বাংলাদেশের ৯৮ শতাংশ পণ্যে শুল্কমুক্ত রফতানি সুবিধা দেবে চীন
বাংলাদেশের ৯৮ শতাংশ পণ্যে শুল্কমুক্ত রফতানি সুবিধা দেবে চীন

সংগৃহীত ছবি

বাংলাদেশের ৯৮ শতাংশ পণ্যে শুল্কমুক্ত রফতানি সুবিধা দেবে চীন

অনলাইন ডেস্ক

চীনের অভ্যন্তরীণ বাজারে বাংলাদেশের ৯৯ শতাংশ পণ্য কোনোরকম শুল্ক ছাড়া দেশটিতে রফতানি করতে পারবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে চীন।  চলতি বছরের ১ সেপ্টেম্বর থেকে এটি কার্যকর হবে। রোববার (৭ আগস্ট) ঢাকায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন ও চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই-র মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক শেষে এসব কথা জানিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম।  

প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম সাংবাদিকদের বলেন, চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন বাংলাদেশি পণ্য রফতানির ক্ষেত্রে তার দেশ বাংলাদেশকে আরও ১ শতাংশ পণ্য শুল্কমুক্ত সুবিধা দেবে।

এতে বাংলাদেশ তার রফতানি পণ্যের মোট ৯৮ শতাংশই শুল্ক ছাড়া চীনে রফতানি করতে পারবে।

তিনি আরো জানান, বৈঠকে চীনের সঙ্গে ৪টি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। এর মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে মেরিন সায়েন্স শিক্ষা বিষয়ক, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিষয়ে এবং সাংস্কৃতিক বিনিময় বিষয়ক চুক্তি হয়েছে। চতুর্থ চুক্তিটির বিষয়ে লিখিতভাবে জানানো হবে।

উল্লেখ্য, চীন সর্বপ্রথম ২০১০ সালের ১ জুলাই স্বল্পোন্নত দেশগুলোকে সে দেশের বাজারে শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকার সুবিধা প্রদান করে। ওই সুবিধার আওতায় বাংলাদেশসহ ৩৩টি স্বল্পোন্নত দেশ চীনের ৬০ শতাংশ শুল্কমুক্ত সুবিধা পায়।

পরে ২০২০ সালের ১৬ জুন শর্তহীনভাবে বাংলাদেশের ৯৭ শতাংশ রফতানি পণ্য (৮ হাজার ২৫৬টি পণ্য) দেশটির বাজারে শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকার দেয় চীন, যা ওই বছরের ১ জুলাই কার্যকর হয়। এরপর ২০২২ সালের শুরুতে বাংলাদেশ আরও ১ শতাংশ পণ্যকে (৩৮৩টি) শুল্কমুক্ত সুবিধা দেয় দেশটি।  চীনে বাংলাদেশের প্রধান রফতানি পণ্য হচ্ছে ওভেন গার্মেন্টস, নিটওয়্যার, হোম টেক্সটাইল, চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য, পাদুকা, পাট ও পাটজাত পণ্য এবং প্লাস্টিক পণ্য।

news24bd.tv/আজিজ