চীন-ভারতের পর রাশিয়ার তেল কিনছে মিয়ানমার
চীন-ভারতের পর রাশিয়ার তেল কিনছে মিয়ানমার

চীন-ভারতের পর রাশিয়ার তেল কিনছে মিয়ানমার

আসমা তুলি

রাশিয়ার আরও তেল আসছে এশিয়ায়। এবার দেশটি থেকে তেল আমদানি করতে যাচ্ছে মিয়ানমার। এদিকে, রাশিয়া থেকে সস্তায় তেল কেনায় পশ্চিমাদের রোষানলে পড়া ভারত ফের নিজের অবস্থান স্পষ্ট করেছে। জানিয়েছে, এক্ষেত্রে দেশ ও মানুষের স্বার্থকে আগ্রধিকার দিয়েছে দিল্লী।

অন্যদিকে, বছরের প্রথম ৭ মাসে রেকর্ড উচ্চতায় পৌঁছেছে চীনের তেল গ্যাস উৎপাদন। স্থিতিশীল রয়েছে দেশটির তেল ও গ্যাস আমদানিও।

ইউক্রেন যুদ্ধের জেরে রাশিয়ার জ্বালানির উপর পশ্চিমা বিশ্বের আরোপিত নিষেধাজ্ঞা এড়িয়ে অনেক দেশ রাশিয়ার তেল ও তেলজাতপণ্য কিনতে বাধ্য হচ্ছে। ভারত বলছে, দেশের স্বার্থ রক্ষায় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে মোদি প্রশাসন।

এ বাস্তবতাকে বিশ্ব সহজভাবে নেবে আশা দিল্লীর।

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জয়শংকর জানান, আমরা এমন একটা সময়ে দাঁড়িয়ে আছি, যখন তেলের দাম আকাশছোঁয়া। গ্যাসেরও দাম বাড়ছে । এমন একটা পরিস্থিতি যেখানে সব দেশই নিজেদের জনগণের জন্য সেরাটা দেখবে। ভারতও তাই করেছে।

চীন, ভারতের পর রাশিয়ার কাছ থেকে তেল কিনছে এশিয়ার আরেক দেশ মিয়ানমার। আসছে সেপ্টেম্বর থেকে পর্যায়ক্রমে মিয়ানমারে জ্বালানি চালান শুরু করবে রাশিয়া। অন্য উৎস থেকে না পেলে রাশিয়া থেকে আরও তেল আমদানিতে ঝুঁকতে পারে শ্রীলঙ্কাও।

এদিকে, নিজেদের উৎপাদনের পাশাপাশি রাশিয়া থেকে জ্বালানি আমদানি করে অনেকটাই স্বস্তিতে চীনের অর্থনীতি।

এই বছরের প্রথম সাত মাসে, চীনের মোট তেল ও গ্যাস উৎপাদন রেকর্ড উচ্চতায় পৌঁছেছে। এই সময়ের মধ্যে তেল ও গ্যাস আমদানিও সামগ্রিকভাবে স্থিতিশীল ছিল।

গেল সাত মাসে ২৯০ মিলিয়ন টন অপরিশোধিত তেল এবং ৮৬.৫ বিলিয়ন ঘনমিটার প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানি করেছে চীন।

news24bd.tv/ তৌহিদ