২৫ জুন ,মঙ্গলবার, ২০১৯

শিরোনাম

> বিশেষ প্রতিবেদন

 

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

১৭ জুলাই ,মঙ্গলবার, ২০১৮ ২০:১৪:২০

‘আমাকে ক্রয়ফায়ারে দিতে চেয়েছিলেন ওসি’


‘আমাকে ক্রয়ফায়ারে দিতে চেয়েছিলেন ওসি’

শিক্ষানবিশ আইনজীবী সমর কৃষ্ণ চৌধুরী


পকেটে ইয়াবা ও অস্ত্র দিয়ে ফাঁসিয়ে গ্রেপ্তারের পর পুলিশ ক্রসফায়ারে মেরে ফেলার চেষ্টাও চালিয়েছিল বলে দাবি করেছেন চট্টগ্রামের শিক্ষানবিশ আইনজীবী সমর কৃষ্ণ চৌধুরী।

সদ্য জামিনে মুক্ত ষাটোর্ধ্ব এই ব্যক্তি এই দাবির পাশাপাশি বোয়ালখালী থানা হাজতে তার ওপর নির্যাতনের অভিযোগও তুলেছেন।বোয়ালখালীর ওসি হিমাংশু দাশ রানাসহ থানার কয়েকজন পুলিশ সদস্যের দিকে অভিযোগের আঙুল তোলেন তিনি।যদিও সমর চৌধুরীকে ফাঁসিয়ে দেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন ওসি হিমাংশু দাশ। 

বিষয়টি নিয়ে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার নূরে আলম মিনা বলেন, ‘এই ধরনের অভিযোগ আমিও পেয়েছি। মৌখিকভাবে অভিযোগ দিয়েছেন সমর চৌধুরী।’

অভিযোগ তদন্তের জন্য অতিরিক্ত এসপি (চট্টগ্রাম দক্ষিণ) এবং অতিরিক্ত এসপিকে (পটিয়া সার্কেল) দায়িত্ব দিয়েছেন জানিয়ে পুলিশ সুপার বলেন, ‘ইতোমধ্যে তদন্ত শুরু হয়ে গেছে। সত্যতা পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

জামিনে মুক্ত হলেও সমর চৌধুরীর নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত তার পরিবার।সমরের বড় মেয়ে বলেন, ‘গণমাধ্যম ও সাধারণ মানুষের সমর্থন থাকায় বাবাকে ফিরে পেয়েছি। কিন্তু তার ভবিষ্যত নিয়ে আমরা শঙ্কিত।

সমর চৌধুরী চট্টগ্রাম শহরে থাকলেও তার বাড়ি বোয়ালখালী উপজেলার দক্ষিণ সারোয়াতলী গ্রামে। ওই গ্রামের লন্ডনপ্রবাসী সঞ্জয় দাশের সঙ্গে তার কাকা স্বপন দাশের জমি নিয়ে বিরোধ আছে। স্বপন দাশকে আইনগত পরামর্শ ও সহযোগিতা দিয়ে আসছিলেন সমর চৌধুরী।

ওই ঘটনার জের ধরে সঞ্জয় দাশের প্ররোচনায় চট্টগ্রাম রেঞ্জের তৎকালীন ডিআইজি মনির-উজ-জামানের নির্দেশে সমরকে গেল ২৭ মে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। এরপর তাকে ইয়াবা ও অস্ত্র মামলার আসামি করা হয়।

সারাদেশে মাদকবিরোধী অভিযানের মধ্যে সমর চৌধুরীকে ইয়াবা আটকের মামলায় গ্রেপ্তার দেখায় পুলিশ। এই অভিযানে কথিত বন্দুকযুদ্ধে মৃত্যু নিয়ে মানবাধিকার সংগঠনগুলো প্রশ্ন তুলে আসছে।

সমর চৌধুরীকে ঘটনাটি প্রকাশ পেলে সমালোচনার ঝড় বয়ে যায়। এর মধ্যেই ডিআইজি মনির-উজ-জামানকে চট্টগ্রাম থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়।

কারাগার থেকে মুক্তির পর সমর চৌধুরী গণমাধ্যমকে তার ওপর নির্যাতনের বর্ণনা দেন।তিনি জানান, পুলিশ তার হাতে থাকা একটি স্বর্ণের ও একটি রূপার আংটি, মোবাইল সেট, নগদ ১২ হাজার টাকা ও মানিব্যাগ কেড়ে নিয়ে হাজতে আটকে রাখে।ওই সময় তার কয়েকজন স্বজন থানায় গেলেও তাদের ঢুকতে দেওয়া হয়নি।

তিনি বলেন, ‘রাতের বেলায় আমি ওসি হিমাংশু দাশকে দেখে তার পা জড়িয়ে ধরে কান্নাকাটি করি। তাকে বলি, তার দেওয়া নির্দেশনা অনুযায়ী স্বপন দাশের সাথে আর কোনো যোগাযোগ রাখিনি। এ সময় ওসি হিমাংশু আমাকে লাথি দিয়ে মাটিতে ফেলে দিলে মাথা ফেটে যায়। পরে পাশে দাঁড়ানো দুই কনস্টেবল আমার হাতে অস্ত্র ধরিয়ে দিয়ে ছবি তোলে।’

ওই সময় পুলিশের এক এসআই তাকে প্রসাব খাওয়াতে চেয়েছিলেন বলেও অভিযোগ করেন এই শিক্ষানবিশ আইনজীবী।

‘ওসি হিমাংশু বলে, শালাকে ফেলে দিয়ে আয়। এরপর হ্যান্ডকাফ লাগিয়ে আমাকে গাড়িতে তোলা হয়। ওইসময় আমি আমার মেয়ে ও স্ত্রীর কী হবে বলে আকুতি করলে তারা অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন।’

গাড়িতে করে তাকে চরণদ্বীপ এলাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছিল বলে জানান সমর। চোখ বাঁধা অবস্থায় কী করে চরণদ্বীপ বুঝলেন- প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, ‘ড্রাইভার কোথায় যাবে জানতে চাইলে তাকে বলেছিল, চরণদ্বীপ নিয়ে যেতে।’

সমর আরও বলেন, ‘আমি হ্যান্ডকাফটা একটু হাল্কা করে দিতে বললে একজন বলে, আর ২-৩ মিনিট আছে। তারপর তোকে তো বেহশতে পাঠিয়ে দেব’।

‘চরণদ্বীপ এলাকায় নিয়ে গিয়ে আমার চোখ খুলে দিয়ে চলে যেতে বলে। ওই সময় আমার মনের মধ্যে ভয় চলে আসে। আমি না গিয়ে তাদের সাথে দাঁড়িয়ে থাকি এবং ঠাকুরের নাম জপ করতে থাকি।’ 

সমরের ভাষ্য, ‘শেষ পর্যন্ত কিভাবে বেঁচে ফিরে এলাম, সেটা এখনো নিজেকে বিশ্বাস করাতে পারিনা।’


অরিন/নিউজ টোয়েন্টিফোর


 


টস জিতে অস্ট্রেলিয়াকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়েছে ইংল্যান্ড
নড়বড়ে ও পুরনো সেতুগুলো দ্রুত মেরামতের নির্দেশ
ভারতে যাত্রীবাহী বাস খাদে নিহত ৬
বিশ্বকাপে সেরা অলরাউন্ডার সাকিব
টেকনাফে মানবপাচার মামলার তিন আসামি 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত 
সাকিবের নৈপুণ্যে টাইগারদের দাপুটে জয়
'দেশের মানুষ কষ্ট পেলে বাবার আত্মা কষ্ট পাবে'
আফগানিস্তানের বিপক্ষে চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়েছে টাইগাররা
বিশ্বকাপে সাকিবের ১ হাজার রান পূর্ণ 
আফগানদের বিপক্ষে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ
বিএনপির কার্যালয়ের পাশে পাঁচটি ককটেল বিস্ফোরণ
'মানুষের জীবন নিয়ে কেউ যেন ছিনিমিনি খেলতে না পারে'
কলকাতায় শুটিংয়ে ব্যস্ত বাংলাদেশের শিল্পীরা
নিবন্ধন ও ফিটনেসবিহীন গাড়ির মালিকদের তথ্য চায় হাইকোর্ট
'বিকেলের মধ্যে উদ্ধার কাজ শেষ হবে'
সুবর্ণচরে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে জলদস্যু নিহত
সিলেটের সঙ্গে সারাদেশের রেল যোগাযোগও বন্ধ
বগুড়া-৬ আসনে ভোটগ্রহণ চলছে
কুলাউড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনায় ৪ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন
'মেডিকেল টেস্ট থেকে চিকিৎসকদের কমিশন নেয়া বিচ্ছিন্ন ঘটনা'
টস জিতে অস্ট্রেলিয়াকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়েছে ইংল্যান্ড
ঝিনাইদহে অস্ত্রসহ সন্ত্রাসী গ্রেপ্তার
পরিবারকে সময় দিতে ছুটিতে সাকিব 
ছাত্রদলের দুপক্ষে মারামারি, আহত ১০
নড়বড়ে ও পুরনো সেতুগুলো দ্রুত মেরামতের নির্দেশ
ভারতে যাত্রীবাহী বাস খাদে নিহত ৬
বিশ্বকাপে সেরা অলরাউন্ডার সাকিব
বগুড়া-৬ আসনে জয় পেলেন বিএনপির সিরাজ
টেকনাফে মানবপাচার মামলার তিন আসামি 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত 
সাকিবের নৈপুণ্যে টাইগারদের দাপুটে জয়
'দেশের মানুষ কষ্ট পেলে বাবার আত্মা কষ্ট পাবে'
ট্রাকের ধাক্কায় প্রতিবন্ধী যুবতী নিহত
সাবেক স্বামীর ছুরিকাঘাতে নারী জখম
টাঙ্গাইলে সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রীকে গণধর্ষ‌ণ
নেত্রীর সততাকে সম্বল করে আমরা এগিয়ে যাব: কাদের
আফগানিস্তানের বিপক্ষে চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়েছে টাইগাররা
লিটনের আউট নিয়ে বিতর্কে ঝড়
বিশ্বকাপে সাকিবের ১ হাজার রান পূর্ণ 
আফগানদের বিপক্ষে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ
বিএনপির কার্যালয়ের পাশে পাঁচটি ককটেল বিস্ফোরণ
যেভাবে উদ্ধার সোহেল তাজের ভাগ্নে সৌরভ
এইচআইভিতে আক্রান্ত ৪৬ জনকে শনাক্ত
রোগী দেখে ফেরার পথে লাশ হলেন চিকিৎসক
মার্কিন গোয়েন্দা ড্রোন ভূপাতিত করল ইরান
বিএনপির কার্যালয়ের পাশে পাঁচটি ককটেল বিস্ফোরণ
ঘুমন্ত ছোট ভাইকে হত্যা করল বড় ভাই
লিটনের আউট নিয়ে বিতর্কে ঝড়
ঢাবি ছাত্রীকে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ, গ্রেপ্তার ১
ফরিদপুরে এক বছর ধরে কাজের মেয়েকে ধর্ষণ
কাল ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে 
বাংলাদেশকে ৩৮২ রানের টার্গেট দিল অস্ট্রেলিয়া
ফেসবুকে প্রেম, জার্মান নারী এখন খুলনায়
বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে যা বলছে!
শতরানের জুটি গড়ে ফিরলেন মাহমুদউল্লাহ
ইরানকে এস-৪০০ নিতে বলল রাশিয়া
নি‌খোঁজের ১৬ ঘণ্টা পর শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার
ভারতকে মাটিতে নামাল আফগানরা 
ডিআইজি মিজানের সম্পদ ক্রোক ও হিসাব জব্দ
কুলাউড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনায় ৪ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন
লঞ্চে আগুন

সব খবর