বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার লোকসানে মাস্ক
বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার লোকসানে মাস্ক

বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার লোকসানে মাস্ক

অনলাইন ডেস্ক

চলতি বছরের শুরুর দিকে জার্মানি ও যুক্তরাষ্ট্রে দুটি কারখানা নির্মাণ করে ইলেকট্রিক গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টেসলা। তবে ব্যাটারি সংকটে নতুন এ দুই কারখানা দারুণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ব্যাহত হচ্ছে উৎপাদন। আর এতে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার লোকসান গুনছে হচ্ছে টেসলার মালিক ইলন মাস্ককে।

এ কথা নিজেই স্বীকার করেছেন বিশ্বের শীর্ষ ধনী।

তিনি বলেন, ‘চলতি বছরে করোনা ভাইরাসের প্রভাবে চীনের সাংহাইয়ে লকডাউন দেওয়া হয়। আর সেখানেই টেসলার একটি বড় ব্যাটারির কারখানা রয়েছে। উৎপাদন না হওয়ায় জার্মানি ও যুক্তরাষ্ট্রে নবনির্মিত কারখানায় সঠিকভাবে ব্যাটারি সরবারহ করা যাচ্ছে না। আর এতে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলারের ক্ষতি হচ্ছে। ’

সিলিকস ভ্যালিতে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে টেসলার প্রধান নির্বাহী মাস্ক বলেন, ‘বার্লিন ও অস্টিন কারখানায় যতটুকু আয়ের কথা ছিল তা হচ্ছে না। এটা শুধু আওয়াজ করছে। মানে হচ্ছে টাকার শব্দ আগুনে চলে যাচ্ছে। কারখানা দুটিতে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার লোকসান গুনতে হচ্ছে। কারখানাগুলোতে খরচের অনুপাতে উৎপাদন বাড়ানো যাচ্ছে না। ’

চলতি বছরের শুরুতে বার্লিন ও অস্টিনের কারখানাগুলোতে চালু করে টেসলা। তবে শুরু থেকেই এ দুটো কারখানা থেকে আশানুরূপ উৎপাদন হচ্ছে না বলে জানিয়ে আসছেন মাস্ক। এমনকি ব্যয় কমাতে প্রতিষ্ঠানের কর্মী ছাটাইয়ের কথা বলেছেন তিনি।
কেন উৎপাদন কমছে এ কথা জানিয়ে মাস্ক বলেন,‘বর্তমানে অস্টিনে সামান্য সংখ্যাক গাড়ি উৎপাদন হচ্ছে। এর কারণ চীনা বন্দরে ব্যাটারি আটকে রয়েছে। মূলত বন্দরে কাজ করার মতো কেউ নেই। বন্দর কর্তৃপক্ষকে এ নিয়ে মনোযোগ দেওয়া উচিত। ’

গত মাসের শেষের দিকে এ সাক্ষাৎকার দেন বিশ্বের শীর্ষ ধনী। তবে এর কিছু অংশ গত বুধবার প্রকাশ করা হয়।

করোনার প্রাদুর্ভাব ফের বাড়ায় চলতি বছরের শুরুর দিকে লকডাউন দেয় চীনা সরকার। ওই সময় সাংহাইয়ের মানুষদের অবাধ চলাচলে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়। আর এতেই ক্ষতির মুখে পড়েন মাস্ক।

news24bd.tv মামুন