জ্বালানিতে রাশিয়ার আয় বাড়বে ৩৮ শতাংশ
জ্বালানিতে রাশিয়ার আয় বাড়বে ৩৮ শতাংশ

সংগৃহীত ছবি

জ্বালানিতে রাশিয়ার আয় বাড়বে ৩৮ শতাংশ

অনলাইন ডেস্ক

বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম অপরিশোধিত তেল উৎপাদনকারী এবং তৃতীয় বৃহত্তম রপ্তানিকারক দেশ রাশিয়া। জীবাশ্ম জ্বালানিগুলোর রফতানি করেই দেশটির বেশিরভাগ অর্থ আসে। ইউক্রেন আক্রমণের পর থেকে জীবাশ্ম জ্বালানি থেকে দেশটির আয়ের পরিমাণ আরও বাড়ছে।

চলতি বছরে জীবাশ্ম জ্বালানি বিক্রি করে দেশটি আয় করবে ৩৩৭ দশমিক পাঁচ বিলিয়ন ডলার।

যা গত বছর অর্থাৎ ২০২১ সাল থেকে ৩৮ শতাংশ বেশি। রাশিয়ার অর্থ মন্ত্রণালয়ের বরাতে এ তথ্য জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা রয়টার্স।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন নথি পর্যবেক্ষণ করে রয়টার্স জানায়, ধারণা করা হচ্ছে, ২০২২ সালে জীবাশ্ম জ্বালানি বিক্রি করে দেশটি আয় করবে ৩৩৭ বিলিয়ন ডলার। তবে পরবর্তী বছরে আয়ে কিছুটা ভাটা পড়বে।

এরপরেও তারা আয় করবে ২৫৫ দশমিক আট বিলিয়ন ডলার। যেখানে ২০২১ সালে মস্কো আয় করেছিল ২৪৪ দশমিক দুই বিলিয়ন ডলার।

জীবাশ্ম জ্বালানি বিক্রি করে রাশিয়ার এত আয় হলে তাদের অর্থনীতি আরও শক্তিশালী হবে বলে ধারণা বিশ্লেষকদের।

আন্তর্জাতিক ও নিরাপত্তা বিষয়ক জার্মান ইন্সটিটিউটের সিনিয়র কর্মকর্তা জেইনস ক্লুজ বলেন, ‘রাশিয়ার অর্থনীতিতে পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার প্রভাব খুবই কম। তবে গাড়ি শিল্পসহ তাদের কয়েকটি সেক্টরে বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে। তাদের জ্বালানি খাত এখনও তুলনামূলকভাবে ভালো। ’

ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসনের পর থেকেই ক্রেমলিনের ওপর একের পর এক নিষেধাজ্ঞা দিয়ে আসছে পশ্চিমারা। তবে এতে ভাটা পড়েনি মস্কোর জ্বালানি রফতানিতে। এমনকি ইউরোপে গ্যাস রফতানি কমিয়েছে পুতিনের সরকার। এতে প্রাকৃতিক এ জ্বালানির দাম বেড়েছে গোটা ইউরোপে।

news24bd.tv/মামুন