মৃত্যুর ৮ বছরেও সমাহিত হয়নি খোকন নন্দির মরদেহ 

দুই স্ত্রীর টানাটানিতে 

মৃত্যুর ৮ বছরেও সমাহিত হয়নি খোকন নন্দির মরদেহ 

হাবিবুল ইসলাম হাবিব

কে হবেন উত্তরাধিকার এই প্রশ্নে দীর্ঘ ৮ বছর ধরে হাসপাতালের মর্গে পড়ে আছে ঢাকার ধনাঢ্য ব্যক্তি খোকন নন্দির মরদেহ। তার প্রথম স্ত্রী সনতন ধর্মের আর দ্বিতীয় স্ত্রী মুসলমান হওয়ায় মৃত্যুর পর দুই স্ত্রীই দাবি করে আসছেন স্ব স্ব ধর্ম অনুযায়ী দাফন কিংবা সৎকার করবেন। বিষয়টি আদালত পর্যন্ত গড়ালেও এত বছরেও এর সমাধান হয় নি। এতে বিষ্ময় প্রকাশ করে সর্বোচ্চ আদালতের শক্ত পদক্ষেপ ছাড়া এর সমাধান সম্ভব নয় বলে মনে করছেন আইনজীবীরা।

 

দাফন নাকি সৎকার? কোন রীতিতে সমাহিত হবে খোকনের মরদেহ। এমন প্রশ্নে ঢাকা মেডিকেলের মর্গের হিমঘরে ৮ বছর পড়ে আছে ঢাকার ধনাঢ্য ব্যাক্তি খোকন নন্দির মরদেহ। প্রায় ৭০ বছর বয়সী খোকন নন্দি ওরফে খোকন চৌধুরী রাজধানীর বারডেম হাসপাতালে মারা যান ২০১৪ সালের ২৬ জুন। প্রথমে তাঁর লাশ রাখা হয় বারডেমের হিমঘরে।

সেখানে দীর্ঘ মেয়াদে সংরক্ষণের ব্যবস্থা না থাকায়  আদালতের আদেশে ঢাকা মেডিকেলের মর্গে রয়েছে মরদেহটি। খোকন নন্দীর প্রথম স্ত্রী সনাতন ধর্মের হওয়ায় তিনি চান সৎকার। আর দ্বিতীয় স্ত্রী মুসলমান ধর্মের হওয়ায় স্বামীর মরদেহ দাফন করতে চাইলে বাধে বিপত্তি।

ক্যামেরায় কথা বলতে না চাইলেও মোবাইল ফোনে খোকন নন্দীর দ্বিতীয় স্ত্রী হাবিবা আক্তারের দাবি, ১৯৮০ সালে প্রথম শ্রেণীর ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে হলফ নামায় মুসলমান ধর্ম গ্রহণ করেন খোকন। পরে ১৯৮৪ সালের ১৫ই জুলাই বিয়ে হয় তাদের। তবে সেই ঘরে নেই কোন সন্তান।

আর খোকন নন্দীর ভাই বাবুল নন্দী জানান তার ভাই কবে মুসলমান হয়ে বিয়ে করেছেন তা জানেন না তারা।

খোকন কোন ধর্মের এখন পর্যন্ত সিদ্ধান্ত দেন নি আদালত। বিষয়টি অধিকতর যাচাই বাছাই প্রয়োজন বলে মনে করছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী জ্যোজিরময় বড়ুয়া।

রাজধানীর ফার্মগেট এলাকায় খোকন নন্দীর একটি বহুতল মার্কেটসহ তিনি রেখে গেছেন বেশকিছু স্থাবর সম্পত্তি।

news24bd.tv/রিমু