কম বায়ু দূষণও শরীরের ব্যাপক ক্ষতি করতে পারে
কম বায়ু দূষণও শরীরের ব্যাপক ক্ষতি করতে পারে

সংগৃহীত ছবি

কম বায়ু দূষণও শরীরের ব্যাপক ক্ষতি করতে পারে

অনলাইন ডেস্ক

১৯৫২ সালে বায়ু দূষণের এক বিরাট বিপর্যয়ের মুখোমুখি হয়েছিল লন্ডন। মাত্র এক সপ্তাহের ব্যবধানে মারা গিয়েছিল হাজার হাজার মানুষ। সেই অবস্থা বুঝিয়ে দিয়েছিল বায়ু দূষণ কতটা ভয়ংকর হতে পারে।

এরপর থেকেই বায়ুর মান ভাল রাখতে কাজ করা হচ্ছে।

গাইডলাইন দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও। অনেক সরকার বায়ুর মান ভালো করতে কাজ করে যাচ্ছে। তবে এর মধ্যে বায়ু দূষণ নিয়ে নতুন এক তথ্য সামনে এসেছে। এক গবেষণায় দেখা গেছে, হালকা বায়ু দূষণও মানব শরীরে ব্যাপক ক্ষতি করতে পারে।

কানাডার এক গবেষণায় উঠে এসেছে এ তথ্য। খবর গার্ডিয়ানের।

প্রতিবেদনে বিট্রিশ সংবাদ মাধ্যমটি জানায়, ১৯৮১ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত ৭০ লাখ কানাডিয়ানের আদমশুমারির রেকর্ডের সঙ্গে বায়ু দূষণের তথ্যেগুলোর মিলিত করা হয়। যেখানে দেখা যায়, অল্প পরিমাণে বায়ু দূষণও ক্ষতিকারক। এমনকি ভালো মান থাকা সত্ত্বেও বায়ু দূষণে কানাডায় প্রতি বছর আট হাজার মানুষ মারা যায়।

কানাডিয়ান এ গবেষণাটির অর্থায়ন করেছে ইউএস হেলথ ইফেক্টস ইন্সটিটিউট। বায়ু দূষণ নিয়ে গবেষণা করার জন্য আরও দুটি প্রতিষ্ঠানকে অর্থায়ন করে তারা। ওইসব গবেষণায়ও দেখা যায়, পরিচ্ছন্ন শহরগুলোতে হালকা বায়ু দূষণও মানব শরীরের ব্যাপক ক্ষতি করে।

কানাডার এ গবেষণাটির নেতৃত্ব দেন ব্রিটিশ কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মাইকেল ব্রাউয়ের। তিনি বলেন, ‘বায়ুর মান কতটুকু থাকলে ভালো হবে তা নিয়ে গাইডলাইন রয়েছে। তবে  সেটি নিরাপদ কি না তা নিয়ে সন্দেহ বাড়ছে। আমরা এখনো সম্পূর্ণ নিরাপদ স্তর চিহ্নিত করতে পারিনি। আমাদের সরকারগুলোর দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন করতে হবে। তাদের বায়ুর মান ভালো রাখার ওপর ফোকাস রাখা উচিত। ’

news24bd.tv/মামুন