বিএনপির আন্দোলনের সঙ্গে জনগণের সম্পর্ক নেই : হানিফ
বিএনপির আন্দোলনের সঙ্গে জনগণের সম্পর্ক নেই : হানিফ

সংগৃহীত ছবি

বিএনপির আন্দোলনের সঙ্গে জনগণের সম্পর্ক নেই : হানিফ

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সংসদ সদস্য মো. মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, বিএনপির সরকার পতনের আন্দোলন নিয়ে আওয়ামী লীগ ভাবে না। কারণ, যেকোনো আন্দোলনের সঙ্গে জনগণের সম্পৃক্ততা থাকলেই কেবল সফলতা পাওয়া যায়।

কুষ্টিয়া শহরের পিটিআই রোডের নিজ বাসভবনে আজ মঙ্গলবার সকালে সমসাময়িক রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মো. মাহবুব উল আলম হানিফ এ কথা বলেন।

মো. মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, তারেক রহমানের বিরুদ্ধে একাধিক সন্ত্রাসী ও দুর্নীতির মামলা রয়েছে।

প্রায় এক যুগ ধরে লন্ডনে আছেন। একজন দাগী সন্ত্রাসী কীভাবে সেখানে বসবাস করছেন, তা জাতি জানতে চায়।

তারেক রহমানের লন্ডনে অবস্থান প্রসঙ্গে হানিফ আরও বলেন, তিনি লন্ডনে আয়েশী জীবনযাপন করছেন। বিলাসবহুল বাড়ি, বিলাসবহুল গাড়ি, একাধিক কর্মকর্তা-কর্মচারী তার রক্ষণাবেক্ষণের জন্য নিয়োগ দিয়েছেন। এত টাকার উৎস কী, কীভাবে একজন আসামি দীর্ঘ সময় ধরে লন্ডনে অবস্থান করছেন—তার যৌক্তিকতা নিয়েও সরকার তদন্ত করবে।

হানিফ আরও বলেন, ২০১২ সালের পর থেকে বিএনপি সরকার পতনের আন্দোলন করে আসছে। প্রতিবছরই জনগণ শুনছে যে, এবারই সরকারের পতন ঘটে যাবে। বিএনপির সরকার পতনের এ আন্দোলন নিয়ে জনগনের কোনো ভাবনা নেই। জনগন এটা রসিকতা হিসেবেই বিবেচনা করে। আর, আওয়ামী লীগ এ নিয়ে ভাবে না, কারণ যেকোনো আন্দোলনে সঙ্গে জনগণের সম্পৃক্ততা থাকলেই কেবল সফলতা পাওয়া যায়। জনগণের সম্পৃক্ততা না থাকলে কোনো আন্দোলনই সফল হয় না। বিএনপির কোনো  আন্দোলনের সঙ্গে জনগণের কোনো সম্পর্ক নেই।

মো. মাহবুব উল আলম হানিফ আরও বলেন, ‘বিএনপি একটি সন্ত্রাসী ও লুটেরা দল হিসেবে জাতির কাছে চিহ্নিত। তারা রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় থাকতে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করেছে, রাষ্ট্রের সম্পদ লুণ্ঠন করেছে। সে লুণ্ঠনের টাকা নিয়ে লন্ডনে বসে ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে, এটা জাতি জানে। কাজেই এ ধরনের সন্ত্রাসী ও লুটেরা দলের কোনো কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জনগণের কোনো সম্পর্ক নেই। ’

এ সময় কুষ্টিয়া-৪ আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার সেলিম আলতাফ জর্জ, কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক শেখ হাসান মেহেদী, সাংগঠনিক সম্পাদক মাযহারুল আলম সুমনসহ স্থানীয় নেতাকর্মী ও সুধীজন উপস্থিত ছিলেন।
news24bd.tv/আলী