বাঁচানো গেল না লোকালয়ে আসা সেই চিত্রল হরিণটিকে
বাঁচানো গেল না লোকালয়ে আসা সেই চিত্রল হরিণটিকে

বাঁচানো গেল না লোকালয়ে আসা সেই চিত্রল হরিণটিকে

বাগেরহাট প্রতিনিধি

সুন্দরবন থেকে বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলার লোকালয়ে ঢুকে পড়া অন্তঃসত্ত্বা একটি চিত্রল হরিণ উদ্ধার করে সুন্দরবনে ফিরিয়ে নেওয়ার ২০ ঘণ্টা পর সোমবার ভোরে মারা গেছে হরিণটি।

সোমবার সকালে সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জ সংলগ্ন বনে মৃত চিত্রল হরিণটি মাটি চাঁপা দিয়ে রাখা হয়েছে।

সুন্দরবনের শরণখোলা স্টেশন কর্মকর্তা মো. আসাদুজ্জামান আসাদ জানান, রোববার বিকেলে বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলার সোনাতলা গ্রামে চলে যাওয়া অন্তঃসত্ত্বা একটি চিত্রল হরিণ উদ্ধার করা হয়। হরিণটি অন্তঃ সত্ত্বা হওয়ায় গ্রামবাসীর তাড়া খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে এবং তার বাঁ চোখে আঘাতপ্রাপ্ত হয়।

প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বনে ছেড়ে দেওয়ার পরে হরিণটি হাটতে পারছিল না। এই অবস্থায় শরণখোলা উপ সহকারি প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা মো. সিরাজুল ইসলামকে সন্ধ্যায় শরণখোলা স্টেশন অফিসে নিয়ে এসে হরিণটির চিকিৎসা দেওয়া হয়। আমাদের সব চেষ্টার পরও চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার ভোরে মারা যায় হরিণটি। সোমবার সকালে সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জ সংলগ্ন বনে মৃত চিত্রল হরিণটি মাটি চাঁপা দিয়ে রাখা হয়েছে।

রোববার বিকেলে সুন্দরবন সংলগ্ন সোনাতলা গ্রামের সগির ঘরামির বাড়ির পাশে চলে আসে হরিণটি। এরপর ভিলেজ রেস্পন্স টিম (বিটিআরটি), বাঘ বন্ধু ও গ্রামবাসী মিলে হরিণটি উদ্ধার করে বন বিভাগের কাছে হস্তান্তর করে। একইদিন সকালে সোনাতলা গ্রামের জাহাঙ্গীর হাওলাদারের বাড়ি থেকে ৯ ফুট লম্বা ১২ কেজি ওজনের একটি অজগর উদ্ধার করে ভিটিআরটি ও ওয়াইল্ড টিমের সদস্যরা সুন্দরবনের ভোলা টহল ফাঁড়ির বনরক্ষীদের কাছে হস্তান্তর করেন।
news24bd.tv তৌহিদ