ঠিকাদারের বিরুদ্ধে অভিযোগ, ছাতা দিয়ে পিটিয়েছেন প্রকৌশলীকে
ঠিকাদারের বিরুদ্ধে অভিযোগ, ছাতা দিয়ে পিটিয়েছেন প্রকৌশলীকে

সংগৃহীত ছবি

ঠিকাদারের বিরুদ্ধে অভিযোগ, ছাতা দিয়ে পিটিয়েছেন প্রকৌশলীকে

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের উপ-সহকারী প্রকৌশলী ফেরদৌসী বেগমকে ছাতা দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহতের অভিযোগ উঠেছে ওই বিভাগের ঠিকাদার কাজী মাহবুবুর রহমান রুনুর বিরুদ্ধে। আজ বুধবার দুপুরে শহরের তুহিন স্যানিটারী দোকানের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, কালীগঞ্জ উপজেলার মনোহরপুর দাখিল মাদ্রাসার নব নির্মিত ভবনের ঠিকাদারী কাজ করছেন কাজী মাহবুবুর রহমান রুনু। ওই কাজের তদারকির দায়িত্বে আছেন ঝিনাইদহ শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের উপ-সহকারী প্রকৌশলী ফেরদৌসী বেগম।

মাদ্রাসার নবনির্মিত ভবনের কাজের মান নিয়ে একাধিক বার ঠিকাদারকে সতর্ক করেন ফেরদৌসী বেগম। আজ দুপুরে শহরের তুহিন স্যানাটারীর সামনে মাহবুবুর রহমানের সাথে উপ-সহকারী প্রকৌশলী ফেরদৌসী বেগমের দেখা হয়। তখন ঠিকাদার তার হাতে থাকা ছাতা দিয়ে ফেরদৌসী বেগমকে বেধড়ক মারপিট করে ও অশালীন ভাষায় গালিগালাজ করেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

ভুক্তভোগী ফেরদৌসী বেগম জানান, আমি মনোহরপুর দাখিল মাদ্রাসার কাজের মান ভালো করার জন্য বেশ কয়েকদিন যাবৎ রুনু ভাইকে বলে আসছিলাম।

আজ শহরে দেখা হলে তিনি আমাকে ছাতা দিয়ে বেধড়ক মারপিট ও অশালীন আচরণ করে। আমি এ বিষয়ে আমার দপ্তরকে অবগত করেছি।

অভিযুক্ত ঠিকাদার জানান, উপ-সহকারী প্রকৌশলী ফেরদৌসী বেগম প্রত্যেকটা বিষয়ে টাকা ছাড়া কিছুই বোঝেন না। তাকে ছাতা দিয়ে মারধর করা হয়নি, তার হাত থেকে ছাতা কেড়ে নেওয়া হয়েছে।  

এ বিষয়ে ঝিনাইদহ শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী ইশতিয়াক হিমেল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ বিষয়ে থানায় লিখিত অভিযোগের প্রস্তুতি চলছে।

news24bd.tv/আজিজ