পদ্মা সেতু উদ্বোধন, কারাগারেও উৎসব
পদ্মা সেতু উদ্বোধন, কারাগারেও উৎসব

পদ্মা সেতু উদ্বোধন, কারাগারেও উৎসব

অনলাইন ডেস্ক

স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে টাঙ্গাইল জেলা কারাগারেও উৎসবের আমেজ। এই ঐতিহাসিক দিনটি আরও স্মরণীয় করে রাখতে সকল শ্রেণি পেশার মানুষের আনন্দের পাশাপাশি টাঙ্গাইল জেলখানার আসামিদের জন্য উন্নত মানের খাবারসহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন জেলা প্রশাসন।

শনিবার (২৫ জুন) জেলে বসেও পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আনন্দ উপভোগ করতে পেরে খুশি জেলখানায় থাকা মানুষজন।

জেলা প্রশাসন ও কারা-কর্তৃপক্ষ জানান, পদ্মা সেতুর উৎসবের আনন্দ সবার মধ্যে ছড়িয়ে দিতে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে টাঙ্গাইল কারাগারের সব বন্দির মধ্যে উন্নতমানের খাবার ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

তবে কারাগারের দেড় সহস্রাধিক বন্দির মধ্যে উন্নতমানের খাবার দেওয়া হয়। এ সময় টাঙ্গাইল জেলা শিল্পকলা একাডেমির শিল্পীসহ কারাগারের বন্দিরা পদ্মা সেতু নিয়ে নিজেদের লেখা গান পরিবেশন করেন।

মাদক মামলার আসামি ঘাটাইল সদর উপজেলার জুয়েল রানা বলেন, চার মাস ধরে টাঙ্গাইল কারাগারে আছি। এতদিন নিজেকে অপরাধী বা কারাবন্দি মনে হলেও আজ নিজেকে স্বাধীন মনে হচ্ছে। খুব আনন্দ উপভোগ করতে পারছি।

মধুপুরের মোস্তফা কামাল বলেন, পদ্মা সেতু উপলক্ষে কারাগারে উন্নতমানের খাবার ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও জেলা প্রশাসককে ধন্যবাদ জানাই। তাদের প্রতি আমরা কারাবন্দিরা কৃতজ্ঞ।

জেল সুপার মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ-আল-মামুন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত দিয়ে পদ্মা সেতু বাস্তবায়ন হয়েছে। জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ সুপারের সহযোগিতায় কারাগারে বিশাল আয়োজন হওয়ার জন্য আমি গর্বিত। এতে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনকে আমি ধন্যবাদ জানাই।

তিনি আরও বলেন, বন্দিরা করোনাভাইরাসের কারণে দুই বছর এত বড় আয়োজন কখনও দেখেনি। করোনার পর কারাগারে এটাই বড় আয়োজন। ১ হাজার ৪৯৩ বন্দির জন্য আয়োজন ছিল। ইতিপূর্বে খাবারের মান যাচাই করার জন্য একটু খেতাম। আজ বন্দিদের সঙ্গে খাবার খেতে পেরে আমরাও খুব আনন্দিত।

টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার বলেন, আজ বাংলাদেশের মানুষের জন্য বিশেষ দিন। সকলেই এই দিনে আনন্দ উপভোগ করবে এই প্রত্যাশা থেকে বন্দিদের জন্য এমন আয়োজন।

জেলা প্রশাসক ড. মো. আতাউল গনি বলেন, পদ্মার সেতুর আনন্দ থেকে যাতে কেউ বাদ না পড়ে সে জন্যই জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে টাঙ্গাইল কারাগারে উন্নতমানের খাবার ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। কারাবন্দিদের সঙ্গে আমরা অতিথিরাও খাবার খেয়ে আনন্দ ভাগাভাগি করে নিয়েছি।

এ সময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, জেলা প্রশাসক ড. মো. আতাউল গনি। জেল সুপার মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ-আল-মামুনের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবুল হাশেম, টাঙ্গাইল প্রেস ক্লাবের সভাপতি জাফর আহমেদ।

news24bd.tv তৌহিদ