ফেনীতে সেপটিক ট্যাংকে বিস্ফোরণ, নিহতদের বাড়িতে শোকের মাতম
ফেনীতে সেপটিক ট্যাংকে বিস্ফোরণ, নিহতদের বাড়িতে শোকের মাতম

ফেনীতে সেপটিক ট্যাংকে বিস্ফোরণ, নিহতদের বাড়িতে শোকের মাতম

ফেনীতে সেপটিক ট্যাংকের বিস্ফোরণে নিহত তিন সহোদরের বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলার পঞ্চকরণ গ্রামের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম। পঞ্চকরণ গ্রামের মৃত সৈয়দ আলী মুন্সীর ৩ ছেলে গত ২০ বছর ধরে ফেনীতে দিন মজুরের কাজ করত। ফেনী শহরের নাজির রোড এলাকার রহুল আমিন ভবনের নিচতলায় সেপটিক ট্যাংকের ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন নুর ইসলাম মুন্সি, মনিরুজ্জামান মুন্সী ও আব্দুর রহমান মুন্সি।

আজ মঙ্গলবার সকাল ১১ টার দিকে সেপটিক ট্যাংক বিস্ফোরণে নিহত তিন সহোদর।

এখর বাড়িতে পৌঁছালে নিহত নুর ইসলাম মুন্সির ২ ছেলে ৩ স্ত্রী, নিহত মনিরুজ্জামান মুন্সীকে এক বছর আগে তালাক দিয়ে স্ত্রী চলে গেলেও বাড়িতে থাকা ২ ছেলে বার বার মূর্চ্ছা যাচ্ছেন। নিহত আব্দুর রহমান মুন্সি এখনো বিয়ে করেননি। পঞ্চকরন গ্রামজুড়ে নেমে এসছে শোকের ছায়া। গ্রামবাসী হতদরিদ্র ওই পরিবারটির বাড়িতে গিয়ে তাদের সান্ত্বনা দেওয়ার ভাষাও হারিয়ে ফেলছেন।

নিহত তিন সহোদর ছোট ভাই আল-আমিন মুন্সি জানান, আমরা সংবাদ পেয়েছি। মরদেহ বাড়িতে আনার জন্য রওয়ানা দিয়েছি। লাশ বাড়িতে আসার পরই মঙ্গলবার জানাজার সময় নির্ধারণ হবে।

পঞ্চকরন ইউনিয়ন পপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক মজুমদার জানান, নিহত তিন ভাই ২০ বছর ধরে ফেনীতে দিন মজুরের কাজ করত। হতদরিদ্র ওই পরিবারটিকে সান্ত্বনা দেওয়ার ভাষাও হারিয়ে ফেলেছি।

ফেনীতে তিন সহোদরের ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ গ্রামের বাড়িতে এনে দাফন দেওয়া হবে।

news24bd.tv তৌহিদ