মাদারীপুরে চিকিৎসকের অবহেলায় রোগী মৃত্যুর অভিযোগ
মাদারীপুরে চিকিৎসকের অবহেলায় রোগী মৃত্যুর অভিযোগ

সংগৃহীত ছবি

মাদারীপুরে চিকিৎসকের অবহেলায় রোগী মৃত্যুর অভিযোগ

মাদারীপুর প্রতিনিধি

মাদারীপুরে প্লানেট হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে চিকিৎসকের অবহেলায় এক রোগীর মৃত্যুর অভিযোগে পাওয়া গেছে। রোগীকে অপারেশন থিয়েটারে রেখেই অভিযুক্ত চিকিৎসক পালিয়ে গেছেন বলে দাবী করছেন স্বজনরা। শুক্রবার সকালে মাদারীপুর শহরের কলেজ রোড এলাকার প্লানেট হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে। নিহত সৈয়দা মাজেদা বেগম মাদারীপুর ডাসার উপজেলার ডাসার গ্রামের মৃত নুরুউদ্দীন আহম্মেদের স্ত্রী।

স্বজনরা জানান, গত বৃহস্পতিবার বাড়ির সিড়ি থেকে নামার সময় পড়ে গিয়ে হাটুর জয়েন্টে আঘাত পান মাজেদা বেগম। সেদিন রাতেই শহরের প্লানেট হাসপাতালে ভর্তি করা হলে দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক মহসিনা খান (আইরিন) অপারেশন করানোর কথা বলেন।  

পরে শুক্রবার সকাল ৮ টার দিকে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যান তারা। সকাল ৯ টার দিকে রোগীকে অপারেশন থিয়েটার থেকে বের করে উন্নত চিকিৎসার জন্য এম্বুলেন্সে উঠিয়ে দিয়ে অন্যত্র নিয়ে যাওয়ার কথা বলে হাসপাতাল থেকে সটকে পড়েন ওই চিকিৎসক।

স্বজনরা রোগীর রিপোর্ট চাইলে হাসপাতাল থেকে জানানো হয় রোগী মারা গেছেন।

নিহতের ছেলে মুনিম অভিযোগ করে বলেন, হাসপাতালের চিকিৎসক আইরিনের গাফলতির ফলে কারণেই আমার মায়ের মৃত্যু হয়েছে। তিনি যদি না পারতেন তাহলে আমার মায়ের অপারেশন কেন করলেন। তাও অপারেশনের মাঝেই আমার মাকে ওটি থেকে বের করে দিয়ে বলেন অন্য কোথাও নিয়ে যেতে। ঘটনা ঘটিয়ে সাথে সাথেই তিনি পালিয়ে চলে গেছেন।

মৃত মাজেদা বেগমের বড় ছেলে আবুল কালাম বলেন, আমার মায়ের রিপোর্ট ভালো ছিলো। ডাক্তার আইরিন অপারেশন রুমে নিয়ে, অপারেশন শেষ না করেই চলে যান। তখনো তারা বলেনি যে আমার মা মারা গেছে। তারা ২ ঘন্টা পরে অ্যাম্বুলেন্সে উঠিয়ে ইসিজি করে বলেন, আমার মা মারা গেছেন। কোনো দায়িত্বশীল লোক এগিয়ে আসেনি। আমার মায়ের মতো এভাবে যেন আর কাউকে মারা যেতে না হয় এজন্য সরকার আর স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নজর দেওয়া উচিত।  

এ ঘটনায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কথা বলতে রাজি হয়নি। ঘটনার পর চিকিৎসককে হাসপাতালে পাওয়া যায়নি।

মাদারীপুর সদর থানার ওসি মনোয়ার হোসেন চৌধুরী বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার অভিযোগ দিলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মাদারীপুর সিভিল সার্জন ডা. মো. মুনির আহমেদ খান বলেন, আমি এখনো বিষয়টি শুনিনি। তবে এ ঘটনায় অভিযোগ আসলে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।

news24bd.tv/আজিজ