উদ্ধার হওয়া সোনার ২৫ শতাংশ পুরস্কার হিসেবে দেওয়ার অনুরোধ বাজুস সভাপতির
উদ্ধার হওয়া সোনার ২৫ শতাংশ পুরস্কার হিসেবে দেওয়ার অনুরোধ বাজুস সভাপতির

উদ্ধার হওয়া সোনার ২৫ শতাংশ পুরস্কার হিসেবে দেওয়ার অনুরোধ বাজুস সভাপতির

উদ্ধার হওয়া সোনার ২৫ শতাংশ পুরস্কার হিসেবে দেওয়ার অনুরোধ বাজুস সভাপতির

অনলাইন ডেস্ক

সোনা চোরাচালান বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ এবং চোরাচালান প্রতিরোধ কার্যক্রমে উদ্ধার হওয়া সোনার ২৫ শতাংশ কাস্টমসের সদস্যদের মাঝে পুরস্কার হিসেবে বিতরণের অনুরোধ জানিয়েছেন বাংলাদেশ জুয়েলার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বাজুস) সভাপতি সায়েম সোবহান আনভীর। জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম বরাবর দেওয়া এক চিঠিতে এ অনুরোধ জানান তিনি।  

চিঠিতে বাজুস সভাপতি লেখেন, 'শুভেচ্ছা জানবেন। আপনার দক্ষতা ও বিচক্ষণতা আমাদের মুগ্ধ করেছে।

চোরাচালান প্রতিরোধে আপনার ভূমিকার জন্য বাজুসের পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি'।

তিনি লেখেন, 'কোন দুষ্কৃতিকারী, চোরাকারবারী যাতে দেশবিরোধী ও অবৈধ কর্যক্রম পরিচিলনা করতে না পারে সে লক্ষ্যে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ ধারাবাহিকভাবে বিভিন্ন অভিযান পরিচালনা করে আসছে। সারা দেশে সোনা চোরাচালান বহুলাংশে কমেছে। অনেক চোরাকারবারীকে আইনের আওতায় এনে শাস্তি প্রদান করা হয়েছে। এতে সরকারের রাজস্ব আয় বাড়ছে'।  

বাজুস সভাপতি আরও লেখেন, 'অবৈধ উপায়ে কোনো চোরাকারবারী যেন সোনা বা অলংকার দেশে আনতে এবং বিদেশে পাচার করতে না পারে সে জন্য আপনার অধীনস্থ সকল সংস্থাকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদানের অনুরোধ করছি'।

'চোরাচালান প্রতিরোধ করতে গিয়ে কাস্টমস কর্তৃপক্ষসহ সকল আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসমূহের সদস্যদের মাধ্যমে উদ্ধার হওয়া সোনার মোট পরিমাণের ২৫ শতাংশ সংস্থাসমূহের সদস্যদের পুরস্কার হিসেবে প্রদানের অনুরোধ করছি। চোরাচালান প্রতিরোধে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসমূহের সদস্যদের উৎসাহ দিতেই বাজুসের এই প্রস্তাবনা বলে জানান সংগঠনটির সভাপতি সায়েম সোবহান আনভীর।

বাজুসের আশা, তাদের এই প্রস্তাব বাস্তবায়িত হলে সোনা চোরাচালান প্রতিরোধ কার্যক্রম আরো বেগবান হবে। ফলে দেশের বৈদেশিক মুদ্রার অপচয় কমবে।

news24bd.tv/desk