গাছের ডাল কেন ঘরের চালে, ভাগ্নের ঘুষিতে মামার মত্যু
গাছের ডাল কেন ঘরের চালে, ভাগ্নের ঘুষিতে মামার মত্যু

গাছের ডাল কেন ঘরের চালে, ভাগ্নের ঘুষিতে মামার মত্যু

হুমায়ুন কবির সূর্য, কুড়িগ্রাম

কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে জমির সীমানা নিয়ে বিরোধে ভাগ্নের কিলঘুষিতে মারা গেছেন মামা মজির উল্যাহ (৬২)। বৃহস্পতিবার বিকেলে এ ঘটনার পর মামলা হলে শুক্রবার সকালে ভাগ্নে আসাদুল ইসলাম (৪৩) ও তার ছেলে আল আমিনকে (২১) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শুক্রবার সকালে মামা মজির উল্যাহর মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। দুপুরে গ্রেপ্তার আসাদুল ও আল আমিনকে আদালতের মাধ্যমে কুড়িগ্রাম জেল হাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

মামলার সূত্রে জানা যায়, মজির উল্লাহ ও তার প্রতিবেশী আসাদুল ইসলাম দূর সম্পর্কের মামা-ভাগ্নে। দুজনের বাড়ি সংলগ্ন একটি জমির সীমানা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে দুজনের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। ঘটনার দিন বৃহস্পতিবার বিকেলে ভাগ্নে আসাদুল ইসলামের জমির সীমনার মধ্যে অবস্থিত একটি কাঁঠাল গাছের ডাল মামা মজির উল্লাহর রান্না ঘরের চালের উপর পড়ে। এ নিয়ে তাদের মধ্যে বাক-বিতণ্ডার সৃষ্টি হয়। এরই এক পর্যায়ে উত্তেজিত হয়ে আসাদুল ও তার ছেলে আল-আমিন মামা মজির উল্লাহকে কিলঘুষি দিতে থাকে। এতে তিনি আঘাত সহ্য করতে না পেরে মাটিতে লুটিয়ে পরেন। সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

পরে পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশের সুরৎহাল শেষে মরদেহ উদ্ধার করে নাগেশ্বরী থানায় নিয়ে যায়। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে নিহতের ছেলে আহসান হাবিব বাদী হয়ে আসাদুল, তার মা আছমা (৫৯), স্ত্রী আর্জিনা খাতুন (৩৪) ও ছেলে আল-আমিনকে আসামি করে নাগেশ্বরী থানায় একটি এজাহার দায়ের করে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে নাগেশ্বরী থানার ওসি (তদন্ত) তামবীরুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পরে পরিবার থেকে মামলা হলে অভিযুক্ত আসাদুল ও আল-আমিনকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ। শুক্রবার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য এবং গ্রেপ্তার আসামিদের কুড়িগ্রাম আদালতে নেওয়া হয়।

news24bd.tv তৌহিদ