শনিবার, ৬ জুন, ২০২০ | আপডেট ০৬ ঘণ্টা ৪১ মিনিট আগে

‘যুদ্ধ বাধলে যুক্তরাষ্ট্র সব হারাবে’

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

‘যুদ্ধ বাধলে যুক্তরাষ্ট্র সব হারাবে’

মেজর জেনারেল কাসেম সুলাইমানি।

ইরানের সঙ্গে যুদ্ধ বাধলে যুক্তরাষ্ট্রের পতন অনিবার্য বলে মনে করছেন ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর (আইআরজিসি) কুদস ফোর্সের প্রধান মেজর জেনারেল কাসেম সুলাইমানি।

তিনি বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র তার সব কিছু হারাবে। যুক্তরাষ্ট্র যুদ্ধ শুরু করলে এর সমাপ্তি কেমন হবে তা আমরা নির্ধারণ করব। বৃহস্পতিবার হামেদানে এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

ইরানের বিরুদ্ধে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের হুমকির প্রতিক্রিয়ায় জেনারেল সুলাইমানি আরও বলেন, ট্রাম্প জুয়াড়ির ভাষায় কথা বলেন। ইসলামি ইরানের প্রেসিডেন্টের পক্ষ থেকে জবাব পাওয়ার মতো মর্যাদার অধিকারী ট্রাম্প নন।

সোমবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এক টুইট বার্তায় ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানিকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন, আমেরিকাকে কখনো আর হুমকি দেবেন না। দিলে এমন পরিণাম ভোগ করবেন, ইতিহাসে যাদের সংখ্যা খুব অল্প।

এর জবাবে কাসেম সুলাইমানি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন, আপনি ইরানকে ইতিহাসের বিরল পরিণতির হুমকি দিচ্ছেন। আপনি আপনার সামরিক কমান্ডার, রাজনীতিবিদ ও নিরাপত্তা সংস্থাগুলোর প্রধানদের কাছ থেকে জেনে নিন, তারা গত কয়েক দশকে কী করতে পেরেছে।

আফগানিস্তানে মার্কিন অপরাধযজ্ঞের প্রতি ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, আমেরিকা এক লাখ ১০ হাজার সেনা, হাজার হাজার ট্যাঙ্ক ও সাজোয়া যান, শত শত উন্নত জঙ্গিবিমান ও হেলিকপ্টারসহ ব্যাপক সামরিক সরঞ্জাম নিয়ে তালেবানের মতো একটি দুর্বল সংগঠনের ওপর হামলা চালিয়েও কোনো সাফল্য অর্জন করতে পারেনি।

ইরাকে মার্কিন নির্মমতা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ইরাকে মার্কিনীদের নৃশংসতা মধ্যযুগের পাশবিকতাকেও হার মানিয়েছে। তারা ট্যাঙ্ক নিয়ে ঘরবাড়িতে ঢুকে সেখানকার অধিবাসীদেরকে ট্যাঙ্কের নিচে পিষে মেরেছে। তারাই ইরাকে আবু গারিব বন্দিশিবির গড়ে তুলেছিল। এসব কলঙ্ক কখনোই মুছে যাবে না।

ইয়েমেনের কথা উল্লেখ করে আইআরজিসির কুদস ফোর্সের প্রধান আরও বলেন, হিজবুল্লাহর বিরুদ্ধে ৩৩ দিনের যুদ্ধে আমেরিকা ইসরাইলের প্রতি সমর্থন ও সহযোগিতা দিয়েছে। কিন্তু তাদের পরাজয় ঘটেছে। সৌদি আরব এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের সহযোগিতায় ২ লাখ কোটি ডলার নিয়ে ইয়েমেনে হামলা শুরু করেছে। কিন্তু সেখানেও ব্যর্থ হয়েছে। আমেরিকা এমন সময় ইরানকে হুমকি দিচ্ছে যখন তারা লোহিত সাগরকে অনিরাপদ করে তুলেছে এবং বছরের পর বছর ধরে সৌদি আরব নিরাপদ দেশ হিসেবে থাকলেও এখন দেশটিতে একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র পড়ছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে হুমকি দিয়ে তিনি বলেন, আপনাকে মোকাবেলা করার জন্য ইরানের গোটা সামরিক বাহিনীর প্রয়োজন নেই। আইআরজিসি'র কুদস ফোর্স একাই যথেষ্ট। আমরা সব জায়গায় আছি। কারণ আমরা হলাম শাহাদাৎপিয়াসী জাতি। আমরা অনেক কঠিন পথ ও ঘটনা পাড়ি দিয়ে এসেছি।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য