‘নাশকতার আশঙ্কা থাকলে ১০ লাখ মানুষের সমাবেশ বাতিল করুন’
‘নাশকতার আশঙ্কা থাকলে ১০ লাখ মানুষের সমাবেশ বাতিল করুন’

‘নাশকতার আশঙ্কা থাকলে ১০ লাখ মানুষের সমাবেশ বাতিল করুন’

অনলাইন ডেস্ক

‘ইভিএম ছল-চাতুরির মেশিন’ মন্তব্য করে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, এখন সংবিধান সংস্কার করার সময় এসেছে। সংবিধানে মানবিক ও মৌলিক অধিকার থাকলেও ফ্যাসিবাদ চর্চার বিষয়ও রয়েছে। আওয়ামী লীগ কখনোও আন্দোলন গড়তে পারেনি, তারা আন্দোলন ভাঙতে পারে। আমরাই সর্বদা আন্দোলন গড়ে তুলেছি রাজপথে।

শুক্রবার (১৭ জুন) জাতীয় প্রেস ক্লাবে সংবিধান ও রাষ্ট্র পরিচালনার আইন-কানুন সংস্কার এবং অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গঠনের দাবিতে রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলন আয়োজিত আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

পদ্মা সেতু আওয়ামী লীগের ট্রাম্প কার্ড মন্তব্য করে মান্না বলেন, পদ্মা সেতু নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে কেন ধন্যবাদ দিতে হবে। এটি জনগণের টাকায় হয়েছে। সেতু উদ্বোধনের সময় তিন বাহিনীকে সতর্ক থাকতে বলেছেন শেখ হাসিনা। নাশকতার সম্ভাবনা আছে যদি মনেই করেন, তাহলে ১০ লাখ মানুষের সমাবেশ বাতিল করে ঘরে বসে উদ্বোধন করুন। আসলে আওয়ামী লীগ নিজেরা নাশকতা করে বিরোধীদলকে মামলা দেবে এটিই উদ্দেশ্য।  

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের মিডিয়া ও প্রচার সমন্বয়ক সৈয়দ হাসিবউদ্দিন হোসেন।

রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের আলোচনা সভায় বক্তব্যে গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি বলেন, শেখ হাসিনা শুধু নিরঙ্কুশ ক্ষমতা চান। আর এই নিরঙ্কুশ ক্ষমতা আজ বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বকে বিপদে ফেলেছে, যা ফ্যাসিবাদে রূপ নিয়েছে। উন্নয়নের মডেল টোপ দিয়েছিলেন আইয়ুব খান ও জেনারেল এরশাদ। শেখ হাসিনাও সেই উন্নয়নের টোপ দিচ্ছেন ফ্যাসিবাদী রাষ্ট্র কার্যকরকরণে।

শেখ হাসিনার নিরঙ্কুশ ক্ষমতা সমাজে বিভাজন ও নৈরাজ্য সৃষ্টি করেছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, শেখ হাসিনা চাইছেন আগামী নির্বাচনে কে জয়ী হবে, তা প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে ঘোষণা আসবে, কুমিল্লায় যেটি হয়েছে।

গণঅধিকার পরিষদের সদস্য সচিব নুরুল হক নুর বলেন, সরকার জনগণের কাছে দায়বদ্ধ নয়। তারা ক্ষমতায় থাকতে দায়বদ্ধতার উপায় মনে করছে বিভিন্ন বাহিনী ও ব্যবসায়ীদের। সরকারের পতন ঘটাতে হবে তাদেরকে ক্ষমতায় রেখে কোনো দাবি আদায় করা যাবে না।

news24bd.tv/তৌহিদ