপর দেশের প্রথম চারটি বাজেটই পেশ করেন তাজউদ্দিন। সেই থেকে বর্তমান অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল পর্যন্ত ১৩ জন সংসদে বাজেট উপস্থাপন করেছেন। যাদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ১২ বার করে এই দায়িত্ব পালন করেছেন এম সাইফুর রহমান এবং আবুল মাল আব্দুল মুহিত। তবে টানা দশবার বাজেট পেশ করা একমাত্র অর্থমন্ত্রী এ এম এ মুহিত। পাঁচবার বাজেট উপস্থাপন করেছেন এম সাঈদুজ্জামান। তিন বার করে বাজেট দিয়েছেন জিয়াউর রহমান এবং বর্তমান অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

প্রথম বাজেটের পর এক হাজার কোটি টাকার বাজেট দিতে অপেক্ষা করতে হয়েছিল তিন বছর। এরপর ১০ হাজার কোটির ঘর পেরুতে  লেগেছে ১৪ বছর। ১৯৮৮ সালে মেজর জেনারেল মুনিমের বাজেটের আকার ছিল ১০ হাজার ৫৬৫ কোটি টাকা। তারও ২১ বছর পর এক লাখ কোটিতে উন্নীত হয় জাতীয় বাজেট। এরপর দশ বছরের মাথায় এর আকার পাঁচগুন বেড়ে ছাড়ায় পাচ লাখ কোটির ঘর।

অর্থনীতির আকার বাড়ার সাথে সাথে স্বাভাবিক প্রবণতা হিসেবে বাড়ে বাজেটের আকারও।  তবে আয় ব্যয়ের এই সমীকরণকে প্রথম বড় ভাবে দেখতে শুরু করেন আবুল মাল আব্দুল মুহিত। এ জন্য একের পর এক সম্প্রসারণমূলক বাজেট দিতে থাকেন সাবেক এই আমলা। ২০০৯-১০ অর্থবছরে তার প্রথম বাজেটের আকার ছিল ১ লাখ ১৮ হাজার কোটি। তখন থেকেই মূলত মেগা প্রকল্পসহ অবকাঠামো খাতে ব্যাপকহারে বিনিয়োগ করতে থাকে সরকার। ১০ বছরে, অর্থাৎ ২০১৮-১৯ অর্থবছরে বাজেটের অংক বেড়ে দাড়ায় ৪ লাখ ৬৪ হাজার কোটি টাকা।

সম্প্রসারণমূলক বাজেটের সেই ধারা বজায় রাখেন বর্তমান অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালও। চলতি অর্থবছরে তার বাজেটের আকার ছিল ৬ লাখ ৩ হাজার ৬৮১ কোটি টাকা। যার ধারাবাহিকতায় আগামী অর্থবছরেও ৭ লাখ ৭৮ হাজার কোটি টাকার বিশাল বাজেট দিতে যাচ্ছেন কামাল।

news24bd.tv/কামরুল