শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্টের ভবনে গোপন সুড়ঙ্গের সন্ধান  
শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্টের ভবনে গোপন সুড়ঙ্গের সন্ধান  

সংগৃহীত ছবি

শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্টের ভবনে গোপন সুড়ঙ্গের সন্ধান  

অনলাইন ডেস্ক

শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্টের সরকারি বাসভবনে আলমারির দরজা খুলতেই  পাওয়া গেল সিঁড়ি ও সুড়ঙ্গের সন্ধান। সেই সিঁড়ি ধাপে ধাপে নেমে গেছে অনেক নীচে। সিঁড়ি ধরে নামতে থাকলে থেমে যেতে হবে এক লোহার দরজার সামনে। সম্ভবত ওই দরজার ওপারেই রয়েছে গোপন সুড়ঙ্গ।

গুঞ্জন চলছে, সেই সুড়ঙ্গ দিয়েই কি পালিয়ে গেছেন প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসে?

শনিবার (৯ জুলাই) সকালে প্রেসিডেন্টের সরকারি বাসভবনে ঢুকে পড়ে বিক্ষোভকারীরা। তাদের দাবি, অনতিবিলম্বে পদত্যাগ দিতে হবে গোতাবায়াকে। এরপর থেকেই প্রেসিডেন্টের বাসভবনেই অবস্থান করছেন বিক্ষোভকারীরা।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়, সরকারি বাসভবনে ঢুকেই রীতিমতো তল্লাশি শুরু করে বিক্ষোভকারীরা। এ সময়ই তারা খুলে ফেলে নকল ওই আলমারির দরজা। তারপরই তাদের চোখে পড়ে সেই সিঁড়ি। এদিন বিক্ষোভকারীরা ঢুকে পড়ার কিছুক্ষণ আগেই সেখান থেকে পালিয়ে যান গোতাবায়া। মনে করা হচ্ছে, ওই সুড়ঙ্গ দিয়েই পালিয়ে গেছেন তিনি।

এদিন প্রেসিডেন্টের বাসভবনে পাওয়া যায় লাখ লাখ রুপি। যার পরিমাণ প্রায় ১ কোটি ৭৮ লাখ ৫০ হাজার রুপি। দুদিন পর সোমবার (১১ জুলাই) ওই রুপি আদালতে জমা দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে লঙ্কান পুলিশ।

শনিবার (৯ জুলাই) সকালে বিক্ষোভের এক পর্যায়ে প্রেসিডেন্টের বাসভবন টেম্পল ট্রিতে ঢুকে পড়ার পর এসব নগদ অর্থের সন্ধান পায় লঙ্কান জনতা। রোববার (১০ জুলাই) অনলাইন ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিও ফুটেজে বিক্ষোভকারীদের সেই রুপি গুনতে দেখা যায়।

পরে সেগুলো আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে তুলে দেয়া হয়। সোমবার পুলিশ সেগুলো আদালতে জমা দিয়েছে। এখন এর মালিকানা নিয়ে আইনি লড়াই চলবে।

সরকারি সূত্রের বরাত দিয়ে ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপিজানিয়েছে, ৭৩ বছর বয়সী গোতাবায়া রাজাপাকসে নৌবাহিনীর কর্মকর্তাদের পাহারায় পেছনের দরজা দিয়ে বেরিয়ে যান। তাকে একটি নৌকায় করে সরিয়ে নেয়া হয়।

গোতাবায়া এখন কোথায় আছেন, তা-ই এখন আলোচনায়। কোথায় আছেন, তা জানা না গেলেও অজ্ঞাত স্থান থেকে বার্তা দিয়েছেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে সোমবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ঘোষিত সময়েই পদত্যাগ করবেন বলে জানিয়েছেন পলাতক প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া।

আগামী বুধবার (১৩ জুলাই) দেশটির পার্লামেন্টের স্পিকারের কাছে তিনি পদত্যাগপত্র হস্তান্তর করবেন বলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় নিশ্চিত করেছে। এদিকে  একটি সর্বদলীয় অন্তর্বর্তী সরকার গঠনের ব্যাপারে ঐকমত্যে পৌঁছেছে দেশটির বিরোধী দলগুলো।

শ্রীলঙ্কার রাজনৈতিক দলগুলো রোববার বৈঠকে বসে। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, ১৩ জুলাই প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া পদত্যাগ করার পর সব দলের প্রতিনিধিদের নিয়ে একটি অন্তর্বর্তী সরকার গঠন করা হবে। একই সঙ্গে আগামী বছরের মার্চের আগে প্রেসিডেন্ট ও সংসদীয় নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

news24bd.tv/কামরুল

সম্পর্কিত খবর