কুষ্টিয়ায় শিক্ষার্থীকে প্রকাশ্যে খুরের আঘাত
কুষ্টিয়ায় শিক্ষার্থীকে প্রকাশ্যে খুরের আঘাত

সংগৃহীত ছবি

কুষ্টিয়ায় শিক্ষার্থীকে প্রকাশ্যে খুরের আঘাত

অনলাইন ডেস্ক

কুষ্টিয়ায় কলকাকলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের আবির নামে এক শিক্ষার্থীকে প্রকাশ্যে খুর দিয়ে আঘাত করার অভিযোগ উঠেছে জেলা স্কুলের শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে। এ সময় স্কুলে হামলা ও ভাঙচুর চালানো হয় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন। সোমবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

আহত শিক্ষার্থী আবির বর্তমানে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। আবিরের বাড়ি জেলা স্কুলের সামনে মজমপুর এলাকায়। তার বাবার নাম মোহাম্মদ শাহজাদা।  

কলকাকলি স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা জানান, পরীক্ষা শেষে ছেলে-মেয়েরা বাড়ি ফিরছিলো। এ সময় জেলা স্কুলের একদল শিক্ষার্থী লাঠি ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে স্কুলে হামলা চালায়। এসময় আবিরকে খুর দিয়ে ডান পায়ের রানে আঘাত করা হয়। শিক্ষকরা বাধা দিতে গেলে তাদের ওপরও চড়াও হয় বলে জানান প্রত্যক্ষদর্শীরা।  

এ বিষয়ে কলকাকলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জেবুননেসা সবুজ বলেন, জেলা স্কুলের ছেলেরা আমাদের স্কুলে হামলা করেছে। এসময় আমাদের এক ছাত্রকে খুর দিয়ে আঘাত করেছে তারা। স্কুলের দুটি ভবনের সব জানালা ভেঙে দিয়েেছ তারা। এ বিষয়ে আমরা থানায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি।  

আবিরের বাবা শাহাজাদা বলেন, 'সংগ্রামের নেতৃত্বে হামলা হয়েছে। তারা বিএসবি কিশোর গ্যাংয়ের সদস্য। আমার ছেলেতো নিরীহ। তাকে কেন মারা হলো। এ ঘটনায় আমি বিচার চাই। ’ 

পুলিশ জানায়, তিন দিন আগে কলকাকলী স্কুলের আরেক শিক্ষার্থী প্রদীপকে মারধর করেছে জেলা স্কুলের শিক্ষার্থীরা। তারা আবার পুলিশ লাইন্সের এক শিক্ষার্থীকে মারধর করে কলকাকলি স্কুলের কয়েকজন শিক্ষার্থী। সেই প্রতিশোধ নিতে জেলা স্কুলের শিক্ষার্থীরা হামলা চালিয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ বিষয়ে এখনও কোন মামলা হয়নি।

এ বিষয়ে কুষ্টিয়া জেলা স্কুলের প্রধান শিক্ষক এফতে খাইরুল ইসলাম বলেন,‘ সকালে ছেলেরা উত্তেজিত হয়। আমি তাদের ঠাণ্ডা করার চেষ্টা করি। তারা আমার কথা না শুনে পুলিশের সামনেই কলকাকলী স্কুলে গিয়ে এক ছাত্রকে খুর মেরেছে। স্কুলে ভাঙচুর চালিয়েছে। এটা লজ্জ্বাজনক। জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। '

news24bd.tv/কামরুল