১৩৫০ কোটি বছর আগের ছায়াপথের সন্ধান
১৩৫০ কোটি বছর আগের ছায়াপথের সন্ধান

১৩৫০ কোটি বছর আগের ছায়াপথের সন্ধান

চন্দ্রানী চন্দ্রা

মহাবিশ্বের সাড়া জাগানো ছবি দেখানোর মাত্র এক সপ্তাহ পর নতুন এক ছায়াপথের সন্ধান দিয়েছে নাসার জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপ। ছায়াপথটি সম্ভবত ১৩৫০ কোটি বছর আগের। এটি গ্লাস-জেড থার্টিন নামে পরিচিত। এদিকে পৃথিবীর বাইরে লালগ্রহ মঙ্গলে এবার অদ্ভুত এক প্যাঁচানো বস্তু ছবি পেয়েছেন বিজ্ঞানিরা।

একের পর এক চমক দিয়েই যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান নাসার জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপ। নতুন এক ছায়াপথের সন্ধান দিয়েছে টেলিস্কোপটি। হার্ভার্ড সেন্টার ফর অ্যাস্ট্রোফিজিকসের গবেষকরা জেমস ওয়েবের তথ্য বিশ্লেষণ করে নতুন এই ছায়াপথের খোঁজ পাওয়ার কথা বলেন। ছায়াপথটি ১ হাজার ৩৫০ কোটি বছর আগের।

এটি গ্লাস-জেড-১৩ নামে পরিচিত।

বৃহস্পতিবার গবেষকরা জানান, মহাবিস্ফোরণের বিগ ব্যাং ৩০ কোটি বছর পরে গ্লাস-জেড ১৩ ছায়াপথের সৃষ্টি। এর আগে সবচেয়ে প্রাচীন যে ছায়াপথ শনাক্ত করা হয়েছিল, তার চেয়ে এটি ১০ কোটি বছর বেশি প্রাচীন।

মহাজাগতিক বস্তু যত বেশি দূরে থাকে, তার আলো পৃথিবীতে আসতে তত বেশি সময় নেয়। তাই দূরের মহাবিশ্বে ফিরে তাকানো মানে গভীর অতীতে দেখা। যদিও গ্লাস- জেড ১৩ মহাবিশ্বের প্রথম যুগে বিদ্যমান ছিল, তবে এর সঠিক বয়স অজানা রয়ে গেছে।

এদিকে মঙ্গলের বালিতে পড়ে থাকা পেঁচানো সুতো বা তারের কুণ্ডলির মতো দেখতে বস্তুর ছবি ধরা পড়েছে নাসার রোভার পারসিভের্যান্সের ক্যামেরায়। গত ১২ জুলাই রোভারের সামনে বাঁ পাশের ক্যামেরাটি হালকা রঙের ওই বস্তুর ছবি তুলেছে, যাকে নুডুলসের সঙ্গে তুলনা করা হচ্ছে। নাসার বিজ্ঞানীদের অনুমান, রোভারের অবতরণের সময়ই ওই বস্তুটি মঙ্গলের মাটিতে পড়েছে।

news24bd.tv তৌহিদ