শেষ হলো ফিনিক্স ফটোগ্রাফি প্রদর্শনী
শেষ হলো ফিনিক্স ফটোগ্রাফি প্রদর্শনী

সংগৃহীত ছবি

শেষ হলো ফিনিক্স ফটোগ্রাফি প্রদর্শনী

অনলাইন ডেস্ক

নানা দেশের মানুষ, সেসব দেশের প্রকৃতি ও প্রাণীর বর্ণময় ছবিতে সারাবিশ্বের নানা প্রান্তের মানুষ-প্রকৃতি যেন উপস্থিত হয় বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভে। বর্ণিল সেসব ছবি নিয়ে ব্যতিক্রমী এক প্রদর্শনী চলে সেখানে। সোমবার (২০ জুন) ফিনিক্স ফটোগ্রাফিক সোসাইটির উদ্যোগে আগারগাঁওয়ের বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভে শুরু হয় তিন দিনের ‘ফিনিক্স ইন্টারন্যাশনাল ফটোগ্রাফি প্লানেট অ্যাওয়ার্ড এবং প্রদর্শনী’। কোভিডের কারণে ২০১৯-২০২০ এর প্রদর্শনী ও প্রতিযোগিতা এবার একসঙ্গে অনুষ্ঠিত হয়।

তিন দিনের ‘ফিনিক্স ইন্টারন্যাশনাল ফটোগ্রাফি প্লানেট অ্যাওয়ার্ড এবং প্রদর্শনী’ শেষ হলো আজ।

উদ্বোধনী আয়োজনে অংশ নেন ফিনিক্স ফটোগ্রাফিক সোসাইটির সভাপতি সৈয়দ সাখাওয়াত কামাল, সহ-সভাপতি সুলতানা নাসিরা, জেনারেল সেক্রেটারি মো. আনিসুর রহমান, সোসাইটির ইন্ডিয়ান রিপ্রেজেন্টেটিটিভ গোবিন্দ চক্র, ঢাকাস্থ ভূটান অ্যাম্বাসির মিনিস্টার কাউন্সিলর (ট্রেড) কাঞ্চো থিনলে প্রমুখ।

আয়োজন ঘুরে দেখে তারা বলেন, আলোকচিত্রের জন্য বিশ্বের বিশেষ কিছু জায়গা রয়েছে। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের দিক থেকে সেসব দেশ অনেক গুরুত্বপূর্ণ। বাংলাদেশ সেসব দেশের অন্যতম। বাংলাদেশের আলোকচিত্রীরাও নিজের কাজের মধ্য দিয়ে বিশ্বের কাছে তাদের দেশকে তুলে ধরতে পেরেছেন।

আন্তর্জাতিক এই আলোকচিত্র প্রতিযোগিতা এবং প্রদর্শনীতে অংশ নিতে ২০১৯ সালে ৪৫টি দেশ অংশগ্রহণ করেছে ও ছবি জমা পড়েছে ১ হাজার ৫২৩টি। ২০২০ সালে ৬২টি দেশ অংশগ্রহণ করেছে ও ছবি জমা পড়েছে ৬ হাজার ৭৩২টি। সেখান থেকে বাছাই করা ১০০টি ছবি নিয়ে শুরু হয় এ প্রদর্শনী।

প্রদর্শনী ঘুরে দেখা যায়, গ্যালারি জুড়ে স্থান পেয়েছে বৈচিত্র্যময় সব আলোকচিত্র। কোনো ছবিতে ভেসে উঠেছে মরুর দৃশ্য, আবার কোনো ছবিতে দেখা যাচ্ছে হিমশীতল বরফের দেশ। এ ছাড়ার বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর লোকাচার, সংস্কৃতি ও জীবনযাত্রাও উঠে এসেছে ছবিগুলোতে।

প্রদর্শনীতে স্থান পেয়েছে ফিনিক্স ফটোগ্রাফিক সোসাইটি ও ফটোগ্রাফিক সোসাইটি অব আমেরিকার নির্বাচিত আলোকচিত্রীদের ছবি। তিন দিনব্যাপী এ আয়োজন শেষ হয় ২২ জুন। আর ফিনিক্স প্ল্যানেট অ্যাওয়ার্ড ২০১৯ এবং ২০২০ এর উদ্দেশ্য হলো ফিনিক্স ফটোগ্রাফিক সোসাইটি কে বিশ্বের বুকে প্রতিষ্ঠিত করা।

news24bd.tv/আলী 

সম্পর্কিত খবর