বায়ু দূষণে দিল্লিবাসীর আয়ু কমেছে ১০ বছর
বায়ু দূষণে দিল্লিবাসীর আয়ু কমেছে ১০ বছর

সংগৃহীত ছবি

বায়ু দূষণে দিল্লিবাসীর আয়ু কমেছে ১০ বছর

অনলাইন ডেস্ক

পরিবেশ দূষণের কারণে ভারতের রাজধানী দিল্লিবাসীর  ১০ বছর আয়ু কমেছে বলে জানিয়েছে একটি গবেষণা। গবেষণায় আরও বলা হয়েছে, দিল্লিতে বায়ু দূষণের মাত্রা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) মান মেনে চললে সেখানকার নাগরিকরা ১০ বছর বেশি বাঁচবে। খবর  দ্যা হিন্দু, এনডিটিভি। সোমবার শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের এনার্জি পলিসি ইনস্টিটিউটের প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে এমন তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।

 

‘ইন্ট্রুডুসিং দ্য এয়ার কোয়ালিটি লাইফ ইনডেক্স’ (একিউএলআই) শিরোনামের ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতে বায়ুর মান ডব্লিউএইচও-এর মান পূরণ করলে দেশটির নাগরিকরা ৪.৩ বছর বেশি বাঁচবে। এ প্রতিবেদনের বক্তব্য ভারত সরকারের দেয়া তথ্য থেকে আরও ভয়ঙ্কর। এখানে আরও বলা হয়েছে যে উচ্চ দূষণের কারণে বেইজিং ও লস অ্যাঞ্জেলেসের বাসিন্দাদের গড় আয়ু যথাক্রমে ছয় বছর ও এক বছর কমে গেছে।

এ প্রতিবেদনে দেয়া তথ্যানুসারে, গত দু’দশকে ভারতের বায়ুতে সূক্ষ্ম কণার ঘনত্ব সামগ্রিকভাবে ৬৯ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। ১৯৯৮ সালে এ কারণে দেশটির সাধারণ মানুষের গড় আয়ু ২.২ বছর কমে গিয়েছিল। ২০১৬ সালের এক হিসেবে দেখা গেছে, ডব্লিউএইচও-এর মান মেনে চললে দেশটিতে মানুষের জন্মের সময় থেকে গড় আয়ু ৬৯ বছর থেকে ৭৩ বছর হতে পারত। এ কারণে ভারতে বায়ু দূষণের সমস্যা সমাধান করার বিষয়টি অনিরাপদ পানি ও দুর্বল স্যানিটেশনের সমস্যা সমাধানের চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

ওই সূচকে দেখা গেছে যে ইন্দো-গাঙ্গেয় সমভূমি পৃথিবীর সবচেয়ে দূষিত অঞ্চল। বলা হয়েছে, দূষণের বর্তমান মাত্রা অব্যাহত থাকলে পাঞ্জাব থেকে পশ্চিমবঙ্গ পর্যন্ত অর্ধশত কোটিরও বেশি মানুষের প্রত্যাশিত আয়ু কমবে গড়ে ৭.৬ বছর। এর ফলে ধূমপানের চেয়েও বেশি প্রাণঘাতী হয়ে উঠেছে বায়ু দূষণ। ধূমপানে আয়ু কমে ১.৫ বছর আর শিশু ও মাতৃ অপুষ্টিতে আক্রান্তদের কমে ১.৮ বছর।

প্রতিবেদনটির লেখকেরা বলছেন যে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ঝুঁকি বায়ু দূষণ। এর ঝুঁকি ভ্রুণ পর্যায় থেকে শুরু হয় বলে জানান তারা। এ বায়ু দূষণের কারণে ভারত ছাড়াও চীন ও বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের গড় আয়ু কমে যাচ্ছে।  

news24bd.tv/আলী 

;