স্বামীহারা নারীদের টার্গেট করে ৪ বছরে ৭ বিয়ে
স্বামীহারা নারীদের টার্গেট করে ৪ বছরে ৭ বিয়ে

স্বামীহারা নারীদের টার্গেট করে ৪ বছরে ৭ বিয়ে

অনলাইন ডেস্ক

ভারতের তেলেঙ্গানা রাজ্যের ঘটনা এটি। মন্ত্রীর আত্মীয় পরিচয় দিয়ে গত চার বছরে সাতটি বিয়ে করেছেন এক যুবক। শুধু তাই না শ্বশুরবাড়ি থেকে হাতিয়ে নিয়েছেন লাখ লাখ টাকাও। বিয়ে করতে বিবাহ সংক্রান্ত ওয়েবসাইটে স্বামীহারা নারীদের টার্গেট করতেন শিবা নামে ওই যুবক।

পুলিশের বরাতে ভারতীয় গণমাধ্যম জানায়, প্রতারিত নারীদের অধিকাংশই উচ্চশিক্ষিত এবং উচ্চপদে কর্মরতা। অভিযুক্ত ওই ব্যক্তির নাম আদাপা শিবা শঙ্কর বাবু। বিবাহ সংক্রান্ত ওয়েবসাইটে স্বামীহারা নারীদের টার্গেট করতেন শিবা। তাদের সুখী দাম্পত্যের টোপ দিতেন। তাতেই ফাঁদে পড়তেন নারীরা। এছাড়াও কৌশলী শিবা বেছে বেছে ধনী বিধবা নারীদের ফাঁদে ফেলতেন। বিয়ের কিছুদিন পরেই জানাতেন, তাকে অফিসের কাজে যুক্তরাষ্ট্র যেতে হবে। তার জন্য শ্বশুরবাড়ি থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিত সে। সেই টাকা নিয়েই উধাও হতেন বাবু।

সম্প্রতি হায়দ্রাবাদ প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন দুই নারী। তারা জানান, বাবু নিজেকে ইঞ্জিনিয়ার বলে পরিচয় দিতেন। বলতেন সে বিপত্নীক। তার একটি সন্তান রয়েছে। নিজেকে একটি তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থার কর্মকর্তা বলেও দাবি করতেন বাবু। এমন অভিযোগ পেয়ে তদন্তে নামে হায়দ্রাবাদ পুলিশ।  

পুলিশ জানায়,  ২০১৮ সাল থেকেই বিয়েকে কার্যত পেশায় পরিণত করেছিলেন বাবু। বিভিন্ন থানায় তার নামে সাতজন নারী অভিযোগ করেন।

আরেকজন ভুক্তভোগী জানিয়েছেন, বাবু নিজেকে অন্ধ্রের এক মন্ত্রীর আত্মীয় ও এক বিজেপি নেতার ঘনিষ্ট বলেও দাবি করতেন। তিনি জানিয়েছিলেন, তার বাড়ি অন্ধ্রের গুন্টুর জেলার বেথাপুডি গ্রামে। যদিও এখনও পর্যন্ত অভিযুক্ত আদাপা শিবা শঙ্কর বাবুর খোঁজ পায়নি পুলিশ।

রামচন্দ্রপুরম থানার পুলিশ পরিদর্শক টি সঞ্জয় কুমার বলেন, বাবুর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

news24bd.tv তৌহিদ

সম্পর্কিত খবর