শিশুকে গাছে ঝুলিয়ে এ কেমন নির্যাতন!
শিশুকে গাছে ঝুলিয়ে এ কেমন নির্যাতন!

শিশুকে গাছে ঝুলিয়ে এ কেমন নির্যাতন!

নিজস্ব প্রতিবেদক

মাগুরার শ্রীপুরে আমলসার গ্রামে টিয়াপাখি চুরির অভিযোগ তুলে ১২ বছরের এক শিশুকে গাছে ঝুলিয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় জড়িত নূর ইসলামকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। তিনি ওই গ্রামের বশির মৌলবির ছেলে।

পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার আমলসার গ্রামের পশ্চিমপাড়ার কৃষি শ্রমিক শাহাবুদ্দিনের ছেলে জীবনকে আম পেড়ে দেওয়ার জন্য বশির মৌলভির বাড়িতে ডেকে নিয়ে যাওয়া হয়।

কিন্তু ওইদিনই তার বাড়ি থেকে একটি পোষা টিয়াপাখি হারিয়ে যায়। এ ব্যাপারে বশির মৌলবির ছেলে নূর ইসলাম জীবনকে অভিযুক্ত করে বুধবার নিজের বাড়ির একটি গাছে ঝুলিয়ে নির্মমভাবে নির্যাতন চালানো হয়।

এলাকাবাসী জানায়, টিয়াপাখি চুরির অভিযোগ দিয়ে নূর ইসলাম শিশুটিকে গাছে ঝুলিয়ে রাখলেও পরে স্থানীয় মাতবর মতলেব মিয়াসহ অন্যদের সম্মতিতে তার ওপর মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্মম নির্যাতন চালানো হয়। প্রায় এক ঘণ্টা ধরে চলা নির্যাতনের পরও শিশু জীবন চুরির কথা স্বীকার না করলে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এ ঘটনার পর জীবনের বাবা থানায় মামলা দায়ের করার চেষ্টা করলেও স্থানীয় মাতবররা সেটি করতে দেয়নি।

এদিকে বৃহস্পতিবার শাহাবুদ্দিন সন্তানের ওপর নির্যাতনের বিষয়ে শ্রীপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেন। কিন্তু দুইদিনেও পুলিশ এ বিষয়ে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। যে ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে নির্যাতনের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিলে পুলিশ প্রশাসনের টনক নড়ে বলে তারা জানিয়েছে।

মাগুরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কলিম উল্লাহ জানান, থানায় অভিযোগ পাওয়ার পর বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হয়েছে। এরই মধ্যে নির্যাতনের ছবি বিভিন্ন মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। তবে খবর পাওয়ার পর শুক্রবার রাতেই অভিযান চালিয়ে নির্যাতনের ঘটনায় জড়িত মূল অভিযুক্ত নূর ইসলামকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

নির্যাতনের ভিডিও

news24bd.tv তৌহিদ

সম্পর্কিত খবর