সানী-জায়েদের ‘চড় ও পিস্তল দেখানো’ নিয়ে যা জানালেন রোজিনা
সানী-জায়েদের ‘চড় ও পিস্তল দেখানো’ নিয়ে যা জানালেন রোজিনা

সানী-জায়েদের ‘চড় ও পিস্তল দেখানো’ নিয়ে যা জানালেন রোজিনা

অনলাইন ডেস্ক

সিনেমার মতোই কোটি টাকা কাবিনে বড় ছেলে শাদমান মনোয়ার অমিকে বিয়ে করালেন চলচ্চিত্রের মুভিলর্ডখ্যাত মনোয়ার হোসেন ডিপজল। শোনা যাচ্ছে, সেই বিয়ের আয়োজনেও ঘটেছে এক সিনেমাটিক ঘটনা। মৌসুমীর সঙ্গে খারাপ আচরণের জেরে জায়েদ খানকে চড় মারেন ওমর সানী। জায়েদও চুপ ছিলেন না, কোমর থেকে পিস্তল বের করে বলেন, ‘একেবারে গুলি করে দেব।

সেদিন ডিপজলের ছেলের বিবাহোত্তর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ঢাকাই ছবির দর্শকনন্দিত চিত্রনায়িকা রোজিনা। তিনি একটি গণমাধ্যমকে জানান, সন্ধ্যার একটু পরপরই আমি সেখানে যাই। শোবিজের অনেকেই সেখানে ছিলেন। সবার সঙ্গে দেখা হয়, সেলফি তুলতে থাকি। রাত ৯টার দিকে ওমর সানী সেখানে আসে। বেশ কয়েকবার ওর (ওমর সানী) সঙ্গে দেখা হয়েছে। যে টেবিলে খাবার খেলাম, সেদিকেও একবার আসতে দেখলাম। তাকে বেশ স্বাভাবিকই মনে হলো। জায়েদ খানকেও দেখলাম সবার সঙ্গে খোশ মেজাজে গল্প করতে। যে বিষয়টি (চড়কাণ্ড ও পিস্তল দেখানো) রটেছে, তার কিছুই তো দেখলাম না। আমি ৩ ঘণ্টার মতো সেখানে ছিলাম। ’

তিনি আরও বলেন, ‘সেখানে কয়েক হাজার মানুষ উপস্থিত ছিল। শত শত মানুষ মোবাইলে ভিডিও করছিল। এ ছাড়া ইভেন্টের লোকেরাও ভিডিও করছিল। কই, কোনো ফুটেজে তো এই ঘটনা দেখা যাচ্ছে না। ডিপজলের মতো বড় একজন মানুষের ছেলের বিয়ের আয়োজন, সেখানে এমন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটার তো প্রশ্নই আসে না। ’

রোজিনা সন্দেহ প্রকাশ করে বলেন, ‘আমার মনে হয়, তৃতীয় কোনো পক্ষের ইন্ধনে এসব ছড়ানো হচ্ছে। এভাবে সবার সামনে শোবিজের মানুষের ইমেজ নষ্ট করা মোটেই ঠিক হচ্ছে না। ’

অন্যদিকে পুরো ঘটনাটিকে ভিত্তিহীন দাবি করে ডিপজল জানিয়েছেন, ‘অনেক গণ্যমান্য অতিথিদের সঙ্গে ওমর সানী ও জায়েদকে আমিই অনুষ্ঠানে অভ্যর্থনা জানিয়েছি। যদি ধরেও নিই, তাদের মধ্যে কোনো মনোমালিন্য রয়েছে, তাহলে কি তারা একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে এসে এমন ঘটনা ঘটাবে? এটা কি বিশ্বাসযোগ্য? তারা তো শিল্পী, তারা জানে কোথায় কি ধরনের আচরণ করতে হয়। ফলে পুরো বিষয়টিই ভিত্তিহীন ও অসত্য। এখন কেউ কেউ যদি কোনো উদ্দেশ্য নিয়ে এ ধরনের কথা ছড়িয়ে থাকে, তাহলে বলব তারা ভালো কাজ করেনি। এত ক্ষুদ্র বিষয় নিয়ে কথা বলাও তো অশোভন। আমি মনে করি, যারা এসব কথা ছড়িয়েছে, তারা চলচ্চিত্রের বদনাম করার জন্য করেছে। যারা জায়েদ ও ওমর সানীর কথিত ঘটনা ছড়িয়েছে, তারা ভালো কাজ করেনি। এটি অত্যন্ত দুঃখজনক।

news24bd.tv তৌহিদ