কলেজ ছাত্রীকে ৩ দিন আটকে রেখে ধর্ষণ, ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার
কলেজ ছাত্রীকে ৩ দিন আটকে রেখে ধর্ষণ, ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার

প্রতীকী ছবি

কলেজ ছাত্রীকে ৩ দিন আটকে রেখে ধর্ষণ, ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার

অনলাইন ডেস্ক

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের এক কলেজছাত্রীকে প্রলোভন দেখিয়ে সিলেটে নিয়ে ৩ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় শহিদুল ইসলাম শহীদ (৫৫) নামে এক ব্যবসায়ীকে সিলেট থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তিনি সিলেট নগরীর ছড়ারপাড় সুগন্ধা-৪৭ বাসার মৃত আলী হোসেনের ছেলে। বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) দুপুরে সিলেট নগরীর লালদিঘীরপাড়স্থ তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে শহীদকে গ্রেপ্তার করে কমলগঞ্জ পুলিশের একটি টিম।

আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে কমলগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা হারুনুর রশীদ চৌধুরী বলেন, আসামি শহীদের বিরুদ্ধে কমলগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধনী)/০৩) এর ৭/৯(১)/৩০ ধারায় মামলা (১১(০৬)২০২২) রুজু করা হয়েছে। শুক্রবার আদালতের মাধ্যমে আসামিকে কারাগারে প্রেরণ করা হবে।

পুলিশ জানায়, কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের এইচএসসি পড়ুয়া কিশোরীকে (১৭) গত ৮ জুন ফুসলিয়ে পাহাড়িকা ট্রেনযোগে কমলগঞ্জ থেকে সিলেট নিয়ে যান অভিযুক্ত শহীদুল ইসলাম শহীদ। সিলেট নগরীতে এনে তাকে আটকে রেখে তিন দিন ধরে ধর্ষণ করেন। একপর্যায়ে মেয়েটি অসুস্থ হয়ে পড়ে। নিখোঁজ থাকায় কলেজছাত্রীর বাবা ১০ জুন কমলগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেন। ডায়রির সূত্র ধরে পুলিশ মেয়েটি খুঁজতে থাকে। পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিলেটে অভিযান চালিয়ে মেয়েটিকে উদ্ধার করে সিলেট এম এ জি ওসমানি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দিয়ে বাড়ি নিয়ে আসে।

কমলগঞ্জ থানার ওসি ইয়ারদৌস হাসান জানান, প্রাথমিকভাবে ভিকটিমের অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

news24bd.tv/কামরুল