‘সিলেট-সুনামগঞ্জে ১২২ বছরেও এমন বন্যা হয়নি’
‘সিলেট-সুনামগঞ্জে ১২২ বছরেও এমন বন্যা হয়নি’

‘সিলেট-সুনামগঞ্জে ১২২ বছরেও এমন বন্যা হয়নি’

অনলাইন ডেস্ক

‘সিলেট ও সুনামগঞ্জের বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ’ উল্লেখ করে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান জানিয়েছেন, বলা হচ্ছে, ১২২ বছরের ইতিহাসে সিলেট ও সুনামগঞ্জে এমন বন্যা হয়নি।

ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী শনিবার (১৮ জুন) বিকেলে সচিবালয়ে সার্বিক বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে এ কথা জানান।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ১০ জেলার ৬৪ উপজেলা বন্যা কবলিত। এর মধ্যে সিলেট ৬০ ভাগ, সুনামগঞ্জ ৮০-৯০ ভাগ তলিয়ে গেছে।

দুর্গতদের উদ্ধারে নৌযান অপ্রতুল। শুক্রবার ৩১ টি স্পিডবোট নিয়ে যোগ দেয় সেনাবাহিনী। শনিবার দুপুরে যোগ দিয়েছে কোস্টগার্ড।  

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছেন।

স্থানীয় সংসদ সদস্যরাও খোঁজখবর নিচ্ছেন।  

‘শুকনো খাবার, প্যাকেট খাবার পর্যাপ্ত আছে।  তীব্র স্রোতে অনেক পরিশ্রম করে সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী, কোস্টগার্ড উদ্ধার কার্যক্রম চালাচ্ছে।  উদ্ধার শেষ না হওয়া পর্যন্ত কার্যক্রম চালাবে সেনাবাহিনী’।

আগামী ৪৮ ঘণ্টায় বন্যা পরিস্থিতি অবনতি হবে জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেওয়া আছে, পানিবন্দী ও দুর্গতদের উদ্ধার ও সহায়তা দেওয়ার।

তিনি বলেন, বন্যাপ্রবণ প্রতিটি জেলা, উপজেলায় শেল্টারের ব্যবস্থা আছে। সুনামগঞ্জে ২০০ আশ্রয়কেন্দ্র। উদ্ধার করা হয়েছে ৬৫ হাজার এবং সিলেটে ৪৫০ আশ্রয় কেন্দ্র উদ্ধার  ২৫ হাজার।

‘এ পর্যন্ত ২ জেলায় ৮০ লাখ করে নগদ সহায়তা দেওয়া হয়েছে। ৫ কোটি টাকা হাতে আছে৷আরও ২০ কোটি টাকা চাওয়া হয়েছে৷’

‘তবে বিদ্যুৎ, যোগাযোগ ব্যবস্থা, মোবাইল নেটওয়ার্ক না থাকায় দুর্গতদের সঠিক পরিসংখ্যান দেওয়া কঠিন’ বলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী।

দেশের ১০ জেলার ৬৪ উপজেলা বন্যাকবলিত জানিয়ে এনামুর রহমান বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ দেশের সব সংস্থা একসঙ্গে কাজ করছে। প্রধানমন্ত্রী না ঘুমিয়ে উদ্ধার কার্যক্রম তদারকি করছেন।

news24bd.tv তৌহিদ