মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানো প্রক্রিয়া চলছে : কর্মসস্থান মন্ত্রী
মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানো প্রক্রিয়া চলছে : কর্মসস্থান মন্ত্রী

মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানো প্রক্রিয়া চলছে : কর্মসস্থান মন্ত্রী

ফেরদৌস আরেফিন

মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানো প্রক্রিয়া চলছে বলে জানালেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ। নিউজ টোয়েন্টিফোরকে তিনি জানিয়েছেন, কর্মী নিয়োগ থেকে রিক্রুটিং এজেন্সি নির্বাচন, পুরোটাই নির্ধারণ হচ্ছে মালয়েশিয়া থেকে। অন্যদিকে রিক্রুটিং এজেন্সিগুলোর সংগঠন বায়রার সাবেক মহাসচিব রুহুল আমিন স্বপনের অভিযোগ, বড় শ্রমবাজারের এই সম্ভাবনাকে মিথ্যা তথ্য দিয়ে আবারো সংকটের মুখে ফেলার অপচেষ্টা চলছে।

২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর থেকে বন্ধ থাকা মালয়েশিয়ার শ্রমবাজারে আবারও কর্মী পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর যে পদ্ধতি ও প্রক্রিয়ায় অনুসরণ হচ্ছে, তাতে যাচাইবাছায়ের সবটুকুই মালয়েশিয়ার হাতে।

প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী জানিয়েছেন, জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো-বিএমইটির ডাটা ব্যাংক থেকেই কর্মী নিয়োগ হবে। তাই আগ্রহীদের নিবন্ধন করে রাখার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

দেশের কোনো কোনো রিক্রুটিং এজেন্সি লোক পাঠাবে তাও নির্বাচন করছে মালয়েশিয়া। তবে বায়রার সাবেক মহাসচিবের অভিযোগ, সংগঠনের নির্বাচনকে ঘিরে ব্যক্তি স্বার্থে বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়ানো হচ্ছে।

দু’দেশের সমঝোতায় ঠিক হয়েছে, কর্মী নেওয়ার বিমান ভাড়াসহ মালয়েশিয়া অংশের যাবতীয় খরচ বহন করবে নিয়োগদাতা। আর পাসপোর্ট, মেডিকেল, কল্যাণ বোর্ড সদস্য ফিসহ আনুষঙ্গিক খরচ বহন করবেন কর্মী।

এখন পর্যন্ত ২ লাখ নতুন কর্মী নিতে সম্মত মালয়েশিয়া। দক্ষলোক পাঠাতে পারলে দ্বিগুণেরও বেশি শ্রমশক্তি রপ্তানির আশা বাংলাদেশের।

news24bd.tv তৌহিদ