বিয়ের ৭ দিন পর যুবকের দায়ের কোপে নববধূ নিহত
বিয়ের ৭ দিন পর যুবকের দায়ের কোপে নববধূ নিহত

মাদকাসক্ত প্রতিবেশি যুবক

বিয়ের ৭ দিন পর যুবকের দায়ের কোপে নববধূ নিহত

জুবাইদুল ইসলাম, শেরপুর

শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে মাদকাসক্ত প্রতিবেশি এক যুবকের দায়ের কোপে দিতি (১৮) নামে সদ্য বিবাহিতা এক নববধূ নিহত হয়েছেন। গতকাল বুধবার রাতে নালিতাবাড়ী পৌর শহরের কালিনগর মহল্লায় এ হত্যার ঘটনা ঘটে। নিহত নববধূ দিতি স্থানীয় মুছা মিয়ার মেয়ে।

পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানায়, নালিতাবাড়ী শহরের কালিনগর মহল্লার মৃত আব্দুল হামিদের ছেলে রহুল আমিন (২৫) মাদকাসক্ত।

তার প্রতিবেশি মুছা মিয়ার মেয়ে দিতির গত বৃহস্পতিবার উপজেলার চেল্লাখালী সন্যাসীভিটা এলাকায় খাইরুল নামে এক যুবকের সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের পর দিতিকে পিতার বাড়ি কালিনগর রেখে স্বামী খাইরুল পেশাগত কাজে কর্মস্থল ঢাকায় চলে যায়। বুধবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে রহুল আমিন তার ভাবি রাহেলাকে নিয়ে দিতিদের বাড়িতে যায়। এসময় রাহেলা দিতিকে দরজা খুলতে বললে দিতি দরজা খুলে দেয়। সাথে সাথেই মাদকাসক্ত রহুল আমিন দা নিয়ে দিতির মাথায় সজোরে কোপ দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে গুরুতর আহত হয় দিতি। পরে তার মা মনোয়ারা বেগমের চিৎকারে বাড়ির অন্যান্য লোকজন দৌড়ে এসে দিতিকে উদ্ধার করে নালিতাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। তবে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক দিতিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। ময়মনসিংহ নেওয়ার পথে রাত সাড়ে দশটার দিকে নকলা এলাকায় দিতির মৃত্যু হয়।

এদিকে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে এসে ঘাতক রহুল আমিনের ভাবি রাহেলাকে আটক করে রহুল আমিনকে খুঁজতে থাকে। একপর্যায়ে রাত সাড়ে এগারোটার দিকে রহুল আমিন নিজেই পুলিশের কাছে এসে হত্যার কথা স্বীকার করে ধরা দেয়।

পুলিশ জানিয়েছে, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। তবে এখনও পর্যন্ত হত্যাকাণ্ডের কারণ জানা যায়নি।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন সহকারী পুলিশ সুপার নালিতাবাড়ী সার্কেল আফরোজা নাজনীন ও নালিতাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বছির আহমেদ বাদল।

news24bd.tv/রিমু