১২২ দিন পর জীবিত হয়ে ফিরলেন সেই স্বামী
১২২ দিন পর জীবিত হয়ে ফিরলেন সেই স্বামী

সংগৃহীত ছবি

১২২ দিন পর জীবিত হয়ে ফিরলেন সেই স্বামী

অনলাইন ডেস্ক

নেত্রকোণার কলমাকান্দায় বড় ভাইকে হত্যার পর লাশ গুম করার অভিযোগে স্ত্রী-শ্বশুরের বিরুদ্ধে মামলা করেছিলেন ছোট ভাই। মামলার পর তদন্তে নামে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। তবে তদন্তে গিয়ে গুম হওয়া ব্যক্তিকে উদ্ধার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। সোমবার বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেন সিআইডির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খন্দকার সাইয়েদ আহমেদ।

উদ্ধার হওয়া ব্যক্তির নাম শাহজাহান। তিনি কলমাকান্দার সদর ইউনিয়নের আমতৈল গ্রামের ইউনুছ আলীর ছেলে। জামালপুরের নুরুন্দি শৈলেরকান্দা পীরের মাজার এলাকা থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। মামলার বাদীর নাম শাহজাহানের ছোট ভাই আবুল খায়ের। অভিযুক্তরা হলেন- শাহজাহানের স্ত্রী ২২ বছর বয়সী মিলি আক্তার ও শ্বশুর ৫০ বছরের ফজলু মিয়া।

সিআইডি জানায়, চলতি বছরের ১ মার্চ ভাবি ও তার বাবার বিরুদ্ধে বড় ভাই শাহজাহানকে হত্যার পর লাশ গুমের অভিযোগ এনে আদালতে মামলা করেন আবুল খায়ের। আদালতের নির্দেশে ওই দিন রাতে মামলাটি থানায় রেকর্ডভুক্ত হয়।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সবসময় কথা কাটাকাটি হতো। এ নিয়ে রাগ করে বাবাবাড়ি চলে যান মিলি আক্তার। ১৫ জানুয়ারি বিকেলে মিলি আক্তারের ফোন পেয়ে শ্বশুরবাড়ি যাবেন বলে বাড়ি থেকে বের হন শাহজাহান।

পরদিন আলী ওসমানকে (বাদীর ভাই) ফোনে ভাবি জানান, তার স্বামীকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। এ নিয়ে প্রথমে নিখোঁজের জিডি ও পরে আদালতে হত্যা মামলা করেন আবুল খায়ের।

সিআইডির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খন্দকার সাইয়েদ আহমেদ বলেন, মামলাটির তদন্তভার সিআইডি পাওয়ার পর বিষয়টি আমলে নেয়া হয়। পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি জামালপুরে রয়েছেন শাহজাহান। ১ জুলাই শৈলাকান্দা পীরের মাজার এলাকা থেকে তাকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। শাহজাহান আদালতে জবানবন্দিতে পরিবারে অশান্তি ও কলহের কারণে স্বেচ্ছায় সেখানে চলে গেছেন বলে জানান।
news24bd.tv/আলী